রোববার, ১৯ মে ২০২৪

বাজেট সাংস্কৃতিক জাগরণের অনুকূল নয়: উদীচী

আপডেটেড
৩ জুন, ২০২৩ ০০:০০
প্রতিবেদক, দৈনিক বাংলা
প্রকাশিত
প্রতিবেদক, দৈনিক বাংলা
প্রকাশিত : ২ জুন, ২০২৩ ২৩:৫৯

২০২৩-২৪ অর্থবছরের জন্য প্রস্তাবিত বাজেট সাংস্কৃতিক জাগরণের অনুকূল নয় বলে মনে করে বাংলাদেশ উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী। শুক্রবার এক বিবৃতিতে উদীচীর সভাপতি অধ্যাপক বদিউর রহমান এবং সাধারণ সম্পাদক অমিত রঞ্জন দে জানান, গত কয়েক বছরের ধারাবাহিকতায় এবারের বাজেটও আরও একবার দেশের সংস্কৃতিকর্মীদের হতাশ করেছে।

বিবৃতিতে তারা বলেন, ‘একটা সমাজ টিকে থাকে সংস্কৃতির ক্রমবর্ধমান বিকাশ ও উৎকর্ষ সাধনের মাধ্যমে। দীর্ঘদিন ধরে দেশে সাম্প্রদায়িক অপশক্তির উত্থান লক্ষ করা যাচ্ছে, নানাভাবে তারা এ দেশে মৌলবাদী, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা পরিপন্থী কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে যাচ্ছে। এসব অপতৎপরতা রোধ এবং সামাজিক সংকট মোকাবিলায় খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে সংস্কৃতি চর্চা। দেশকে অসাম্প্রদায়িক, মৌলবাদমুক্ত, মানবচেতনাসম্পন্ন ধারায় পরিচালনা করা এবং প্রজন্মের মানবিক গুণাবলির উৎকর্ষ সাধনেও সংস্কৃতির অপরিহার্যতা অনস্বীকার্য। কিন্তু সংস্কৃতি চর্চার ক্ষেত্রটি বরাবরই উপেক্ষিত থাকছে। এবারও তার ব্যতিক্রম ঘটেনি।

সাংস্কৃতিক জাগরণ ঘটাতে গেলে যে ধরনের পৃষ্ঠপোষকতা দরকার, তার কোনো লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। প্রতি বছরই বাজেটে সংস্কৃতি খাত অবহেলিত থেকে যাচ্ছে। এবারের প্রস্তাবিত বাজেটে সংস্কৃতি খাতে যে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে, তা শিল্পকলা একাডেমিতে নিয়োজিত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন ভাতা পরিশোধ আর শিল্পকলা একাডেমিকেন্দ্রীক শহুরে মানুষের চিত্তবিনোদনের কাজেই শেষ হয়ে যাবে। কিন্তু দেশের যে বিশাল জনগোষ্ঠী গ্রামে বসবাস করে, তাদের সংস্কৃতির বিকাশে কর্মরত যেসব ব্যক্তি-উদ্যোগ বা প্রাতিষ্ঠানিক উদ্যোগ রয়েছে, সেখানে এই বাজেট বরাদ্দের কণামাত্রও পৌঁছাবে না।


ঢাকায় আসছেন বিদ্যা বালান

আপডেটেড ১৯ মে, ২০২৪ ০০:০৪
বিনোদন প্রতিবেদক

বলিউডের সিনিয়র ও মেধাবী অভিনেত্রীদের মধ্য অন্যতম বিদ্যা বালান। কথিত গ্ল্যামার নয়, অভিনয়গুণেই নিজেকে টিকিয়ে রেখেছেন তিনি। ভিন্নধর্মী চরিত্রে অভিনয় করে বিশেষ জায়গা তৈরি করেছেন এই অভিনেত্রী। বলিউডের প্রথম সারির তারকা তিনি। তার কাজ মানেই ভিন্নধর্মী এক আমেজ তৈরি করে। তাই বেছে বেছে, সময় নিয়ে কাজ করেন এ অভিনেত্রী। এ জন্য সাম্প্রতিক সময়ে তার সিনেমার সংখ্যাও কম। ‘ডার্টি পিকচার’খ্যাত এই তারকা গত বছর মাত্র একটি সিনেমায় কাজ করেছেন। লম্বা বিরতির পর গত বছর নিয়ত নামের একটি ছবিতে কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন। ছবিতে তিনি কাজ করেন গোয়েন্দা চরিত্রে।

ভারতের এই জনপ্রিয় অভিনয়শিল্পী এবার বাংলাদেশের দর্শকদের মাতাতে আসছেন। আগামী ২৯ জানুয়ারি রাজধানীর আবাহনী মাঠে নতুন চ্যানেল ‘হ্যাপিনেস’-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তাকে পারফর্ম করতে দেখা যাবে। চ্যানেলটির চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম মিন্টু বলেন, ‌‘অত্যন্ত জমকালোভাবে আমরা উদ্বোধনটি করতে চাই। তাই এমন আয়োজন।’ তিনি জানান, শুধু বিদ্যা নন অনুষ্ঠানে কলকাতার গায়ক নচিকেতা ও অভিনেত্রী শুভশ্রী গাঙ্গুলিসহ অনেকে উপস্থিত থাকবেন।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এক খুদে ভিডিও বার্তার মাধ্যমে বিদ্যা বালান নিজেই ঢাকায় আসার খবর জানিয়েছেন বাংলাদেশের ভক্তদের। ভিডিও বার্তায় বিদ্যা বালান বলেন, ‘হ্যালো বাংলাদেশ, আমি বিদ্যা বালান। তোমাদের সঙ্গে দেখা হবে শিগগিরই।’

আরেকটি ভিডিও বার্তায় দেখা গেছে, বিদ্যা বালানকে ফোন করে জিজ্ঞেস করা হচ্ছে ‘হ্যালো বিদ্যা, আমি বাংলাদেশ থেকে নীলা। জবাবে বিদ্যা বলছেন, ‘ওয়াও বাংলাদেশ’। বিদ্যা বালানের এই ভিডিওগুলো শেয়ার করেছেন বাংলাদেশের বহুজাতিক কোম্পানির ফেসবুক পেজ থেকে। তাদের শেয়ার করা আরও এক ভিডিওতে দেখা যায়, বেইলি রোডে কি করছেন বিদ্যা বালান?

