English ভিডিও গ্যালারি ফটো গ্যালারি ই-পেপার বৃহস্পতিবার ২১ নভেম্বর ২০১৯ ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ই-পেপার বৃহস্পতিবার ২১ নভেম্বর ২০১৯
 / সারাদেশ / অনুপম সৌন্দর্যে ঘেরা জমিদার বাংলো
অনুপম সৌন্দর্যে ঘেরা জমিদার বাংলো
ধসে পড়ার আশঙ্কা
প্রকাশ: শনিবার, ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১:৩৭ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

অনুপম সৌন্দর্যে ঘেরা জমিদার বাংলো

অনুপম সৌন্দর্যে ঘেরা জমিদার বাংলো

সোনাইমুড়ী প্রতিনিধি : সোনাইমুড়ী উপজেলার ঢেউটি ইউনিয়নে প্রায় দুই শত বছর আগে নির্মিত অনুপম সৌন্দর্যে ঘেরা জমিদার বাংলো এখন ক্লান্ত হয়ে বিবর্ণরূপ ধারণ করেছে। জমিদার বংশের উত্তরসূরিরা জমিদারিত্ব নিয়ে গল্পের চালে স্মৃতি মন্থন করতে গিয়ে এখনো দম্ভ প্রকাশ করলেও জমিদারি স্মৃতিটুকু রক্ষয় তাদের কারো কোনো উদ্যোগ এবং পরিকল্পনা নেই।
বর্তমানে যেকোনো সময় ধসে পড়ে মুছে যাওয়ার আশঙ্কায় ঐতিহ্যবাহী জমিদার বাংলোটি। জরুরিভাবে সংস্কার না করলে আদি সৌন্দর্যে শেষ স্মৃতিটুকু হারিয়ে যাবে, পাশাপাশি ধসে পড়ার মুহুর্তে ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা।
প্রচলিত আছ, একটি কক্ষে গুপ্তধন রয়েছে এবং ওই স্থানটি দিনের বেলাতেও আঁধারে ঢেকে থাকে, তাই স্থানীয়রা বাড়িটিকে আঁধার মানিক বলে ডাকে।

জমিদার বাড়ির বিস্তীর্ণ এলাকায় ঘুরতে গিয়ে কথা হয় অনেকের সাথে। তারা জানান, ঢেউটি ইউনিয়নের ভূঞার হাটখোলা এলাকার ভূঞাবাড়ির আনোয়ার ভূঁইয়া, ইব্রাহিম ভূঞা ও মিয়াজন ভ্ঞূারা তিন ভাই ১৩১৬ সালে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির ভূলুয়া স্টেটের কাছ থেকে জমিদারি প্রথা (চৌধুরীত্ব) কিনে নিয়ে জমিদারি প্রথা চালু করেন। তখন এই বাড়িটিই হয়ে উঠে সামাজিক জীবনের বিশাল এক সাম্রাজ্য। এলাকার মানুষের রীতিমতো খাজনা প্রদান, হুকুম বা নির্দেশ ফরমান এমনকি বিচার, আদালত সবই এখান থেকে সম্পন্ন করা হতো। এখানে ছিল শিক্ষা অর্জনের জন্য ছোট্ট একটি পাঠশালা। সুশিক্ষিত হওয়ার বাসনা থেকে এলাকার মানুষ এখানে এসে শিক্ষা অর্জন করত। আর এসব তাগিদ থেকেই এখানে নির্মিত জমিদার বাংলো।

