English ভিডিও গ্যালারি ফটো গ্যালারি ই-পেপার মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০ ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭
ই-পেপার মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০
 / সারাদেশ / খাদ্য-বিশুদ্ধ পানির সংকটে কুড়িগ্রামের বন্যার্তরা
খাদ্য-বিশুদ্ধ পানির সংকটে কুড়িগ্রামের বন্যার্তরা
কুড়িগ্রাম সংবাদদাতা :
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২৩ জুলাই, ২০২০, ১২:০৯ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

খাদ্য-বিশুদ্ধ পানির সংকটে কুড়িগ্রামের বন্যার্তরা

খাদ্য-বিশুদ্ধ পানির সংকটে কুড়িগ্রামের বন্যার্তরা

কুড়িগ্রামে ব্রহ্মপুত্র, ধরলা, তিস্তা, দুধকুমারসহ ১৬টি নদ-নদীর পানি আবারো বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। ফলে জেলার সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতি হয়েছে। পানিবন্দি জীবন-যাপন করছেন অন্তত চার লাখ মানুষ। শুধু তাই নয়, বন্যা দুর্গত এলাকাগুলোতে খাদ্য ও বিশুদ্ধ পানির তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার (২৩ জুলাই ২০২০) সকালে বিষয়টি জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক রেজাউল করিম।

অন্যদিকে, তিস্তার পানির প্রবল স্রোতে রাজারহাট উপজেলার ঘড়িয়ালডাঙ্গা ইউনিয়নের বুড়ির হাট এলাকায় ক্রস বারের মাটির ৫০ মিটার পানিতে ভেসে গেছে।  ভাঙন দেখা দিয়ে রাজারহাটের বিদ্যানন্দ ইউনিয়নের রতিরাম এলাকার ক্রস বারেও।  এতে করে ওই দুই ইউনিয়নের প্রায় ২০ গ্রাম ভাঙনের হুমকীতে পড়েছে।  গত ৫ দিন ধরে জিও ব্যাগ ও বালুর বস্তা ফেলে ভাঙন ঠেকানোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আরিফুল ইসলাম জানান,গত মঙ্গলবার বিকেল ৩টা থেকে বুধবার বিকেল ৩টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় ধরলার পানি সেতু পয়েন্টে ২৪ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসীমার ৬৯ সেন্টিমিটার এবং ব্রহ্মপুত্রের পানি চিলমারী পয়েন্টে ১২ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসীমার ৫৩ সেন্টিমিটার, নুনখাওয়া পয়েন্টে ১৪ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসীমার ৪২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। অন্যদিকে তিস্তার পানি কাউনিয়া পয়েন্টে ১৬ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসীমার ২৭ সেন্টিমিটার নীচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।  রাজারহাট উপজেলার বুড়িরহাট ও রতিরাম এলাকার ক্রস বার রক্ষা চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

বন্যাকবলিত এলাকাগুলোতে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বিশেষ করে ব্রহ্মপুত্র ও ধরলার পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় এই দুই নদ-নদীর অববাহিকার প্রায় আড়াই শতাধিক চরের ৩ লক্ষাধিক মানুষ দীর্ঘ ২৮ দিন ধরে নৌকায় ও ঘরের ভিতর পানি মধ্যে বসবাস করছে।  এ অবস্থায় খাদ্য ও বিশুদ্ধ পানির সংকট তাদের জীবন দুর্বিসহ করে তুলেছে।  ত্রাণের অভাবে খেয়ে না খেয়ে দিন পাড় করছে দুর্গম চরাঞ্চলের বন্যা কবলিত মানুষজন।  পানি বাহিত রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন এসব এলাকার বন্যা দুর্গতরা।  স্বাস্থ্য ঝুঁকি বাড়ছে বন্যা দুর্গত এলাকার শিশুদের।  চরাঞ্চলের চারনভুমিগুলো দীর্ঘদিন বন্যার পানিতে তলিয়ে থাকায় গৃহ পালিত পশুর খাদ্য সংকট দুর্ভোগ আরো বাড়িয়েছে বন্যাকবলিত এলাকার মানুষজনের।

নদ-নদীর পানি আবারো বৃদ্ধি পাওয়ার ফলে উঁচু বাঁধ, পাকা সড়ক ও বিভিন্ন আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রয় নেয়া বন্যা দুর্গত মানুষজন সহসাই ঘরে ফিরতে পারছেন না।

উলিপুর উপজেলার বেগমগঞ্জ ইউনিয়নের মশালের চরের আকছেদ আলী ও রোজিনা বেগম বলেন, ‘প্রায় এক মাস ধরে পানির উপর বসবাস করছি।  প্রতিদিন ভাবছি পানি কমবে কমবে কিন্তু পানি কমছে না।  এ পর্যন্ত কোন ত্রাণ পাইনি। ঘরের খাবারও শেষ হয়ে গেছে।  অন্যের কাছে ধার দেনা করে সামান্য কিছু খাবার এনে এক বেলা খেয়ে দিন পার করছি।

সদরের যাত্রাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. আইয়ুব আলী সরকার বলেন, আমার ইউনিয়নের ২৫শ পরিবারের সবাই প্রায় ১ মাস ধরে পানিবন্দি জীবন-যাপন করছে।  বন্যার শুরুর পর থেকে এরমধ্যে ১০৫০ পরিবারকে ১০ কেজি করে চাল দেয়া সম্ভব হয়েছে।

কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক মো. রেজাউল করিম জানান, জেলার ৯ উপজেলার বন্যা দুর্গত মানুষদের জন্য এ পর্যন্ত ১৯০ মেট্রিক টন চাল, জিআর ক্যাশ ৯ লাখ টাকা, শিশু খাদ্যের জন্য ২ লাখ ও গো-খাদ্যের জন্য ২ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। যা বিতরণ করা হয়েছে। আগামী ২৫ জুলাইয়ের মধ্যে বন্যা কবলিত পরিবারগুলো ভিজিএফ’র ১০ কেজি করে চাল পাবে।  




সর্বশেষ খবর
অপরাধী ও সন্ত্রাসীদের কোনো দলীয় পরিচয় নেই : কাদের
দেশে করোনায় নতুন মৃত্যু ৩৯, আক্রান্ত ২৯০৭
অর্থ আত্মসাত মামলা: ৭ দিনের রিমান্ডে সাহেদ
দুই হাসপাতালে হবে ফুটবলারদের করোনা পরীক্ষা
বাতিল হচ্ছে আইপিএল নিলাম
সিনহা হত্যা: জামিন মিললো সিফাতের
মিরপুর বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে সমাহিত হবেন আলাউদ্দিন আলী
সর্বাধিক পঠিত
আন্তর্জাতিক বাজারে কমেছে সোনার দাম
ফোনালাপে সিনহা হত্যা ঘটনা সাজানোর আলামত
অভিজ্ঞ নেতাদের চেয়েও উপযুক্ত সিদ্ধান্ত মায়ের মাথা থেকেই আসত
শাবি শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা
রোনালদোর জোড়া গোলেও শেষ আটে যেতে পারেনি জুভেন্টাস
'গুদামে হিজবুল্লাহর ক্ষেপণাস্ত্র মজুদ ছিল- এ খবর সঠিক নয়'
রিয়ালকে হারিয়ে শেষ আটে ম্যান সিটি
আরও দেখুন...


Copyright © 1962-2019
All rights reserved
সম্পাদক, প্রকাশক ও মুদ্রাকর: মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন জিটু
সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : রেড ক্রিসেন্ট বোরাক টাওয়ার, লেভেল-৫, ইস্কাটন গার্ডেন রোড, রমনা, ঢাকা-১০০০।
ফোনঃ +৮৮-০২-, ৫৫১৩৮৫০১, ৫৫১৩৮৫০২, ৫৫১৩৮৫০৩, ফ্যাক্সঃ +৮৮-০২-৫৫১৩৮৫০৪, ই-মেইল : [email protected], [email protected], [email protected]
Website: http://www.dainikbangla.com.bd, Developed by i2soft
সম্পাদক, প্রকাশক ও মুদ্রাকর: মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন জিটু
সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : রেড ক্রিসেন্ট বোরাক টাওয়ার, লেভেল-৫, ইস্কাটন গার্ডেন রোড, রমনা, ঢাকা-১০০০।
ফোনঃ +৮৮-০২-, ৫৫১৩৮৫০১, ৫৫১৩৮৫০২, ৫৫১৩৮৫০৩, ফ্যাক্সঃ +৮৮-০২-৫৫১৩৮৫০৪, ই-মেইল : [email protected], [email protected], [email protected]