শুক্রবার, আগস্ট ১২, ২০২২

শিল্পের জন্যই শিল্পী শুধু

শিল্পের জন্যই শিল্পী শুধু
কৃষ্ণকৃমার কুন্নাথ
বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত

‘একদিন শহরের সেরা জলসা

সেদিনই গলায় তার দারুণ জ্বালা

তবুও শ্রোতারা তাকে দিলো না ছুটি

শেষ গান গাইলো সে পড়ে শেষ মালা’

মান্না দের গাওয়া এই গানের মতোই শ্রোতারা ছুটি দেয়নি ভারতীয় শিল্পী কৃষ্ণকৃমার কুন্নাথকে। যার মঞ্চ নাম কেকে। আজীবন মঞ্চেই পাগল করেছেন গানের সুরে। সেই মঞ্চই ছিল তার শেষ ঠিকানা। গত মঙ্গলবার রাতে কলকাতার নজরুল মঞ্চে গাওয়ার পরে হোটেলে গিয়ে মৃত্যু হয় তার।

কেকের মৃত্যুতে শোক যেমন, তেমনি দেখা গিয়েছে ক্ষোভ। আয়োজকদের মঞ্চ ব্যবস্থাপনার অবহেলায় কি মৃত্যু হলো গায়কের? এমন প্রশ্ন উঠেছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।

প্রিয় শিল্পীর গান শুনতে ছিল উপচে ছিল ভিড়। তার মধ্যে ছিল প্রচুর পরিমাণে আলো। ছিল না ভালো শীতাতপ নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কনসার্টের ভিডিওতে দেখা গেল, বারবার পানি পান করছেন কেকে। রুমাল দিয়ে মুছছেন ঘাম। তবে কি গরমেই অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন কেকে?

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, গায়ক প্রচুর ঘামছেন; তাওয়াল দিয়ে মুখ মুছছেন। সেই সময় তাকে বলতে শোনা যায়, ‘বহুত জিয়াদা গরম হ্যায়’ (অনেক বেশি গরম)।

গরমের বিষয়টি নিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন কলকাতার সংগীতশিল্পী রুপম ইসলাম ও বাংলাদেশের নির্মাতা মাসুদ হাসান উজ্জ্বল।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, গায়কের মৃত্যুর কারণ এখনও অজানা। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন এলে বিষয়টি জানা যাবে। পুলিশ এরই মধ্যে অপমৃত্যুর মামলা করেছে।

কলকাতায় দুপুরের দিকে প্রয়াত কণ্ঠশিল্পীর মরদেহ আনা হয় রবীন্দ্র সদনে। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর উপস্থিতিতে শিল্পীকে জানানো হয় শ্রদ্ধা। কফিনে মালা দিয়ে শ্রদ্ধা জানান কেকের স্ত্রী জ্যোতি কৃষ্ণ, পুত্র নকুল কৃষ্ণা কুন্নাথ ও পরিবারের আরও দুই সদস্য।

মমতা জানিয়েছেন, ময়নাতদন্তের ফল পেতে সময় লাগবে। মরদেহ নিয়ে মুম্বাই চলে যাবে কেকের পরিবার। বিমান ছাড়বে কলকাতা সময় বিকেল ৫টা ১৫ মিনিটে। বুধবার সকালেই গায়ক কেকের ময়নাতদন্ত শুরু হয় কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে। যেহেতু বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ তাই ভালোভাবে ময়নাতদন্ত করতে সময় লাগবে বলে জানান মমতা।

প্রিয় শিল্পীর এমন চলে যাওয়ায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে চলছে শোক, সঙ্গে ক্ষোভও। প্রিয় শিল্পীর এমন অযত্ন অনেকেই মানতে পারছেন না। কিন্তু শেষ নিশ্বাস পর্যন্ত শিল্পের সাধনাই করে গেলেন। কেকের মৃত্যু প্রমাণ করল মান্না দের সেই গানের কথাই যেন, ‘শিল্পের জন্যই শিল্পী শুধু, এছাড়া নেই যে তার অন্য জীবন’।