বিদ্যা বালান চলতি বছরে আবার ভূত হয়ে বড় পর্দায় ফিরছেন। ২০০৭ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘ভুলভুলাইয়া’ ছবির প্রসঙ্গ উঠলেই বিদ্যা বালানের সেই ভয়ঙ্কর রূপের কথা মনে পড়বেই। তার অসাধারণ অভিনয় ছিল ‘ভুলভুলাইয়া’ ছবিটির তুমুল জনপ্রিয়তার কারণ। ‘ভুলভুলাইয়া টু’ ছবিতেও এসেছিল মঞ্জুলিকার গল্প। সেখানে অভিনয় করেছিলেন টাবু। তবে মঞ্জুলিকার চরিত্রে দর্শকের প্রথম পছন্দ বিদ্যাই। তাই ‘ভুলভুলাইয়া থ্রি’-তে বিদ্যাকেই ফিরিয়ে আনছেন পরিচালক অনীশ বাজমি।


আসছে জাহ্নবীর ‘মিস্টার অ্যান্ড মিসেস মাহি’

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
বিনোদন ডেস্ক

আগামী ৩১ মে মুক্তি পাচ্ছে রাজকুমার রাও ও জাহ্নবী কাপুর অভিনীত ‘মিস্টার অ্যান্ড মিসেস মাহি’ ছবিটি। এরই মধ্যে শরণ শর্মা পরিচালিত এই ছবির রোমান্টিক গান ‘দেখা তেনু’ মুক্তি পেয়েছে। গান মুক্তির অনুষ্ঠানে জাহ্নবী খোলাসা করেছেন, ছবিতে ‘মিসেস মাহি’ হয়ে ওঠার প্রক্রিয়া তার জন্য কতটা চ্যালেঞ্জিং ছিল।

ছবির আদ্যোপান্ত জুড়ে আছে ক্রিকেট। ছবির ট্রেলারে দেখা গেছে, এটা ক্রিকেট-পাগল এক দম্পতির গল্প। ছবিতে রাজকুমার ও জাহ্নবীকে ব্যাট-বল হাতে ক্রিকেট খেলতে দেখা যাবে। ‘মিস্টার অ্যান্ড মিসেস মাহি’ ছবির গান মুক্তির অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজকুমার রাও, জাহ্নবী কাপুর, শরণ শর্মা।

জাহ্নবী বলেন, ‘এই ছবির জন্য আমি প্রচুর পরিশ্রম করেছি। ‘মিলি’ ছবির প্রচারণার সময় এই ছবির জন্য ক্রিকেটের প্রশিক্ষণ নেওয়া শুরু করে দিয়েছিলাম। প্রায় দুই বছর প্রশিক্ষণ নিয়েছি। শরণ (পরিচালক) এই ছবিতে কোনো ভিএফএক্স ব্যবহার করেনি। ও চেয়েছিল ক্রিকেটের দৃশ্যগুলোকে বাস্তব দেখাতে। শরণ চেয়েছিল, পর্দায় যেন আমাকে প্রকৃত ক্রিকেটারের মতো দেখতে লাগে।’

তিনি আরও বলেন, ‘ট্রেনিংয়ের সময় আমি অনেক চোট পেয়েছি। আমার দুই কাঁধের হাড় সরে গিয়েছিল।’

অভিনেত্রী বলেন, ‘অনেকবার এমন হয়েছে যখন আমার শরীর হার মেনে নিয়েছে। মনে হয়েছে, আমাকে দিয়ে আর সম্ভব নয়। কিন্তু পরিচালকের চোখেমুখে আত্মবিশ্বাস ও আবেগ দেখে সাহস পেয়েছি। অনেক সময় পরিচালকের ওপর বিরক্তি প্রকাশ করেছি। আমাদের মধ্যে ঝগড়াও হয়েছে। কিন্তু আজ আমরা একটা পুরো দল হিসেবে একসঙ্গে আছি। আমার বিশ্বাস যে দর্শক ছবিটি পছন্দ করবেন।’

অনুষ্ঠানে পরিচালক শরণ শর্মা জানান, ছবিটি নির্মাণের পেছনে অন্যতম বড় কারণ ক্রিকেটার মহেন্দ্র সিং ধোনি। জাহ্নবী ছবিটি ধোনিকে দেখাতে চান। ধোনি প্রসঙ্গে অভিনেত্রী উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে বলেন, ‘ধোনি শুধু বড় ক্রিকেটার নন, মানুষ হিসেবেও দুর্দান্ত। সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে তাঁর সঙ্গে আমার দেখা হয়েছিল।

তখন দেখেছিলাম ধোনির সঙ্গে যারা যারা সেলফি নিচ্ছিলেন, তিনি তাদের সঙ্গে ছবি তোলার পাশাপাশি কথাও বলছিলেন।’

বিষয়:

দুই দিনে দুই মিলিয়ন ভিউ

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
বিনোদন ডেস্ক

নাটকটি রিলিজ হয়েছে মাত্র দুই দিন। এরই মধ্যে ভিউ হয়েছে দুই মিলিয়ন। বলা যায় ২০ লাখ বারের বেশি নাটকটি দেখেছেন দর্শক। নাটকটির নাম ‘মাধবীলতা’।

এটি নির্মাণ করেছেন রোমান্টিক নাটকের জন্য সব সময় জনপ্রিয় নির্মাতা প্রবীর রায় চৌধুরী। এমনিতেই তিনি নির্মাণ করেন খুব কম। ঈদে রিলিজ না হলেও এটি রিলিজ হয়েছে গত ১৪ মে। দেরিতে এলেও মুক্তির পর দর্শকরা যেন ভালো লাগা খুঁজে পেয়েছেন নাটকটিতে। ভিউ এবং প্রশংসায় সমানতালে এগিয়ে যাচ্ছে এটি। ‘মাধবীলতা’ নাটকে অভিনয় করেছেন ফারহান আহমেদ জোভান, কেয়া পায়েল প্রমুখ। নাটকটি দেখা যাচ্ছে সিএমভির ইউটিউব চ্যানেলে। দর্শকদের কাছ থেকে দারুণ সাড়া পাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন নির্মাতা প্রবীর রায় চৌধুরী।

বিষয়:

ফাটল ধরেছে জেনিফার সম্পর্কে!

