ENGLISH
ফটোগ্যালারি
ভিডিও গ্যালারি
শিরোনাম :
স্বাধীনতা সংগ্রামের পথ ধরেই আমাদের সব অর্জন করতে হয়েছে : প্রধানমন্ত্রী      জনদুর্ভোগ কমাতেই পুলিশ পল্টনে ব্যবস্থা নিয়েছিল: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী      ‘সব কর্মসূচির অনুমতি নিতে হবে কেন?’: মির্জা ফখরুল      নয়াপল্টনে বিএনপির ১০ নেতাকর্মী আটক       কেরানীগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩       ইলিশ সংরক্ষণে সংশ্লিষ্ট সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর      অপরাধের শাস্তি ভোগ করছেন খালেদা জিয়া : প্রধানমন্ত্রী      
‘খালেদা জিয়ার সাজা দুর্নীতিবাজ রাজনীতিকদের জন্য সতর্কবার্তা’
Published : Saturday, 10 February, 2018
‘খালেদা জিয়ার সাজা দুর্নীতিবাজ রাজনীতিকদের জন্য সতর্কবার্তা’নারায়ণগঞ্জ সংবাদদাতা : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলায় যে রায় আদালত দিয়েছেন সেই রায় বাংলাদেশের দুর্নীতিবাজ রাজনীতিকদের জন্য সর্তকবার্তা।’ শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সকালে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে মেঘনা দ্বিতীয় সেতুর সুপার স্ট্রাকচার কাজের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের সামনে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘গত ৮ ফেব্রুয়ারি দুর্নীতির বিরুদ্ধে আদালত যে রায়টি দিয়েছেন এই রায় বাংলাদেশের দুর্নীতিবাজ রাজনীতিকদের জন্য সতর্কবার্তা। আমি এভাবেই বিষয়টিকে দেখছি।’ সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘মির্জা ফখরুল সাহেবের জায়গায় থাকলে আমিও একই কথা বলতাম। এটা বলবেই। কেউ কি মেনে নেয় আমি দুর্নীতিবাজ! তবে বিএনপি তাদের গঠনতন্ত্র থেকে ৭ নম্বর ধারা রায়ের আগেই রাতের আঁধারে তুলে দিয়ে প্রমাণ করেছে তারা আত্মস্বীকৃত দুর্নীতিবাজ দল।’

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, ‘পলিটিক্যাল বক্তব্য ভালো ভালো কাজকে ঢেকে দিচ্ছে। পলিটিক্যাল বক্তব্য দিয়ে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করা আমাদের  মুখ্য কাজ নয়। দেশের উন্নয়নটা আমাদের কাছে মুখ্য। রাজনীতি আছে, থাকবে। রাজনৈতিক দল আছে, দেশে নির্বাচন আছে, এসব জেল-জুলুমও থাকে। জেল-জুলুম এগুলো সহ্য করেই এখানে ক্ষমতায় এসেছি।  আমাদের নেত্রীকেও জেল খাটতে হয়েছে। আমার নিজেরও চার বছরের জেলজীবন। এগুলোই আমাদের  জীবন। জেলা যাওয়াটা রাজনীতির অনুষঙ্গ।’

মন্ত্রী বলেন, ‘ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যানজট নিরসনের জন্য দ্বিতীয় কাচঁপুর, দ্বিতীয় মেঘনা ও দ্বিতীয় মেঘনা-গোমতী এই তিনটি নতুন ফোর লেন সেতু নির্মাণ করা হচ্ছে। যেটা আগে ছিল দুই লেনের সেতু। রাস্তা ফোর লেন আর সেতু দুই লেন হওয়ার কারণে যানজট হতো।’

মন্ত্রী সেতু নির্মাণকাজে নিয়োজিত জাপানি নাগরিকদের প্রশংসা করে বলেন, ‘এই তিনটি সেতুর নির্মাণকাজ শেষ হওয়ার নির্ধারিত সময় ছিল ২০১৯ সালের জুন মাস। কিন্তু জাপানিদের কর্মপরিকল্পনা ও আধুনিক প্রযুক্তির সরঞ্জাম ব্যবহারের কারণে সেখানে এখন টার্গেট হচ্ছে ২০১৮ সালের ডিসেম্বর মাস। অর্থাৎ ছয় মাস আগেই এই সেতু তিনটির নির্মাণ কাজ শেষ হবে। মনে হয় চলতি বছরের নভেম্বরেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেতু তিনটির উদ্বোধন করতে পারবেন। ছয় মাস আগে সেতু তিনটি নির্মাণ হওয়ার কারণে ৭০০ কোটি টাকা সাশ্রয় হচ্ছে।’

এ সময় মন্ত্রীর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন সেতুর প্রকল্প পরিচালক সাইদুল হক, দাউদকান্দি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মেজর (অব.) মোহাম্মদ আলী সুমন, সেতু মন্ত্রণালয়ের গণসংযোগ কর্মকর্তা ওয়ালীদ হোসেনসহ সড়ক ও জনপথ বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।





সম্পাদক ও প্রকাশক: মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন জিটু
সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৪৫/৩/এ, বীর উত্তম সি.আর.দত্ত রোড (ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, সোনারগাঁও রোড), হাতির পুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫,বাংলাদেশ।
ফোনঃ +৮৮-০২-৯৬৬৬৬৮৫, ৯৬৭৫৮৮৫, ৯৬৬৪৮৮২-৩, ফ্যাক্সঃ +৮৮-০২-৯৬১১৬০৪, হটলাইন : +৮৮০-১৯২৬৬৬৭০০২-৩
ই-মেইল : mdainikbangla@gmail.com, editordainikbangla@gmail.com, web : www.dainikbangla.com.bd