কৃষ্ণকুমার কুন্নাথ থেকে কেকে

নব্বই দশকের শেষ। ভারতীয় যে চ্যানেলটি মানুষের কাছে পরিচিত হয়ে উঠেছিল, সেটি হলো এমটিভি। ১৯৯৯ সালে আরও অনেক গানের সঙ্গে যে গানটি দর্শক-শ্রোতাকে মোহিত করল, সেটি হলো ‘প্যায়ার কে পল’।

এই গান দিয়েই এক শিল্পীর ভক্তদের হৃদয়ে সফর শুরু হয়। তিনি কেকে। ১৯৯৯ সালে যখন ‘পল’ শিরোনামে তার অ্যালবাম প্রকাশ পায়, তখন কেকে নামেই হাজির হন কৃষ্ণকুমার। গানটি নাকি তখন ভারতের বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের মধ্যে সমাপনী গান হিসেবে ব্যবহার হতো।

ইসমাইল দরবারের সুরে সিনেমার গানে কণ্ঠ দেন কেকে। সিনেমার নাম ‘হাম দিল দে চুকে সানাম’। সালমান খান, ঐশ্বরিয়া জুটির সিনেমাটি এ দেশেও বেশ পরিচিত। এই ছবির ‘তাড়াপ তাড়াপ’ গানটিও কেকের। ধীরে ধীরে প্লেব্যাক সংগীতের অন্য নাম হয়ে ওঠেন কেকে।

এর দুই বছর পর কেকে কাজ করেন এ আর রহমানের সুরে। ‘রেহনা হে তেরে দিলমে’ সিনেমার তুমুল জনপ্রিয় গানটি কেকের গাওয়া। ‘সাচ ক্যাহরাহে দিবানা দিল, দিল না কিসিসে লাগানা’ গানটির মাধ্যমে কেকে এ দেশের নগর থেকে পৌঁছে যান মফস্বলে।

‘ডোলারে ডোলা’ গানটির কথা মনে থাকবে হয়তো অনেকের। ‘দেবদাস’ সিনেমার গানটিতে মাধুরী ও ঐশ্বরিয়ার নাচের পাশাপাশি কবিতা কৃষ্ণমূর্তি ও শ্রেয়া ঘোষালের কণ্ঠ সবার হৃদয় কেড়েছে। গানটির শেষের দিকে একটা পুরুষ কণ্ঠ রয়েছে। সেটি কেকের।

২০০২ সালের পর থেকে কেকে যেন পৌঁছে যান আপামর হৃদয়ে। যা গেয়েছেন কেকে, তা ভারত তো বটেই, দেশের সীমানা পেরিয়েও শ্রোতাদের কাছে পৌঁছে গেছে।

দিল্লিতে জন্ম ও বেড়ে ওঠা কেকের পড়ালেখা দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে। সংগীতকে পেশা হিসেবে নিতে গিয়ে প্রথম দিকে তার ভরসা হয়ে ওঠে জিঙ্গেল বা বিজ্ঞাপনের গানে কণ্ঠ দেয়া।

সাড়ে ৩ হাজার জিঙ্গেলে কণ্ঠ দিয়েছেন তিনি। ১৯৯৯ সালে ভারতীয় ক্রিকেট দল বিশ্বকাপ খেলতে গেলে ‘জোস অব ইন্ডিয়া’ শিরোনামের গান তৈরি হয়েছিল। সেটিতে কণ্ঠ দেন কেকে।

কেকে বিয়ে করেন ১৯৯১ সালে। তার স্ত্রী জয়থি। তাদের নাকুল নামের এক ছেলে এবং তামারা নামের এক মেয়ে আছে।

কেকের গান ও শ্রীজাতর স্মৃতি

কেকের গান কতটা পাগল করেছিল ভক্তদের মৃত্যুর পরে তারই স্মৃতিচারণ করলেন গীতিকার ও কবি শ্রীজাত। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে লিখলেন কেন কেকের গান এড়িয়ে যেতন তিনি। গত ১৬ বছর ধরে তার গান অসহ্য লাগত। শ্রীজাত জানান, আসলে এই শিল্পীর গান তো অসহ্য লাগত না। অসহ্য লাগত ভাই হারানেরার স্মৃতিচারণ। কেকের গান শুনলেই অকাল প্রয়াত ভাইকে মনে পড়ত। কারণ শ্রীজাতর ছোট ভাই পুশকিনের যে প্রিয় শিল্পী ছিল কেকে।