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
বিনোদন ডেস্ক

হলিউডের জনপ্রিয় তারকা জেনিফার লোপেজ ও বেন অ্যাফ্লেকের মধ্যে আবারও বিচ্ছেদের কথা শোনা যাচ্ছে। ২০২২ সালের ১৬ জুলাই তাদের বিয়ে হয়েছিল। তাদের বিয়েতে ভক্তরাও দারুণ খুশি ছিল। কিন্তু সেই সুখ টেকসই হলো না। এরই মধ্যে ফাটল ধরেছে বেন-জেনিফারের সম্পর্কে। সম্প্রতি তাদের এই বিচ্ছেদের খবরে ভক্তরা আহত হয়েছেন।

বিশ্বের বিভিন্ন মিডিয়ার খবরের মাধ্যমে জানা গেছে, অ্যাফ্লেক ও লোপেজ যৌথভাবে যে বাড়ি কিনেছিলেন, ইতোপূর্বে সেটা ছেড়ে দিয়েছেন অভিনেতা। গুঞ্জনের আগুনে ঘি ঢেলেছেন গায়িকা-অভিনেত্রী লোপেজ। ইনস্টাগ্রামে একটি পোস্টে লাইক দিয়ে বিচ্ছেদের আশঙ্কা উসকে দিয়েছেন তিনি।

একটি পেজ থেকে দেওয়া ওই পোস্টে লেখা হয়েছে, ‘যার মধ্যে সততা ও মানসিক নিরাপত্তা নেই; তার সঙ্গে আপনি কখনও একটি সুস্থ সম্পর্ক গড়ে তুলতে পারবেন না।’

এমন পোস্টে জেনিফার লোপেজের রিঅ্যাকশন দেখে নেটিজেনদের মনে তাদের বিচ্ছেদের খবর পোক্ত হয়েছে। সম্প্রতি লস অ্যাঞ্জেলেসের এক স্টুডিওতে। যেখানে নৃত্য অনুশীলনের জন্য এসেছিলেন জেনিফার লোপেজ। সে সময় তার হাতে বিয়ের আংটি দেখা গেছে। তাই বিচ্ছেদের বিষয়টিকে এখনও গুঞ্জন হিসেবে বিবেচনা করছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো।

এই প্রথম নয়, এর আগেও ছাড়াছাড়ি হয়েছিল জেনিফার লোপেজ ও বেন অ্যাফ্লেকের মধ্যে। ২০০৩ সালে ক্রিস জুডের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর অ্যাফ্লেকের প্রেমে পড়েন লোপেজ। কয়েক মাস প্রেমের পর তারা বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন। তবে ২০০৪ সালে বিয়ের আগ মুহূর্তে সম্পর্ক ছিন্ন করেন তারা।

এরপর দীর্ঘ ১৮ বছরে তারা দুজনই ভিন্ন সম্পর্কে যুক্ত হন; বিয়ে করে সন্তানের জনকও হন। কিন্তু জীবন চক্রে লোপেজ-অ্যাফ্লেকের সম্পর্ক পুনরায় জোড়া লাগে। এবং তারা বিয়েও করেন।

বিষয়:

অমিতাভ-শাহরুখদের বিরুদ্ধে মামলার আবেদন খারিজ

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
বিনোদন ডেস্ক

এযাবৎকাল গুটখা কিংবা পানমশলার বিজ্ঞাপনে শাহরুখ খান, অজয় দেবগন, অক্ষয় কুমার, অমিতাভ বচ্চন থেকে সুনীল গাভাস্কার- অনেকের মুখই দেখা গেছে। সেই তালিকায় সম্প্রতি নাম লিখিয়েছে টাইগার শ্রফও।

গুটখা বা তামাকজাত দ্রব্যের হয়ে প্রচার করেন, তাই একাধিক তারকার নামে মামলা করতে চেয়েছিলেন অনেক ভারতীয় নাগরিক। শাহরুখ খান, অমিতাভ বচ্চন, অক্ষয় কুমার, সুনীল গাভাস্কারসহ একাধিক ব্যক্তিত্বের নামে ক্রিমিনাল কেস যাতে ফাইল করা যায়, তার আর্জি জানিয়ে বম্বে হাইকোর্টে একটি পিটিশন ফাইল করা হয়েছিল। তবে বম্বে হাইকোর্টের পক্ষ থেকে সেই আবেদন পত্রপাঠ খারিজ করে দেওয়া হয়েছে।

বিচারপতি দেবেন্দ্র কুমার উপাধ্যায় এবং বিচারপতি আরিফ এস ডক্টরের বেঞ্চের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, যিনি পিটিশন করেছেন তিনি ভালোমতো পড়াশোনা বা রিসার্চ না করেই কোর্টের কাছে এসেছেন।

এমনকি তার পিটিশনও নাকি সঠিকভাবে ফাইল করা হয়নি। চাইলেই যে সুপারস্টারদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা যাবে না, সেটা স্পষ্ট বুঝিয়ে দিলেন উচ্চ আদালত। পাশাপাশি মুম্বাই হাইকোর্টের পক্ষ থেকে পিটিশন দাখিলকারী স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা যশ ফাউন্ডেশনকে ভবিষ্যতে এসব পিটিশন দাখিল করার আগে সচেতন হওয়ার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে।

আদালতের পক্ষ থেকে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে, সাধারণ দুস্থ মানুষদের হয়ে বা সমাজের উন্নতির জন্য কোনো মামলা দায়ের করতে চাইলে অবশ্যই আদালত সেটা শুনবে। কিন্তু এসব ভুলভাল পিটিশনে আর আমল দেবে না কোর্ট। বরং এমন আবেদন এলে সেগুলোকে ফিরিয়ে দেওয়া হবে।

তামাকজাত দ্রব্যের বিজ্ঞাপনী ভিডিওতে এসব তারকামুখ দেখে অনুরাগীদের অনেকেই অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। এমনকি এর আগে এলাহাবাদ কোর্টে দায়ের হওয়া জনস্বার্থ মামলার জন্য আইনি বিপাকে পড়তে হয়েছিল অক্ষয়, অজয়, শাহরুখদেরও। তবে বম্বে হাইকোর্ট এবার অমিতাভ বচ্চন, শাহরুখ খান, অক্ষয়-গাভাস্কারদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলার আবেদন খারিজ করে দিল।

বিষয়:

বাতিল হতে পারে নিপুণের সদস্যপদ!

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
বিনোদন প্রতিবেদক

আবারও চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি নিয়ে মিডিয়া সরব হয়ে উঠেছে। কিছুদিন আগে নতুন মেয়াদে নির্বাচনে সভাপতি পদে মিশা সওদাগর এবং সাধারণ সম্পাদক পদে মনোয়ার হোসেন ডিপজল জয়লাভ করেন। নিয়ম অনুযায়ী শপথগ্রহণ শেষে নির্বাচিত কমিটি দায়িত্বও গ্রহণ করেছে সমিতির। কিন্তু এরই মধ্যে সাধারণ সম্পাদকের পদে হেরে যাওয়া নিপুণ আক্তার ২০২৪-২০২৬ মেয়াদের নির্বাচনের ফল বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে রিট করেছেন। বিষয়টি নিয়ে ছবিপাড়ায় বেশ আলোচনা-সমালোচনা হচ্ছে।

অনেকেই বলাবলি করছেন, গত মেয়াদেও নিপুণ এই শিল্পী সমিতি নিয়ে কোর্টের মাধ্যমে জায়েদ খানের সঙ্গে বেশ চড়াই-উৎরাই শেষে দায়িত্ব পেয়েছিলেন। এবারও এমন করায় শিল্পী সমিতির সুনাম ক্ষুণ্ন হচ্ছে বলেও অনেকেই অভিযোগ করেন।

এদিকে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক থাকাকালীন সাবেক সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানের সদস্যপদ বাতিল করেছিলেন নিপুণ আক্তার। গণমাধ্যমে শিল্পী সমিতি ও সাধারণ সম্পাদককে নিয়ে বাজে মন্তব্য করায় এমন সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা জানিয়েছিলেন নিপুণ। এবার একই কারণে নিপুণও সদস্যপদ হারাতে পারেন বলে জানা গেছে।

নিপুণের সদস্যপদ কেন বাতিল হবে না, জানতে চেয়ে চিঠি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বর্তমান কমিটি। গত বৃহস্পতিবার সমিতির কার্যকরী সভা শেষে এমনটা জানিয়েছেন সহসভাপতি ডি এ তায়েব।

তাই এ বিষয়ে সমিতির পদক্ষেপ কী হতে পারে, তা নিয়ে বৈঠক করেন সদস্যরা।

বৈঠক শেষে ডি এ তায়েব বলেন, ‘রিট করা নিয়ে আমরা এখনো ভাবছি না। আমাদের কাছে নোটিশ এলে আইনিভাবে তা মোকাবিলা করা হবে।’

এর এক দিন আগে সাধারণ সম্পাদক মনোয়ার হোসেন ডিপজলকে ‘অশিক্ষিত’সহ নানা কুরুচিপূর্ণ ভাষায় নিপুণ গালাগালি করেন বলেন জানান ডি এ তায়েব।

বিষয়টি তুলে তিনি বলেন, নিপুণ আক্তার গণমাধ্যমে সমিতির সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে যা বলেছেন, তা কুরুচিপূর্ণ ও মানহানিকর। তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কমিটির সবাই। তার সদস্যপদ কেন বাতিল হবে না, জানতে চেয়ে চিঠি দেওয়া হবে। ৭ দিনের মধ্যে যদি তিনি উত্তর না দেন অথবা উত্তর যথোপযুক্ত মনে না হয়, তাহলে তার সদস্যপদ বাতিল করা হবে।’

বৃহস্পতিবার সমিতির সভার আগে মিশা-ডিপজল প্যানেলকে সংবর্ধনা দিয়েছেন ইলিয়াস কাঞ্চন ও নিপুণের সময় সদস্যপদ ফিরে পাওয়া ১০৩ শিল্পী। এ সময় নির্বাচন বাতিল চেয়ে রিট করা নিপুণকে নিয়ে কথা বলেন শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ডিপজল।

তিনি বলেন, ‘আজকে যাকে (নিপুণ) নিয়ে কথা হচ্ছে, সে তো তার বাপকেই অস্বীকার করছে। রক্তে সমস্যা না থাকলে এটা হওয়ার কথা না। যাকে (ডিপজল) দিয়ে সবাই তার মুখ চিনল, তাকেই সে ভুলে যায়। সে কি আমাদের সঙ্গে টেস্ট খেলতে চায়? এস খেল। কিন্তু আমরা চাই ভদ্রতা ও নম্রতা। চলচ্চিত্র কীভাবে এগিয়ে নেওয়া যায় সেদিকেই কাজ করব।’

প্রসঙ্গত, বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি কাজী জিনাত হকের হাইকোর্ট বেঞ্চে রিট আবেদনটি দায়ের করা হয়েছে। নিপুণের পক্ষে আইনজীবী অ্যাডভোকেট পলাশ চন্দ্র রায় এ রিট করেন। এই মুহূর্তে নিপুণ যুক্তরাষ্ট্রে আছেন। নিউইয়র্ক থেকে লস অ্যাঞ্জেলেসে ফ্লাই করার আগ মুহূর্তে তিনি গণমাধ্যমকে জানালেন, ‘হ্যাঁ এই রিট আমি করেছি। অর্থাৎ আমার পক্ষ থেকেই করা হয়েছে।

রিটে নির্বাচনে অনিয়ম ও কারচুপির অভিযোগ এনে এ ঘটনা তদন্তে কমিটি গঠনের নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে। পাশাপাশি নতুন করে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে।

বিষয়:

মৃণাল সেন রূপে চঞ্চল, প্রশংসায় মনামী

আপডেটেড ১৮ মে, ২০২৪ ০০:০৩
বিনোদন প্রতিবেদক

ক্যারিয়ারে ভিন্ন ভিন্ন সব চরিত্রে অভিনয় করে চঞ্চল চৌধুরী জাত অভিনেতা হিসেবে অনেক আগেই প্রমাণ দিয়েছেন। নাটক-সিনেমা এবং ওটিটিতে অভিনয় করে হয়েছেন তিনি প্রশংসনীয়। এপার বাংলা ছাড়াও কোলকাতাতে চঞ্চল চৌধুরীর ভক্ত হয়েছেন অনেক। দেশে নির্মিত দারুণ সব ওয়েবফিল্ম ও ওয়েবসিরিজ ইতোমধ্যে ওপার বাংলার দর্শকদের মাঝে দারুণ সাড়া ফেলেছেন।

এবার কালজয়ী চলচ্চিত্রকার মৃণাল সেনের জীবন ও কর্ম নিয়ে কলকাতাতে নির্মিত হয়েছে সিনেমা ‘পদাতিক’। এর মাধ্যমে ওপার বাংলার গুণী নির্মাতা সৃজিত মুখার্জির নির্মাণে প্রথমবারের মতো অভিনয় করেছেন ঢাকার চঞ্চল চৌধুরী। সৃজিত আবার চঞ্চলের সঙ্গে প্রথমবার জুটি বাঁধালেন কলকাতার অভিনেত্রী মনামী ঘোষের সঙ্গে। চরিত্রের প্রয়োজনে চঞ্চল ও মনামী দুজনকেই নানা প্রস্তুতি ও চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হয়েছে। তবু সব সামলে ঠিকঠাক সেরেছেন কাজ। এখন দুজনই ফুরফুরে মেজাজে মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছেন।

‘পদাতিক’-এ মৃণাল সেনের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন চঞ্চল। তার সঙ্গে প্রথমবার কাজ করে কলকাতার গণমাধ্যমে মনামী বললেন, ‘চঞ্চলদা হলেন খুব সহজ মনের মাটির মানুষ। আমি যতজন অভিনেতার সঙ্গে এতদিন কাজ করেছি, তাদের মধ্যে সবচেয়ে সহজ-সরল মানুষ হলেন চঞ্চলদা।’

ছবিতে মৃণাল সেনের স্ত্রী গীতা সেনের ভূমিকায় আছেন মনামী। মজার ব্যাপার হলো মনামীর মতে, তার সঙ্গে গীতা সেনের কোনো মিল নেই। বরং মৃণাল সেনের সঙ্গেই নাকি নিজের সামঞ্জস্য খুঁজে পান তিনি। তার ভাষ্য, ‘গীতা সেনের সঙ্গে আমি নিজের কোনো মিল পাইনি। আমি বরং মৃণাল সেনের সঙ্গে নিজের মিল খুঁজে পেয়েছি। কারণ আমি এখন যে জায়গায় আছি, সেখানে থাকতে গেলে পরিবারকে পাশে দরকার হয়। আমার পরিবারের মানুষ আমায় সাহায্য করে এই জায়গায় থাকতে। আমি সেই অর্থে সব সময়ে পরিবারের পাশে থাকতে পারি না। আমার শিরদাঁড়া আমার পরিবার। আমার পরিবার, মা-বাবা হলেন গীতা সেনের মতো।’

উল্লেখ্য, ‘পদাতিক’-এ আরও অভিনয় করেছেন জীতু কমল, কোরাক সামন্ত প্রমুখ। ফ্রেন্ডস কমিউনিকেশনস প্রযোজিত ছবিটি শিগগিরই মুক্তি পাবে।


জুটি বাঁধলেন জোভান-আইশা

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
বিনোদন ডেস্ক

প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান রঙ্গন এন্টারটেইনমেন্টে প্রকাশ হয়েছে নতুন নাটক ‘থেমে যেতে নেই’। ফারহান আহমেদ জোভান ও আইশা খানকে জুটি করে নাটকটি পরিচালনা করেছেন রাফাত মজুমদার রিংকু এবং প্রযোজনা করেছেন জামাল হোসেন। বৃহস্পতিবার নাটকটি প্রচারে আসে। নির্মাতা জানান, ‘মিষ্টি একটা প্রেম-ভালোবাসার গল্পের নাটক এটি। যেখানে একটি ছেলে ও মেয়ের প্রেমে বাধা হয়ে দাঁড়ায় পরিবার। মেয়েটির ঠিক যখন বিয়ের জন্য পরিবার থেকে চাপ সৃষ্টি হয় তখন প্রেমিক ছেলেটা কেমন পরিস্থিতি পার করে সেটি এ নাটকে দর্শক দেখতে পাবে।’ এর আগে ‘তখন যখন’, ‘প্রথম ভালোবাসা’, ‘কিছু কথা বাকি’সহ গত ঈদে প্রচারিত কয়েকটি নাটকে অভিনয় করে প্রশংসিত হন জোভান। বিরতি শেষে শুরু করেছেন ঈদুল আজহার কাজ। এদিকে অভিনেত্রী আইশা খানও বেশ নিয়মিত কাজ করছেন।

বিষয়:

এবার আম্বানির বাড়িতে আসছেন শাকিরা

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
বিনোদন ডেস্ক

ভারতীয় ধনকুবের মুকেশ আম্বানির ছেলের বিবাহপূর্ব অনুষ্ঠান ঘিরে গুজরাটের জামনগর মাতিয়ে গেছেন বিশ্বের নামীদামি সব তারকা। আগামী ১২ জুলাই অনন্ত আম্বানি ও রাধিকা মার্চেন্টের বিয়ে। এর আগে আবারও বসতে যাচ্ছে তারার হাট। অনন্ত আম্বানি ও রাধিকা মার্চেন্টের বিয়ের আগে আরও একটা প্রি-ওয়েডিং অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হচ্ছে বলেই খবর। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টাইমস জানিয়েছে, চলতি মাসের শেষে অতিথিদের সঙ্গে বিলাসবহুল ক্রুজে চড়ে প্রি-ওয়েডিং পার্ট টু সেলিব্রেট করবেন অনন্ত-রাধিকা। আগামী ২৮ থেকে ৩০ মে হবে সেই অনুষ্ঠান। ইতালি থেকে ফ্রান্সের দক্ষিণ প্রান্ত, সমুদ্রপথে প্রায় সাড়ে ৪ হাজার কিলোমিটার পাড়ি দেবে বিলাসবহুল ক্রুজটি।

দুই দিনের এই প্রি-ওয়েডিং অনুষ্ঠানের অতিথি তালিকায় ৮০০ জনের বেশি অতিথি রয়েছেন বলে জানা যাচ্ছে। পাশাপাশি ক্রুজে থাকবেন প্রায় ৬০০ কর্মী। সব মিলিয়ে যে এলাহি আয়োজন হতে চলেছে, সেই আন্দাজ পাওয়া যাচ্ছে।

একটি সূত্রের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যমটি আরও জানিয়েছে, ক্রুজ সফরেও বসবে চাঁদের হাট। শাহরুখ খান, সালমান খান, আমির খান থেকে রণবীর কাপুর, আলিয়া ভাট, বলিউডের একাধিক এ লিস্টারের সেখানে থাকার কথা। পাশাপাশি জানা যাচ্ছে, ক্রুজে স্পেশাল পারফরম্যান্স থাকবে দুয়া লিপা, শাকিরা আর এ আর রহমানের।

তবে এ নিয়ে এখনো আনুষ্ঠানিক খবর জানা যায়নি। তবে বলিউড থেকে বিশ্বের বড় বড় তারকারা যে প্রি-ওয়েডিং পার্ট টু-তে থাকতেই পারেন, সে সম্ভাবনা বেশ জোরালো।

গুজরাটের জামনগরে অনন্ত-রাধিকার প্রি-ওয়েডিংয়ের ইভেন্টে পারফর্ম করেছিলেন রিহানা, অরিজিৎ সিং থেকে শ্রেয়া ঘোষাল। সব অনুরাগীকে চমকে দিয়ে একসঙ্গে মঞ্চে উঠে নাচের তালে মাতিয়ে তুলেছিলেন বলিউডের তিন খান। এবার প্রি-ওয়েডিং পার্ট টু-তে কী চমক দেখা যায়, সেদিকে নজর থাকবে অনেকের।


কান মানেই ‘ঐশ্বর্য ঝলক’

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
বিনোদন ডেস্ক

কান উৎসব চলবে, আর সেখানে বলিউড তারকা ঐশ্বর্য রাই বচ্চনের উপস্থিতি থাকবে না- তাই কখনো হয়! কানের লাল গালিচায় এই সাবেক বিশ্বসুন্দরীর পা না পড়লে গোটা আয়োজনটাই যেন অসম্পূর্ণ রয়ে যায়। সেই ২০০২ সাল থেকে টানা কান আসরে দ্যুতি ছড়িয়ে আসছেন অ্যাশ। মাঝখানে গত দুই বছর করোনার ভার্চুয়ালি উৎসব হওয়ার কারণে তামাম দুনিয়ার তারকাদের মতো কানে যেতে পারেননি এই অভিনেত্রী।

এরই মধ্যে ফ্রান্সের ভূমধ্য সাগরের কান সমুদ্র সৈকতে পর্দা উঠেছে বিশ্ব চলচ্চিত্রের অন্যতম মর্যাদাপূর্ণ ও জমজমাট এই আসরের। কিন্তু ঐশ্বরিয়া রাই ছাড়া কান উৎসব যেন এক প্রকার অসম্পূর্ণই থেকে যায় বলা চলে। তাই ডান হাতের চোট নিয়েই বুধবার গভীর রাতে মেয়ে আরাধ্যকে নিয়ে কানের উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন রাই সুন্দরী। এদিন বিমানবন্দরে তাকে দেখা গেছে কালো ট্রাউজার ও একটি দীর্ঘ নীল রঙের ওভারকোটে। আর কন্যা আরাধ্যকে কালো জগার এবং একটি সাদা সোয়েটশার্টে বেশ সুন্দর লাগছিল।

তবে ঐশ্বরিয়া ভক্তদের মনে চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে ঐশ্বরিয়ার ডান হাত! এত বড় একটি উৎসবের আগে হাতে কীভাবে ব্যথা পেলেন ঐশ্বরিয়া, সেই প্রশ্ন তুলেছেন ভক্তরা। চোট নিয়ে এক ভক্ত লিখেছেন, ‘এভাবে চোট পাওয়া হাতে কানে হাঁটবে, ঈশ্বর আপনার মঙ্গল করুন।’ আরেকজনের মন্তব্য, ‘আশা করি তিনি ভালো আছেন। সবচেয়ে লাবণ্যময়ী নায়িকা ঐশ্বরিয়া। কান উৎসবে তাকে দেখার জন্য আর তর সইছে না। অনেক ভালোবাসি।’ অন্য আরেকজন মন্তব্য করেছেন, ‘দেখুন এই ভাঙা হাতেও কীভাবে মেয়েকে আগলে রাখছেন। ওয়াও!’

২০০২ সালে কান চলচ্চিত্র উৎসবে ভারী সোনার গয়না পরে হেঁটেছিলেন ঐশ্বরিয়া। ওই বছরই তার ছবি ‘দেবদাস’ সেখানে প্রিমিয়ার হয়েছিল। সেবার অভিনেতা শাহরুখ খান এবং পরিচালক সঞ্জয় লীলা বানসালির সঙ্গে উপস্থিত হয়েছিলেন নায়িকা। এরপর থেকে প্রায় প্রতি বছরই উৎসবে হাজির থেকেছেন এই অভিনেত্রী। ল’রিয়াল প্যারিসের অন্যতম ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে রেড কার্পেট রেখেছেন মাতিয়ে। এই বছরের রেড কার্পেটের জন্য কী সাজ ভেবে রেখেছেন, তা দেখার জন্যই অপেক্ষায় রয়েছেন বচ্চন বধূর ভক্তরা। এ বছর ঐশ্বরিয়া ছাড়াও কানের রেড কার্পেটে হাঁটবেন কিয়ারা আদভানি, শোভিতা ধুলিপালা ও অদিতি রাও হায়দারির মতো বলিউড তারকারা।

বিষয়:

সেন্সর বোর্ডে কেমন কাটল পূর্ণিমার প্রথম দিন

আপডেটেড ১৭ মে, ২০২৪ ০০:১১
বিনোদন ডেস্ক

আচমকা বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের সদস্য হয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত নায়িকা পূর্ণিমা। বিষয়টি জেনে শুরুতে বিশ্বাসই করতে পারছিলেন না এই তারকা। তার এই সদস্য হওয়াকে ঘিরে তার ভক্তদের মধ্যে যেমন উচ্ছ্বাস ছড়িয়ে পড়ে, তেমনি পূর্ণিমাও আপ্লুত হয়ে পড়েন। বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ উচ্ছ্বাসও প্রকাশ করেন পূর্ণিমা। চলচ্চিত্র পরিবারের অনেকেই তাকে অভিনন্দনও জানিয়েছেন। পূর্ণিমার জীবনের চলার পথের সাফল্য হিসেবে তার জীবনের নতুন এই প্রাপ্তি যেন তাকেও গর্বিত করেছে, আনন্দিত করেছে।

১৫ মে ছিল পূর্ণিমার অভিনয় জীবনের অবিস্মরণীয় দিন। ১৯৯৮ সালের এই দিনেই জাকির হোসেন রাজু পরিচালিত ‘এ জীবন তোমার আমার’ সিনেমাতে নায়ক রিয়াজের বিপরীতে অভিনয়ের মধ্যদিয়ে ঢাকাই চলচ্চিত্রে নায়িকা হিসেবে তার অভিষেক ঘটে। এই দিনেই পূর্ণিমা চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের একজন সদস্য হিসেবে প্রথম কোনো সিনেমা দেখে তিনি তার অভিমত প্রকাশ করেন। গত ১৫ মে পূর্ণিমা বিকেলে রাজধানীর সার্কিট হাউসের ‘চলচ্চিত্র ভবন’-এ অবস্থিত সেন্সর বোর্ডের অফিসে পৌঁছান। এরপর একটি সিনেমা তিনি সন্ধ্যা পর্যন্ত উপভোগ করে তারপর বাসায় ফিরে যান।

প্রথম দিনের অভিজ্ঞতা নিয়ে দৈনিক বাংলাকে পূর্ণিমা বলেন, ‘যেহেতু ১৫ মে ছিল আমার চলচ্চিত্র জীবনের জন্য একটি স্মরণীয় দিন, আবার একই দিনে সেন্সর বোর্ডের সদস্য হিসেবে কাজ শুরু করা। তাই নিজের ভেতর একটা অন্যরকম ভালোলাগা কাজ করছিল। অফিসে পৌঁছানোর পর সেন্সর বোর্ডের অন্য সদস্যরা আমাকে স্বাগত জানান। এরপর আমরা সবাই মিলে একটি সিনেমা উপভোগ করি। অফিসের অন্যরাও এসেছিলেন। সিনেমা দেখা শেষে সিনেমাটির ব্যাপারেই সবাই কথা বলছিলেন, প্রশংসা করছিলেন সবাই। আমার কাছেও ভালো লাগল সিনেমাটি। আবার সেন্সরে আটকে থাকা সিনেমা নিয়েও কথা হলো। কী করলে সেই সিনেমাগুলোকে সেন্সর দেওয়া যেতে পারে এসব বিষয়ে বিশদ আলোচনা হলো। তারপর আমি সবার কাছ থেকে বিদায় নিয়ে চলে এলাম। সবমিলিয়ে প্রথম দিনের অভিজ্ঞতা ভালো। বাংলা সিনেমাপ্রেমী দর্শকের কাছে ভালো ভালো সিনেমা পৌঁছে দেওয়ার কিছুটা দায়িত্ব আমার কাঁধেও, এই দায়িত্বটুকু আমি যথাযথভাবে পালন করতে চাই।’

এদিকে এখনো নতুন কোনো কাজ শুরু করেননি পূর্ণিমা। বাচ্চার স্কুলের ব্যস্ততার পাশাপাশি এখন সেন্সর বোর্ডের সদস্য হিসেবে তার ব্যস্ততা থাকবে। শিগগিরই নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুলের পরিচালনায় নির্মিত ‘গাঙচিল’ সিনেমার একটি গানের শুটিং শেষ করার কথা। ফেরদৌস ও পূর্ণিমা দুজনই এই গানের জন্য সময় দেওয়ার কথা রয়েছে।


পদাতিকে মুগ্ধতা ছড়াচ্ছেন চঞ্চল

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
বিনোদন ডেস্ক

পশ্চিমবঙ্গের খ্যাতিমান নির্মাতা সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের ‘পদাতিক’ সিনেমায় মৃণাল সেনের চরিত্রে অভিনয় করার আগে থেকেই আলোচনায় ছিলেন বাংলাদেশি অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী। এরপর বিভিন্ন সময় ছবিটির শুটিংয়ের কিছু দৃশ্য ও মৃণাল সেনের সাজে নিজেকে মেলে ধরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নজর কাড়েন দুই বাংলার আলোচিত এই অভিনেতা। যেদিন থেকে মৃণাল সেনের লুক প্রকাশ্যে এসেছিল, সেদিন থেকেই ভক্তরা অপেক্ষায় ছিলেন এই ছবির জন্য। অবশেষে টিজারের মধ্যে আভাস পাওয়া গেল সৃজিতের ‘পদাতিক’-এর।

মঙ্গলবার মৃণাল সেনের জন্মদিন উপলক্ষে প্রকাশ্যে এসেছে নির্মাতা সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের ‘পদাতিক’ সিনেমার টিজার। ১ মিনিট ৪০ সেকেন্ডের টিজারে মৃণালরূপে আরেকবার দর্শকদের চমকে দিলেন চঞ্চল। টিজারের প্রথমেই উঠে এসেছে বাইশে শ্রাবণের ঘটনা। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের শেষযাত্রায় শামিল হতে রাস্তায় নেমেছিল লাখো জনতা। সেই ভিড়ে অসহায় এক লোক তার শিশুর মরদেহ নিয়ে এসেছে দাহ করতে; কিন্তু এত মানুষের মধ্যে সুযোগই পাচ্ছে না শ্মশান পর্যন্ত পৌঁছানোর। একপর্যায়ে মানুষের ভিড়ে লোকটা হারিয়ে ফেলে নিজের সন্তানের লাশ। দূর থেকে অসহায় চোখে এ দৃশ্য দেখেন তরুণ মৃণাল। নির্মাতা তার বিভিন্ন লেখায় এ ঘটনার কথা বলেছেন। সেটিই উঠে এসেছে পদাতিকের টিজারে।