অনুপম সৌন্দর্যে ঘেরা জমিদার বাংলো

অনুপম সৌন্দর্যে ঘেরা জমিদার বাংলো

১৫ একর জমির বিশালত্বের ঠিক প্রধান ফটকেই নির্মাণ করা হয় এই বাংলো। জমিদার মিয়াজন ভূঞার দৌহিত্র অর্থাৎ নজির উল্যার ছেলে শাহাবুদ্দিন এই প্রতিবেদককে জানান, যাবতীয় কর্ম সম্পাদনে তার পূর্ব পুরুষরা এখানে একটি ভবন নির্মাণের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করে। এরপর কলকাতার একটি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানকে এর দায়িত্ব দেওয়া হয়। বর্তমানে বাংলোর সামনে যে দীঘিটি রয়েছে বাংলোর জন্য মাটি কাটতে গিয়েই এই দীঘির সৃষ্টি হয়েছে। দীঘি খনন করা মাটি এখানেই পুড়িয়ে ইট তৈরি করা হয়। সেই ইট দিয়েই নির্মিত হয় ৭০০ বছরের পুরনো ঐতিহ্য বহন করে চলা এই বাংলো। কারুকার্যে ভরা বাংলোর সামনেই নির্মিত হয় একটি মসজিদ। যার শৈল্পিকতা আজও ভ্রমণপিপাসু মানুষের চোখ ধাঁধিয়ে দেয়। সেই শুরু থেকে বংশ পরম্পরায় এসেছে আরো অনেক প্রজন্ম। আনোয়ার ভূঞা, ছেরাজুল ইসলাম, মোতাহের হোসেন, আনোয়ারুল আজিম, আব্দুল হাই চৌধুরী এবং তাদের বংশধরদের এই জমিদারি প্রথা সময়ের বিবর্তনে ১৯৫৫ সালে বিলুপ্ত হয়ে যায়। তবে কালের সাক্ষী হয়ে এখনো দাঁড়িয়ে আছে লতাপাতা, গুল্মের আবরণে বিমর্ষ হয়ে সেই বাংলো। ক্লান্ত দেহে এই অভিমানী বাংলো সংস্কারে কারো কোনো আগ্রহ নেই। তবে তাদের বংশধর শাহাবুদ্দিনের কণ্ঠে এখনো ঝরে পড়ে জমিদারিত্বের ছোঁয়া।

তিনি বলেন, এখন কী আর করার আছে, সামাজিক অবক্ষয়, পরস্পর অশ্রদ্ধা আর মানুষের স্বেচ্ছাচারিতায় কোনোদিকে চলে যাওয়াই ভালো, নয়তো ঘরে বসে থাকা নির্জীব হয়ে। ফিরে আসার সময় কথা হয় কয়েকজন এলাকাবাসীর সাথে। তাদের দাবি, ভবনটি সংস্কার করা হলে সুন্দর স্থাপনাগুলো রক্ষা হবে, এই বিষয়ে তারা যথাযথ কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।



সর্বশেষ খবর
টেলিভিশন কর্মীদের চাকরির সুরক্ষায় আইনী ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে: তথ্যমন্ত্রী
আগামী ২৯ নভেম্বর থেকে ঢাকায় কোরিয়ান চলচ্চিত্র উৎসব
ঝটপট বানিয়ে ফেলুন গরম গরম খোলা জালি
আগামীকাল সকালে কলকাতায় যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী
জেরুজালেমের আল রাসাসি মসজিদ বন্ধ করে দিয়েছে ইসরায়েল
আরব আমিরাতে প্রবাসীদের প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী
আগামীকাল ঢাকা আসছেন বান কি মুন
সর্বাধিক পঠিত
নতুন সড়ক আইন নিয়ে বাড়াবাড়ি না করতে নির্দেশ কাদেরের
ক্যাসিনোতে বুবলী!
বিয়ের সাজে টমেটোর গয়না!
আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি সৃজিত-মিথিলার বিয়ে
বাজারে আসছে পুরুষদের জন্য গর্ভনিরোধক ইনজেকশন!
আমি খেললে ব্রাজিল আরও পাঁচটা বিশ্বকাপ জিতে নিত :রোনালদো
ভাসমান ট্রেন আবিষ্কার বাংলাদেশি গবেষকের
আরও দেখুন...


Copyright © 1962-2019
All rights reserved
সম্পাদক, প্রকাশক ও মুদ্রাকর: মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন জিটু
সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : রেড ক্রিসেন্ট বোরাক টাওয়ার, লেভেল-৫, ইস্কাটন গার্ডেন রোড, রমনা, ঢাকা-১০০০।
ফোনঃ +৮৮-০২-৯৬৬৬৬৮৫, ৯৬৭৫৮৮৫, ৯৬৬৪৮৮২-৩, ফ্যাক্সঃ +৮৮-০২-৯৬১১৬০৪, হটলাইন : +৮৮০-১৯২৬৬৬৭০০২-৩, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Website: http://www.dainikbangla.com.bd, Developed by i2soft
সম্পাদক, প্রকাশক ও মুদ্রাকর: মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন জিটু
সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : রেড ক্রিসেন্ট বোরাক টাওয়ার, লেভেল-৫, ইস্কাটন গার্ডেন রোড, রমনা, ঢাকা-১০০০।
ফোনঃ +৮৮-০২-৯৬৬৬৬৮৫, ৯৬৭৫৮৮৫, ৯৬৬৪৮৮২-৩, ফ্যাক্সঃ +৮৮-০২-৯৬১১৬০৪, হটলাইন : +৮৮০-১৯২৬৬৬৭০০২-৩, ই-মেইল : [email protected], [email protected]