শ্রীজাত বলেন, ‘ব্যক্তিগত ক্ষয়ের কথা, আন্তরিক ক্ষরণের কথা সমক্ষে তুলে ধরিনি কখনওই, জীবনের প্রতি সংকোচ আর স্মৃতির প্রতি সম্ভ্রম থেকেই। কিন্তু কিছু আকস্মিকতায় সেসব বাঁধ, সেসব আড়ালও হয়তো টুটে যায় সাময়িকভাবে। ছোট ভাই, যার আদরের নাম পুশকিন, তার প্রিয় গায়ক ছিলেন কেকে। আর তার হাত ধরে আমারও। গিটারে তার হাত চলাফেরা করত চমৎকার, আর সুরে গলাও খেলত দিব্যি। তার পড়াশোনা আর পরীক্ষার চাপের ফাঁকে ফাঁকে আমি তাকে জোর করে বসাতাম, ‘গান শোনা দেখি দু’খানা’। এমন বললে সে দু’খানা গানই গেয়ে উঠত কেবল। ‘ইয়ারোঁ, দোস্তি বড়ি হি হসীন হ্যায়’, আর ‘হম রহেঁ ইয়া না রহেঁ কল, কল ইয়াদ আয়েঙ্গে ইয়ে পল।’

কবি জানান, এক বাইক দুর্ঘটনায় আচমকাই প্রয়াত হন তার ভাই পুশকিন। সে ছিল কেকের অন্ধভক্ত। তারপর থেকেই কেকে-কে ‘শত্রু’ বানিয়েছিলেন শ্রীজাত। কেকে-র গান শুনলে যে পুশকিনের কথাই মনে পড়ে বেশি!

সীমান্তের গ্যাংদের নিয়ে সিনেমা ‘বর্ডার’

সীমান্তের গ্যাংদের নিয়ে সিনেমা ‘বর্ডার’
গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় প্রকাশ করা হয় সিনেমার ফার্স্ট লুক পোস্টার। ছবি: সংগৃহীত
বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত
  • সীমান্তবর্তী এলাকার অপরাধ চক্রের মধ্যেকার সংঘাত মূলত গল্পের উপজীব্য।

  • সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন সৈকত নাসির, কাহিনী আসাদ জামানের।

সীমান্ত এলাকা ঘিরে গড়ে উঠেছে অপরাধ চক্র। পাচার হয় মানুষ, গরুসহ মাদকদ্রব্য। দেশের সীমান্তবর্তী এলাকার এমন নানা অপরাধমূলক ঘটনা প্রায়ই গণমাধ্যমে আসে। এবার তেমন গল্পকে কেন্দ্র করে নির্মিত হয়েছে সিনেমা।

পরিবেশক প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়া জানিয়েছে সিনেমাটির নাম ‘বর্ডার’। সীমান্তবর্তী এলাকার অপরাধ চক্রের মধ্যেকার সংঘাত মূলত গল্পের উপজীব্য। মুক্তি পাবে আগামী ৯ সেপ্টেম্বর। এর আগে প্রচারের অংশ হিসেবে প্রকাশ পেল সিনেমাটির ফার্স্ট লুক পোস্টার।

জাজ মাল্টিমিডিয়ার ফেসবুক পেজে গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় প্রকাশ করা হয় পোস্টারটি। সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন সৈকত নাসির, কাহিনী আসাদ জামানের।

সিনেমাটিতে অভিনয় করেছেন আশীষ খন্দকার, সুমন ফারুক, সাঞ্জু জন, অধরা খান, রাশেদ মামুন অপু, মৌমিতা মৌ, শাহিন মৃধা প্রমুখ। প্রযোজনা করেছে ম্যাক্সিমাম এন্টারটেইনমেন্ট নামে একটি প্রতিষ্ঠান।


ভারতীয় নৌ-সেনাদের আড্ডায় রুটি বানালেন সালমান

ভারতীয় নৌ-সেনাদের আড্ডায় রুটি বানালেন সালমান
রান্না ঘরে রুটি বানাচ্ছেন বলিউড সুপারস্টার সালমান খান। ছবি: সংগৃহীত
দৈনিক বাংলা ডেস্ক
প্রকাশিত