এরপর দেখানো হয় কখনো মৃণাল সম্পাদনার টেবিলে, কখনো নৌকায় বসে লেখায় নিমগ্ন, ক্যামেরার পেছনে তার চিন্তিত মুখ, দু-একটা শুটিংয়ের দৃশ্য, উত্তাল রাজনীতি; এসব পেরিয়ে মৃণালকে দেখা যায় বিদেশের চলচ্চিত্র উৎসবে। তার ব্যক্তিগত জীবনও ধরা পড়েছে। টিজার শেষ হয়েছে সেই ঐতিহাসিক দৃশ্য দিয়ে, যেখানে মৃণাল ফাঁকা রাস্তায় প্রায় শুয়ে পড়েছেন। পেছনে তাকিয়ে এক হাত উঁচু করে বলেন, ‘কাট’।

মৃণাল সেনের চরিত্রে অভিনয় প্রসঙ্গে চঞ্চল চৌধুরী বলেন, ওই মানুষটিকে হুবহু ধারণ করা তো সম্ভব নয়। আর দেখতে এক রকম হলেও কিছু যায়-আসে না। হুবহু দেখতে অনেক মানুষ আছে; কিন্তু ভেতরের যে মৃণাল সেন, তার যে ব্যক্তিত্ব; সেটা যদি আমি ফুটিয়ে তুলতে পারি, সেটাই সাফল্য। আমার ব্যক্তিগত ও পারিবারিক একটা দুঃসময় চলছিল তখন। শুটিংয়ের আগে আগে আমার বাবা মারা যান। সেই শোক বুকে চেপে রেখে কাজটি করেছি। যদি কিছু পেরে থাকি, সেটার কৃতিত্ব পরিচালক সৃজিত মুখার্জির।’

সিনেমাটি শিগগিরই মুক্তি পাবে বলে জানিয়েছে পদাতিকের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ফেন্ডস কমিউনিকেশন।

বিষয়:

আবার রাফ অ্যান্ড টাফ লুকে শাহরুখ

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
বিনোদন ডেস্ক

প্রায় পাঁচ বছরের ব্যর্থতা কাটিয়ে চেনা ছন্দে ফেরেন বলিউড বাদশা শাহরুখ খান। গত বছর ‘পাঠান’ দিয়ে নতুন যাত্রা শুরু করেন শাহরুখ, এরপর ‘জাওয়ান’ ও ‘ডানকি’র মতো সুপারহিট সিনেমা দিয়ে নিজের সিংহাসন আবারও দখলে নিয়েছেন তিনি। এর পর থেকেই কিং খানের ভক্তরা মুখিয়ে আছেন তার পরবর্তী সিনেমার ঘোষণার অপেক্ষায়। জানা যাচ্ছে, মেয়ে সুহানা খানের সঙ্গে জুটি বেঁধেই একটি চলচ্চিত্রে হাজির হচ্ছেন শাহরুখ।

সুজয় ঘোষের পরিচালনায় সিনেমার নাম রাখা হয়েছে ‘দ্য কিং’। ইতোমধ্যেই সিনেমাটি নিয়ে উন্মাদনার পারদ তুঙ্গে। আর সেই উন্মাদনার মধ্যে প্রকাশ্যে এলো শাহরুখের নতুন লুক।

এর আগে ‘জাওয়ান’-এ শাহরুখ খানকে একেবারে রাফ অ্যান্ড টাফ লুকে দেখা গিয়েছিল। একেবারে বিধ্বংসী রূপেই বলা যায়। ধুন্ধুমার অ্যাকশনে রীতিমতো ঝড় তুলেছিলেন পর্দায়। ধারণা করা হচ্ছে, এবার তিনি ‘দ্য কিং’-এর জন্য আবারও সেই লুক ফিরিয়ে আনতে চলেছেন। সেই রাফ অ্যান্ড টাফ লুকেই শাহরুখ ধরা দেবেন মেয়ের সিনেমায়।

সামাজিক মাধ্যমে যে ছবিগুলো ভাইরাল হয়েছে, সেখানে দেখা যাচ্ছে- শাহরুখের মুখে ‘জওয়ান’-এর মতো সাদা দাড়ি। চোখে সানগ্লাস। তার এই নতুন লুক প্রকাশ্যে আসার পর রীতিমতো হৈচৈ পড়ে গেছে বলিউডে।

তবে এই নতুন লুক যে ‘দ্য কিং’-এর জন্যই, সেই বিষয়ে এখনো নিশ্চিত কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। তবে অনুমান করা হচ্ছে, সুজয় ঘোষের ‘দ্য কিং’-এ শাহরুখকে এমন লুকে দেখা যাবে।

দ্য কিং-এ শাহরুখকে ডনের চরিত্রে দেখা যাবে সে কথা আগেই জানা গিয়েছিল। তাই ভক্তরা তার নতুন লুকে দুইয়ে দুইয়ে চার মিলিয়ে নিচ্ছেন।

সুজয় ঘোষ পরিচালিত ‘দ্য কিং’-এ প্রধান চরিত্রে অভিনয় করতে যাচ্ছেন শাহরুখকন্যা সুহানা খান। মেয়ের সঙ্গে একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে থাকছেন শাহরুখ। মার্চ থেকেই সিনেমার শুটিং শুরু হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। ‘কাহানি’, ‘কাহানি ২’ এবং ‘বাদলা’র মতো চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য খ্যাতি রয়েছে সুজয়ের। অমিতাভ বচ্চন ও তাপসী পান্নু অভিনীত ‘বাদলা’ চলচ্চিত্রটি প্রযোজনা করেছে শাহরুখের রেড চিলিস এন্টারটেইনমেন্ট। যার ফলে ইতোমধ্যে শাহরুখ ও সুজয়ের একসঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতা রয়েছে। আর এবার সুজয়ের হাত দিয়েই শাহরুখ তার মেয়েকে দিতে যাচ্ছেন হিটের তকমা। আর সেই কাজ সফল করতে নিজেও থাকছেন এতে।

বিষয়:

banner close