সিনেমা কিংবা বাস্তবে, সবখানেই চমক দিতে ভালোবাসেন বলিউড সুপারস্টার সালমান খান। আর সালমানের নতুন চমকের অপেক্ষায় থাকেন ভক্ত-অনুরাগীরাও। এবার সাল্লু খ্যাত এ অভিনেতার ভিন্ন রকম এক চরিত্র সাড়া ফেলেছে নেটিজেনদের মাঝে।

সম্প্রতি ভারতের স্বাধীনতার ৭৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে দেশটির নৌ-সেনা কর্মকর্তাদের সঙ্গে আড্ডায় যুক্ত হন বলিউডের ভাইজান। সাদা শার্ট, কালো প্যান্ট ও মাথায় কালো টুপি পরে নেভি অফিসারদের সঙ্গে পুরো একদিন চুটিয়ে আড্ডা দেন। 

সোশাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে ওই আড্ডার ছবি। তাতে দেখা যায়, রান্না ঘরে ঢুকে রুটি বানাচ্ছেন সাল্লু। অন্য এক ছবিতে গানের তালে নৌ-সেনাদের সঙ্গে নাচতেও দেখা যায় তাকে।

এদিকে হত্যার হুমকি পাওয়ার পর থেকেই বেশ মানসিক চাপে আছেন সালমান। নিজের ও পরিবারের সুরক্ষায় কোনো আপষ করতে চাইছেন না তিনি। এরই মধ্যে ভারতের আদালত থেকে নিজের সঙ্গে বন্দুক রাখার অনুমতিও পেয়েছেন। 

সম্প্রতি সালমানের মুম্বাইয়ের গ্যালাক্সি অ্যাপার্টমেন্ট চত্বরে একটি বুলেটপ্রুফ গাড়ি ঘুরতে দেখা গেছে। বলা হচ্ছে, নিজের সুরক্ষার জন্যই বুলেটপ্রুফ ল্যান্ড ক্রুজারটি কিনেছেন সালমান। আত্মরক্ষার স্বার্থেই এখন থেকে তিনি এই গাড়িতেই যাতায়াত করবেন।


ছেলের ছবি পোস্ট করে পরীমনি লিখলেন, ‘আলোর বাহক হও’

ছেলের ছবি পোস্ট করে পরীমনি লিখলেন, ‘আলোর বাহক হও’
ছেলের এ ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেন চিত্রনায়িকা পরীমনি। ছবি: সংগৃহীত
বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত

চিত্রনায়িকা পরীমনির কোল আলো করে এসেছে নতুন অতিথি। রাজধানীর একটি হাসপাতালে বুধবার বিকেলে অস্ত্রোপচারে ভূমিষ্ঠ হয় পরীমনির ছেলেসন্তান।

নবজাতককে বুকে জড়িয়ে বৃহস্পতিবার সকালে ফেসবুকে একটি ছবি পোস্ট করেছেন পরী; জানিয়ে দিয়েছেন ছেলের পুরো নামও।

সেই ছবির ক্যাপশনে পরীমনি লেখেন, ‘শাহীম মুহাম্মদ রাজ্য। তুমি পৃথিবীর জন্যে আলোর বাহক হও। অভিনন্দন তোমাকে।’

সন্তান ছেলে হলে নাম রাজ্য রাখবেন বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন পরীমনি। কথা অনুযায়ী করলেনও তা-ই।

রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে বুধবার ৫টা ৩৬ মিনিটে পৃথিবীতে আসে পরী-রাজের সন্তান।

২০২১ সালের ১৭ অক্টোবর বিয়ে করেন শরিফুল রাজ ও পরীমনি। দীর্ঘদিন গোপনেই ছিল তাদের বিয়ের খবর। চলতি বছরের ১০ জানুয়ারি তাদের বিয়ের খবর প্রকাশ্যে আসে।


মায়ের জন্য ভারতে বাপ্পী

মায়ের জন্য ভারতে বাপ্পী
বাপ্পী
বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত

মায়ের চিকিৎসার কারণে বেশ কিছুদিন ধরেই ভারতের হায়দারাবাদে অবস্থান করছেন চিত্রনায়ক বাপ্পী চৌধুরী। যে কারণে এবার ঈদে মুক্তি পাওয়া সিনেমাগুলো এখনও দেখা হয়ে ওঠেনি এই চিত্রনায়কের।

তাই তো দেশের বাইরে থেকে দেশকে ও বাংলা সিনেমাকে মিস করছেন এই চিত্রনায়ক। এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে সেই অনুভূতিই ব্যক্ত করেছেন তিনি।

এবার ঈদে মুক্তি পাওয়া পরাণ, দিন- দ্য ডে ও সাইকো সিনেমার তিনটি পোস্টার শেয়ার করে বাপ্পী লেখেন, ‘বাংলাদেশকে মিস করছি। মিস করছি বাংলা সিনেমাকে। ভাবছেন নীরব কেন আপনাদের বাপ্পী? প্রিয় ভক্তবৃন্দ- এ মুহূর্তে আমার পুরোপুরি মনোযোগ মায়ের সুস্থতা নিয়ে। ঈদের আগেই ভারতের হায়দারাবাদে এসেছি।’

‘যদিও শত ব্যস্ততার মাঝে ঈদের সিনেমার খবর রাখতে ভুল করিনি। জেনেছি দর্শক আমাদের সিনেমাগুলো দারুণভাবে গ্রহণ করেছে। আপনাদের আশীর্বাদে সব ঠিক থাকলে আগামী ২৫ জুলাই ঢাকার পথে মাকে নিয়ে রওনা হবো। এসেই কথা দিচ্ছি সিনেমাগুলো দেখা শেষ করব। জয় হোক বাংলা সিনেমার।’

এদিকে বাপ্পীর হাতে রয়েছে জয় বাংলা, কুস্তিগির, শত্রুসহ একাধিক সিনেমা। এর মধ্যে জয় বাংলা ও কুস্তিগিরের শুটিংও শেষ করেছেন এই চিত্রনায়ক।

বিষয়:

অমিতাভের নাতনির যাত্রা শুরু

অমিতাভের নাতনির যাত্রা শুরু
নাতনি নভ্যা নভেলি নন্দা
বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত

বহুজাতিক প্রসাধন সংস্থার বিজ্ঞাপনের মডেল হয়েছেন তিনি। অমিতাভ বচ্চনের নাতনি নভ্যা নভেলি নন্দা এরই মধ্যে তার কাজের ভিডিওর প্রথম ঝলক শেয়ার করেছেন বন্ধুবান্ধব ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের সঙ্গে। প্রথম কাজ দিয়ে দর্শকদের হৃদয়ে কতটা সাড়া ফেলতে পারেন তিনি তা নিয়েই এখন জল্পনা।

অমিতাভ-কন্যা শ্বেতা নন্দার মেয়ে নভ্যাকে ওই ভিডিওতে দেখা গেছে, কাজের পোশাকে, সামনে ল্যাপটপ রেখে কাজ করতে। একই সঙ্গে তিনি কথা বলেছেন ‘সেল্ফ ওয়ার্থ’ প্রসঙ্গে। তবে এ বিজ্ঞাপন কবে প্রকাশ হবে সে খবর এখনও জানা যায়নি।

এদিকে নভ্যার আত্মপ্রকাশে অভিনন্দন জানিয়ে বচ্চন-কন্যা শ্বেতা আদরের মেয়েকে বলেছেন, ‘এর থেকে অনেক বেশি প্রাপ্য তোমার।’ প্রিয় বন্ধু শাহরুখ-কন্যা সুহানা তার প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন বিস্ময়চিহ্ন দিয়ে। আরেক বন্ধু অনন্যা পান্ডেও ভালোবাসা জানিয়েছেন বন্ধুর উদ্দেশে।

পরিবারের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ও ভালোবাসায় ভরে গিয়েছে নভ্যার বিনোদনের জগতে প্রথম পথচলা। যদিও দাদু অমিতাভ বচ্চন তার প্রিয় নাতনির পর্দায় প্রথম আত্মপ্রকাশ নিয়ে এখনও কোনো মন্তব্য করেননি।

বিষয়: