রোববার, ৩ মার্চ ২০২৪

দুই ছবিতেই দ্যুতি ছড়াচ্ছেন জয়া আহসান

আপডেটেড
১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ০০:০৩
বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত
বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ০০:০৩

ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো নিজের সঙ্গে নিজে যুদ্ধ করছেন দুই বাংলার আলোচিত অভিনেত্রী জয়া আহসান। চলতি সপ্তাহে (গত শুক্রবার) একইদিনে দুই বাংলার দুই ছবি মুক্তি পেয়েছে চিরসবুজখ্যাত এই তারকার। বাংলাদেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে ‘পেয়ারার সুবাস’। সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন দেশের গুণী নির্মাতা নুরুল আলম আতিক। অন্যদিকে কলকাতায় মুক্তি পেয়েছে সৌকর্য ঘোষাল পরিচালিত ‘ভূতপরী’ সিনেমাটি।

দুটি ছবিতেই কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন জয়া। পেয়ারার সুবাস সিনেমাটি নিয়ে জয়া বলেন, ‘এটি একটি দারুণ গল্পের সিনেমা। দর্শকের কাছে দারুণভাবে সাড়া পাচ্ছি সিনেমাটা নিয়ে। সবাইকে এটা দেখার আহ্বান থাকল।’ জয়া আহসান ও আহমেদ রুবেল ছাড়া এ সিনেমায় অভিনয় করেছেন তারিক আনাম খান, সুষমা সরকার, নূর ইমরান মিঠু প্রমুখ।

অন্যদিকে কলকাতার সিনেমা ভূতপরী নিয়েও ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে কথা বলেছেন জয়া আহসান। জয়ার চরিত্রের নাম বনলতা। ভূতপরীর মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেছেন তিনি। পেয়ারার সুবাস ও ভূতপরী এ দুই সিনেমা প্রসঙ্গে জয়া বলেন, ‘সিনেমা দুটিতে আমি ভীষণ শক্তিশালী চরিত্রে অভিনয় করেছি। এ সিনেমায় দেখা যায়, পেয়ারার বিয়ে হয় একজন বয়স্ক পুরুষের সঙ্গে। তার জীবনের লড়াইয়ের দেখা মিলবে এতে। সিনেমাটিতে মানুষের গায়ের গন্ধ খুব গুরুত্বপূর্ণ একটা জায়গা নিয়ে আছে। নুরুল আলম আতিক ভাই গুরুত্বপূর্ণ একটা বিষয় সামনে এনেছেন এ সিনেমার গল্পের মাধ্যমে। অন্যদিকে ভূতপরী একজন মহিলা ভূতের গল্প, যার নাম বনলতা। ট্রেলারেই তার দেখা মিলেছে। বনলতাকে একটি বাচ্চা কেবল দেখতে পায়। সুন্দর একটা গল্প ভূতপরী।’

কলকাতার সিনেমা ভূতপরীর বনলতা চরিত্রটি নিয়ে জয়া বলেন, ‘আমার মনে হয় বনলতাকে দেখে অনেকের মায়া হবে। তার সঙ্গে বসে একটু কথা বলতে ইচ্ছা করবে। গা-ভর্তি গহনা আর লাল শাড়ি পরা মিষ্টি একটা সুন্দর ভূত যে ভালোবাসার মানুষকে খুঁজে বেড়াচ্ছে। চরিত্রটা করতে খুবই ভালো লেগেছে। চমৎকার অভিজ্ঞতা ভূতপরী হয়ে ওঠার।’ ভূতপরীতে জয়া ছাড়াও অভিনয় করেছেন ঋত্বিক চক্রবর্তী, সুদীপ্তা চক্রবর্তী, শান্তিলাল মুখার্জি ও শিশুশিল্পী বিশান্তক মুখার্জি।

নতুন খবর হচ্ছে দেশের ২৭ প্রেক্ষাগৃহে ৯ ফেব্রুয়ারি মুক্তি পাওয়ার পেয়ারার সুবাস সিনেমাটি প্রদর্শিত হবে অস্ট্রেলিয়াতেও। আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি থেকে সেখানকার বিভিন্ন সিনেমা হলে ছবিটি একযোগে চলবে বলে জানিয়েছে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান আলফা আই স্টুডিওজ।


নতুন স্বপ্নে ক্যাটরিনা কাইফ

আপডেটেড ৩ মার্চ, ২০২৪ ০০:১৭
বিনোদন ডেস্ক

বলিউডের মিষ্টি অভিনেত্রী ক্যাটরিনা কাইফ। গত বছরের শেষের দিকে সালমান খানের বিপরীতে টাইগার-থ্রি সিনেমায় অভিনয় করে বেশ প্রশংসা কুড়িয়েছিলেন ‘চিকনি চামেলি’ বলে পরিচিতি পাওয়া এই সুন্দরী ললনা। আবার চলতি বছরের শুরুটা হয় তার তেলেগু তারকা বিজয় সেতুপতির বিপরীতে ‌‘মেরি ক্রিসমাস’ সিনেমার মাধ্যমে। এই ছবিটি আহামরি ব্যবসা করতে না পারলেও ক্যাটের অভিনয় দর্শক মহলে প্রশংসিত হয়।

সেই রেশ কাটিয়ে নতুন সিনেমার কাজ শুরু করতে যাচ্ছেন এই বলিউড তারকা। সিনেমার নাম এখনও ঠিক হয়নি। তবে জানা গেছে, এটি পরিচালনা করবেন বলিউডের তারকা কোরিওগ্রাফার রেমো ডিসুজা। নতুন সিনেমার বিষয়ে সম্প্রতি ঘোষণা দিয়েছেন রেমো। তিনি জানিয়েছেন এটি হতে যাচ্ছে বলিউডের ইতিহাসে সবচেয়ে বিগ বাজেটের ড্যান্সিং সিনেমা। ক্যাটরিনার বিপরীতে সিনেমায় অভিনয় করতে দেখা যাবে অভিনেতা বরুণ ধাওয়ানকে। প্রথমবারের মতো জুটি বেঁধে সিনেমায় অভিনয় করতে দেখা যাবে তাদের।

নিজের নতুন সিনেমা নিয়ে পরিচালক জানান, এই সিনেমায় ভারতের স্ট্রিট ড্যান্স দেখানো হবে। সঙ্গে দেখানো হবে বিশ্বের জনপ্রিয় কিছু হিপ হপ ড্যান্সারকে। যারা ভারতের নৃত্যশিল্পীদের সঙ্গে নিজেদের অভিজ্ঞতা শেয়ার করবেন। সিনেমার প্রধান দুই চরিত্র ঠিক হলেও বাকি চরিত্রে কারা থাকবেন, সে বিষয়ে এখনও নিশ্চিত কিছু বলতে চাননি তিনি। শুধু জানিয়েছেন এপ্রিলের শেষে নাম ঘোষণার মাধ্যমে সিনেমার শুটিং শুরু হবে।

নতুন সিনেমা ঘোষণার পর অভিনেত্রী ক্যাটরিনাও বেশ উচ্ছ্বসিত। নির্মাতার সঙ্গে একটি ছবি শেয়ার করে ক্যাপশনে তিনি লেখেন, ‘ক্যাপটেনের সঙ্গে ভালো কিছু হতে যাচ্ছে। সবাই অপেক্ষা করুন।’

এদিকে বরুণও নতুন এ সিনেমা নিয়ে আনন্দিত। রেমোর সঙ্গে এটি হতে যাচ্ছে বরুণ ধাওয়ানের দ্বিতীয় সিনেমা। এর আগে রেমোর ‘স্ট্রিট ড্যান্সার থ্রিডি’ সিনেমায় শ্রদ্ধা কাপুরের বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন তিনি। ৭০ কোটি রুপি খরচে নির্মিত সিনেমাটি বক্স অফিস থেকে ৯৭ কোটি রুপি আয় করে।


জায়েদ খানের সদস্যপদ বাতিল

জায়েদ খান। ছবি: সংগৃহীত
আপডেটেড ২ মার্চ, ২০২৪ ২০:২০
বিনোদন প্রতিবেদক

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানের সদস্যপদ বাতিল করা হয়েছে। শনিবার চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির বার্ষিক বনভোজনে দ্বি-সাধারণ সভায় বর্তমান কমিটি এই সিদ্ধান্ত নেয়।

সদস্যপদ বাতিলের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চলচ্চিত্র পরিষদ নেতা খোরশেদ আলম খসরু। শিল্পী সমিতির ২০২৪-২৬ মেয়াদের নির্বাচনে প্রধান নির্বচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করবেন তিনি।

খসরু বলেন, ‘আজকের বনভোজনের শুরুতে শিল্পী সমিতির দ্বি-সাধারণ সভায় সাধারণ সম্পাদকের প্রতিবেদনে ৯নং একটি বার্তায় জায়েদ খানের সদস্যপদ বাতিলের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।’

ঘোষণাপত্রে জানানো হয়, কোনো সাংগঠনিক দুর্বলতা না পেয়ে জায়েদ ব্যক্তিগত আক্রোশে ধারাবাহিকভাবে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতিসহ সাধারণ সম্পাদকের নামে মিথ্যা, মনগড়া, কুরুচিপূর্ণ কল্পকাহিনী সাংবাদিক সম্মেলন, ইউটিউব, ফেসবুক ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ করায় গত বছরের ২ এপ্রিলে সভায় সর্বসম্মতিক্রমে জায়েদ খানের সদস্যপদ বাতিল করা হয়েছে।

কারণ হিসেবে বর্তমানে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক চিত্রনায়িকা নিপুণ আক্তারও একই কথা বলেন।

এদিকে আজকের ভনভোজনে তিন তিনবার নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক হয়েও দাওয়াত না পাওয়ায় অবাক হওয়ার কথা জানান জায়েদ খান। তিনি বলেন, ‘আমি তিন তিনবার নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক। অথচ শিল্পী সমিতির পিকনিকে আমাকে কোনো কার্ড পাঠানো হয়নি৷ এমনকি কেউ ফোন দিয়েও পিকনিকের বিষয়ে আমাকে বলেনি। বিষয়টি সংকীর্ণ মানসিকতার পরিচয় দিয়েছে বর্তমান কমিটি।’

তিনি আরও বলেন, ‘যদিও এই কমিটি গত দুই বছর ধরে কোনো কাজ করেনি৷ একটা পিকনিক আয়োজন করেছে, সেখানেও আমাকে কার্ড পাঠাতে পারতো। সেটা করেনি তারা। এটাকে তাদের ব্যর্থতা বলব আমি।’

বিষয়:

নতুন ছবি নিয়ে ফিরছেন আমির খান

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
বিনোদন ডেস্ক

আমির খানকে একটি ছবিতে একেক রকম লুকে দেখা যায়। তার অভিনীত একটি ছবি আরেকটি থেকে একেবারেই ভিন্ন থাকে। ২০২৩ সালটা অনেক তারকার জন্য উল্লেখযোগ্য হলেও বলিউডের পারপেকশনিস্ট আমির খানের জন্য ছিল নিতান্তই সাদামাটা একটা বছর। এ বছর আমিরকে পর্দায় দেখা যায়নি। তার সর্বশেষ চলচ্চিত্র ‘লাল সিং চাড্ডা’র ব্যর্থতার পর সিনেমা জগৎ থেকে দূরে আছেন অভিনেতা। সময় দিচ্ছেন পরিবারকে।

তবে নতুন বছরেই পর্দায় আসার ঘোষণা দিয়েছেন আমির। তাকে দেখা যাবে আসন্ন চলচ্চিত্র ‘সিতারে জামিন পার’-এ। এর আগে জানা গেছে, আমির খান তার নতুন সিনেমার শুটিং শুরু করেছেন। এবার ‘সিতারে জামিন পার’-এর মুক্তি নিয়ে নতুন তথ্য প্রকাশ করলেন আমির খান। জানালেন, এ বছরই আসছে সিনেমাটি।

সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে ‘সিতারে জামিন পার’-এর মুক্তি প্রসঙ্গে কথা বলেছেন বলিউডের ‘মিস্টার পারফেকশনিস্ট।’ আমির বলেন, ‘অভিনেতা হিসেবে এটাই আমার পরবর্তী সিনেমা হতে চলেছে। আমরা এটি আগামী বড়দিনে মুক্তির পরিকল্পনা করছি। চিত্রনাট্য শুনেই আমার গল্পটা পছন্দ হয়েছিল।’

সম্প্রতি সিনেমাটির শুটিং শুরু হয়েছে। এতে আমির তো থাকছেন, তবে রয়েছে আরও চমক। আমির বলেন, ‘এতে আমি মুখ্য চরিত্রে নয়, ক্যামিও চরিত্রে রয়েছি।

কয়েক মাস আগে ‘সিতারে জামিন পার’ নিয়ে প্রথম মুখ খুলেছিলেন আমির খান।

সিনেমাটির নাম জানানোর পাশাপাশি অভিনেতা জানিয়েছিলেন যে, ২০০৭ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ও আমির অভিনীত প্রশংসিত চলচ্চিত্র ‘তারে জামিন পর’-এর আঙ্গিকেই তৈরি হবে এটি। বহুল প্রশংসিত ওই সিনেমাতে বিশেষ ভাবে সক্ষম বাচ্চাদের সাফল্যের কাহিনি তুলে ধরা হয়েছিল। যাতে মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করা ঈশান ছিল ডিসলেক্সিয়া রোগে আক্রান্ত। আমির অভিনয় করেছিলেন আর্ট শিক্ষক রামশঙ্কর নিকুম্ভের চরিত্রে। এবার সেই সিনেমার আঙ্গিকেই নতুন করে সামাজিক বার্তা নিয়ে ‘সিতারে জামিন পার’ আনতে চলেছেন আমির খান।

বিষয়:

টফিতে ‘ওরা ৭ জন’

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

ডিজিটাল বিনোদন প্ল্যাটফর্ম টফিতে মুক্তি পেয়েছে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক সিনেমা ‘ওরা ৭ জন’। ভিন্ন ভিন্ন পেশার সাতজন বীর মুক্তিযোদ্ধার একটি গোপন মিশন ও শ্বাসরুদ্ধকর ঘটনা নিয়ে সিনেমাটি নির্মাণ করেছেন পরিচালক খিজির হায়াত খান।

এতে জাকিয়া বারী মম, ইন্তেখাব দিনার, নাজিয়া হক অর্ষা, ইমতিয়াজ বর্ষণ, খিজির হায়াত খানসহ আরও অনেকে অভিনয় করেছেন। টফির মার্কেটিং ডেপুটি ডিরেক্টর মুহাম্মদ আবুল খায়ের চৌধুরী বলেন, ‘স্বাধীনতার মাসে মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী মুক্তিযোদ্ধাদের ত্যাগের প্রতি সম্মান জানিয়ে নির্মিত সিনেমাটি টফিতে মুক্তি দিতে পেরে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত।’ গত বছরের ৩ মার্চ সিনেমা হলে মুক্তি পায় সিনেমাটি।


বেইলি রোডের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় শোবিজ তারকারাও হতবাক

ছবি কোলাজ: দৈনিক বাংলা
আপডেটেড ২ মার্চ, ২০২৪ ০০:০২
বিনোদন প্রতিবেদক

রাজধানীর বেইলি রোডের ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় পুরো দেশের মানুষ হতবাক হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৪৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। গুরুতর আহত হয়েছেন অন্তত ২২ জন। এ ঘটনায় নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। সারা দেশের মানুষের মতো শোবিজ তারকারাও এ ঘটনায় বেশ মর্মাহত হয়েছেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তারকারা জানিয়েছেন এ নিয়ে নানা মন্তব্য।

মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনায় শোক জানিয়েছেন দেশের সিনেমার সবচেয়ে বড় তারকা শাকিব খান। ফেসবুকে দেওয়া এক শোকবার্তায় তিনি লিখেছেন, ‘বেইলি রোডে ঘটে যাওয়া ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের আগে সেখানে বেশিরভাগ মানুষ হয়তো গিয়েছিলেন তাদের প্রিয়জন নিয়ে আনন্দময় কিছু সময় ভাগাভাগি করতে। কেউ কেউ গিয়েছিলেন শপিং বা পরিবার-পরিজন নিয়ে ফ্রি টাইমে খাওয়া-দাওয়া করতে; কিন্তু এক নিমিষেই ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড থামিয়ে দিয়েছে এতগুলো জ্বলজ্যান্ত জীবন। স্বজন হারিয়ে অনেকের ভবিষ্যৎ জীবনে নেমে এসেছে ঘোর অমানিশা! অনেকের তিলে তিলে গড়ে তোলা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান শেষ হয়ে গেছে।’

শাকিব খান লিখেছেন, ‘কিছুদিন পরপর অগ্নিকাণ্ডের এত এত তরতাজা প্রাণ অকালে চলে যাওয়া এবং ক্ষয়ক্ষতি কোনোভাবে কাম্য নয়। এসব ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের নিষ্পত্তি হওয়া প্রয়োজন। আর জীবেনের ঝুঁকি নিয়ে যারা সবসময় এমন অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্ঘটনা মোকাবিলা করে সাধারণ মানুষের জন্য জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েন, সেসব ফায়ার সার্ভিস কর্মীদের জানাই স্যালুট!’

এমন মর্মান্তিক হতাহতের ঘটনায় হতবাক হয়েছেন অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরীও। তার প্রিয় শহরে এমন দুর্ঘটনা যেন কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না এ অভিনেতা। চঞ্চল তার সোশ্যাল মিডিয়ায় অগ্নিকাণ্ডে পুড়ে যাওয়া এ ভবনের আগের ও এখনকার দুটি ছবি পাশাপাশি পোস্ট করে লিখেছেন, ‘হায়রে বেইলি রোড’। এ ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় আমরা আরণ্যক পরিবার শোকাহত।’ এ থেকে বোঝা যাচ্ছে, এমন ঘটনা চঞ্চল হতবাক হয়েছেন। তার এ পোস্টে ভক্তরাও দুঃখ ও শোক প্রকাশ করছেন।

অভিনেত্রী বিজরী বরকতউল্লা তার আইডিতে লিখেছেন, ‘আহা, বেইলি রোড! ছোটবেলা, স্কুল-কলেজের কত স্মৃতি! এই তো সেদিনও গেলাম খেতে। কী অদ্ভুত অনিশ্চিত জীবন। ‍দুর্ঘটনায় মৃত ব্যক্তিদের রূহের মাগফিরাত কামনা করি। আল্লাহ, স্বজনদের শোক বইবার শক্তি দাও।’

অপু বিশ্বাস লিখেছেন, ‘বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ডে নিহতদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করছি। এ ধরনের মর্মান্তিক এবং বেদনাদায়ক ঘটনার যেন আর পুনরাবৃত্তি না ঘটে। ঈশ্বর সবার মঙ্গল করুন।’

শবনম বুবলী পোস্ট দিয়ে লিখেছেন, ‘বেইলি রোডের অগ্নিকাণ্ডে নিহতদের বিদেহী আত্মার শান্তি ও মাগফিরাত কামনা করছি! মহান আল্লাহপাক ভুক্তভোগী পরিবারগুলোর সবাইকে এ শোক কাটিয়ে ওঠার শক্তি দান করুন!’

অভিনেতা রওনক হাসান লিখেন, ‘যে সড়কটা একদিন শিল্প ও শিল্পীর পদচারণায় মুখরিত ছিল, সেখানে তাদের হটিয়ে খাদ্য আর খাদকের ভাগাড়ে পরিণত করলে এই হয় পরিণতি! রেস্ট ইন পিস প্রিয় বেইলি রোড!’

জায়েদ খান লিখেছেন, ‘এতগুলো নিরীহ প্রাণ বিসর্জন হলো অগ্নিকাণ্ডে! দুঃখ প্রকাশের ভাষা নেই। আমাদের আরও সাবধানতা প্রয়োজন, বিশেষ করে সিলিণ্ডারের গ্যাস ব্যবহারের ক্ষেত্রে।’

অন্যদিকে বিদ্যা সিনহা মিম লিখেছেন, ‘এমন ২৯ ফেব্রুয়ারি আর কখনো যেন কারও জীবনে না আসে। বেইলি রোডের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় যারা মারা গেছেন তাদের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি।’

নাদিয়া আহমেদ লিখেন, ‘আহা বেইলি রোড! দুর্ঘটনায় মৃত ব্যক্তিদের রূহের মাগফিরাত কামনা করি। স্বজনদের শোক বইবার শক্তি দাও আল্লাহ।’

নিপুণ আক্তার লিখেন, ‘আল্লাহ তুমি তোমার সব বান্দাকে হেফাজতে রেখো!’

চিত্রনায়ক সাইমন সাদিক লিখেন, ‘৪৬ জনের মৃত্যু আপনার কাছে খুব অল্প মনে হচ্ছে? একবার ভাবুন তো, এই ৪৬ জনের সঙ্গে কতশত হাজার জনের সখ্য-ভালোবাসার সম্পর্ক ছিল! আসুন আমরা সবাই সাবধান হই, বিবেকবান হই, সৎ হই, মানুষ হওয়ার চেষ্টা করি! মহান আল্লাহ আমাদের সবাইকে হেফাজতে করুন।’


এবার সিঙ্গাপুরে মাতাবেন টেইলর সুইফট

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
বিনোদন ডেস্ক

ক্যারিয়ারে সুবর্ণ সময় কাটাচ্ছেন মার্কিন সংগীতশিল্পী, অভিনেত্রী ও প্রযোজক টেইলর সুইফট। বয়স মাত্র ৩৪ বছর। এরই মধ্যে বিশ্ব সংগীতের সবকটি দামি দামি পুরস্কার নিজের ঝুলিতে তুলে নিয়েছেন এই তরুণ পপ স্টার। পাশ্চাত্য সংগীতের এ রানীকে অনেকে এখন নতুন পপ কুইন বলেও ডাকতে শুরু করেছেন।

গত বছরে নিজের রেকর্ডের পাশাপাশি অনেক বড় বড় তারকার রেকর্ড ভেঙে ফেলায় অনেকে তাকে রেরর্ক কন্যা বলেও উপাধি দিয়েছেন। মাত্র কয়েক দিন আগেই মার্কিন গায়িকা টেইলর সুইফট ৬৬তম গ্র্যামিতে চতুর্থবারের মতো ‘অ্যালবাম অব দ্য ইয়ার’ পুরস্কার পেয়েছিলেন। টেইলরের টোকিও কনসার্ট ব্যাপক সাড়া ফেলেছিল জাপানের সংগীতপ্রেমীদের মধ্যে। টোকিওর রাস্তাঘাট টেইলরের ভক্ত ও শুভানুধ্যায়ীরা ভরিয়ে তুলেছিলেন পোস্টারে এবং রঙিন সব ব্যানারে।

এবার সেই উত্তেজনা দেখা যাচ্ছে সিঙ্গাপুরেও। ৫ ও ৮ মার্চ সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিত হবে টেইলর সুইফটের কনসার্ট। আর সে উপলক্ষে সিঙ্গাপুরের কনসার্টের আগে হোটেল, বিমানের ফ্লাইট বেশিরভাগ বুক হয়ে গেছে। সংগীতপ্রেমীরা এর নাম দিয়েছেন ‘সুইফট ইফেক্ট’। সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া এনডিটিভির রিপোর্ট থেকে জানা যায়, দুটি কনসার্ট উপলক্ষে প্রায় ৩ লাখ সুইফটভক্ত জড়ো হয়েছে সিঙ্গাপুর শহরে।

যার ফলে বেশিরভাগ হোটেল বুকিং হয়ে গেছে, নয়তো বেশি ভাড়ায় নিতে হচ্ছে সংগীতপ্রেমীদের। ম্যানিলা থেকে সিঙ্গাপুরে সুইফটের কনসার্ট দেখতে আসা ইনগ্রিড ডেলগাডো বলেন, ‘কনসার্টের জন্য এখানকার হোটেলের বেশিরভাগ কক্ষই আগে থেকে বুকিং হয়ে গেছে। আমাকে প্রায় দ্বিগুণ ভাড়া গুনতে হয়েছে একটি কক্ষ ভাড়া নিতে।’

সিঙ্গাপুরের ফুলারটন হোটেল, ফেয়ারমন্ট হোটেল এএফপিকে জানিয়েছে, কনসার্টের সময় কক্ষের চাহিদা বেড়েছে। এত বেশি পর্যটককে সার্ভিস দিতে তাদের হিমশিম খেতে হচ্ছে। উল্লেখ্য, গত বছর ব্রাজিলের সাও পাওলো শহরে অনুষ্ঠিত টেইলর সুইফটের কনসার্ট দর্শক সমাগমের দিক থেকে আগের সব রেকর্ড অতিক্রম করেছিল। সেবার বলা হয়েছিল, সর্বকালের সর্ববৃহৎ সংগীতের আয়োজন ছিল সেটি।

বিষয়:

কঠোর নিরাপত্তায় আম্বানির বাড়িতে সালমান

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
বিনোদন ডেস্ক

ভারতের শীর্ষ ধনকুবের পুক্র অনন্ত আম্বানি এবং রাধিকা মার্চেন্টের প্রাক-বিবাহ উৎসবের আসরের জন্য গুজরাতের জামনগরে যেন সাজো-সাজো রব! ইতোমধ্যেই সেখানে পৌঁছেছেন বলিউডের নামীদামি তারকারাও। বৃহস্পতিবার ভোরের দিকে নিজের ওয়াই-প্লাস নিরাপত্তার বেষ্টনীর ঘেরাটোপেই জামনগরে পা রাখলেন বলিউডের ভাইজান সালমান খান। সেই সময়ই পাপারাৎজিদের ক্যামেরায় বন্দি হন তিনি।

নিজের ব্যক্তিগত বডিগার্ড শেরা এবং অন্য নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে নিয়ে জামনগর বিমানবন্দর থেকে বের হতে দেখা যায় সালমান খানকে। ক্যাজুয়াল এয়ারপোর্ট লুকে ধরা দিলেন সালমান। তিনি বেছে নিয়েছিলেন জিন্স এবং অলিভ গ্রিন ডেনিম শার্ট। পায়ে গলিয়ে নিয়েছিলেন কালো জুতো। জামনগর বিমানবন্দর থেকে বেরিয়ে বাইরে থাকা পাপারাৎজিদের উদ্দেশে হাতও নাড়েন বলিউডের সুপারস্টার।

এমনিতে আম্বানি পরিবারের কাছে জামনগরের এক বিশেষ তাৎপর্য রয়েছে। কারণ গুজরাটের এই শহরের সঙ্গে তাদের পারিবারিক বন্ধন অত্যন্ত গভীর। আর সব থেকে বড় কথা হলো, জামনগরে প্রতিদিন খুব বেশি বিমান অবতরণ করে না। তবে আজ ১ মার্চ সেখানে প্রায় ৫০টি বিমান অবতরণ করার কথা। যদিও জামনগর বিমানবন্দরের তদারকির দায়িত্বে রয়েছে রিলায়েন্স। কারণ এটাই মূলত রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড রিফাইনারি কমপ্লেক্সের প্রবেশদ্বার।

শোনা যাচ্ছে যে, রাধিকা-অনন্তের প্রাক-বিবাহ উৎসবে পারফর্ম করবেন মার্কিন গায়িকা রিহানা এবং ম্যাজিশিয়ান ডেভিড ব্লেইনের মতো নামীদামি আন্তর্জাতিক তারকারা। এর পাশাপাশি অনুষ্ঠানে অরিজিৎ সিং, অজয়-অতুল এবং দিলজিৎ দোসাঞ্জের মতো ভারতীয় তারকাদেরও পারফর্ম করার কথা রয়েছে।

তিন দিনব্যাপী ওই প্রাক-বিবাহ উৎসবে এক-এক দিন রাখা হচ্ছে এক-এক রকম থিম। প্রথম দিনের থিম ‘অ্যান ইভনিং ইন এভারল্যান্ড’। ফলে ড্রেস কোড থাকছে ‘এলিগ্যান্ট ককটেল’। আবার দ্বিতীয় দিনের থিম ‘আ ওয়াক অন দ্য ওয়াইল্ডসাইড’। ফলে থাকছে ‘জাঙ্গল ফিভার’ ড্রেস কোড। আর ওই দিনের অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়েছে জামনগরে আম্বানিদের অ্যানিম্যাল রেসকিউ সেন্টারের বাইরে। ফলে আরামদায়ক পোশাক এবং জুতা পরার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এরপর ‘মেলা রুজ’-এর জন্য অতিথিদের বদলে ফেলতে হবে সাফারি-থিমের আউটফিট। এর জন্য ড্রেস কোড রাখা হয়েছে ‘ড্যাজলিং দেশি রোমান্স’। এক্ষেত্রে দক্ষিণ এশীয় পোশাক পরতে হবে সকল আমন্ত্রিতকে। আর শেষ দিনে রয়েছে দু’টি বড় অনুষ্ঠান। এর মধ্যে প্রথমটি হলো ‘টাস্কার ট্রেলস’। এক্ষেত্রে ড্রেস কোড হতে চলেছে ক্যাজুয়াল চিক। শেষ পার্টির নাম ‘হস্তাক্ষর’। সন্ধ্যার এই অনুষ্ঠানের ড্রেস কোড হল দুর্দান্ত ঐতিহ্যবাহী ভারতীয় পোশাক।

বিষয়:

একা হয়ে পড়েছেন নিপুন

আপডেটেড ১ মার্চ, ২০২৪ ০০:০৬
বিনোদন প্রতিবেদক

ভোটের মাঠে হেরেও নানা রকম আইনি লড়াই শেষে টানা দুই বছর বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন চিত্রনায়িকা নিপুন আক্তার; কিন্তু দুই বছর ভালোই ভালোই সমিতির নেতৃত্ব দিলেও নির্বাচনের আগে অনেকটাই একা হয়ে পড়েছেন এই লড়াকু কন্যা। আগামী ১৯ এপ্রিল এফডিসিতে অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ২০২৪-২৫ মেয়াদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন। এরই মধ্যে প্যানেল গোছানোর কাজ নিয়ে শিল্পীরা তোড়জোড় শুরু করেছেন। চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব অভিনেতা মনোয়ার হোসেনকে সাধারণ সম্পাদক করে সভাপতি পদে প্যানেল সাজাচ্ছেন সাবেক সভাপতি অভিনেতা মিশা সওদাগর। শিগগিরই আনুষ্ঠানিকভাবে প্যানেল ঘোষণা করবেন তারা।

অন্যদিকে শিল্পী সমিতির বর্তমান সভাপতি ইলিয়াস কাঞ্চন আসন্ন নির্বাচনে লড়ছেন না বলে আগেই স্পষ্ট করেছেন। নিপুন আক্তারকে একা রেখে সরে দাঁড়াচ্ছেন তিনি। এতে বিপাকে পড়েছেন তিনি। এ প্যানেলের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হিসেবে নিপুন থাকলেও সভাপতি খুঁজে পাচ্ছেন না এ অভিনেত্রী। এরই মধ্যে অমিত হাসানসহ কয়েকজনের নাম শোনা গেলেও এখনো চূড়ান্ত হয়নি নিপুনের প্যানেলের সভাপতি প্রার্থী। মাঝখানে নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য ও চিত্র তারকা ফেরদৌস আহমেদকে সভাপতি পদে নির্বাচনের ইঙ্গিত দিয়ে নিজের ভাবনার কথা জানিয়েছিলেন নিপুন; কিন্তু নিপুনকে আরেক দফা হতাশ করে শিল্পী সমিতির নির্বাচনে অংশ নেবেন না বলে জানান ফেরদৌস। তাহলে নিপুনের প্যানেলে নতুন সভাপতি কে হবেন, তা নিয়ে এখনই কথা বলতে চান না এ নায়িকা। জানিয়েছেন, আগামী মার্চে আনুষ্ঠানিকভাবে প্যানেল নিয়ে কথা বলবেন।

কেউ কেউ বলছেন নিপুনের সভাপতি চিত্রনায়ক রিয়াজ হতে পারেন। নায়িকা নিপুন কাকে নিয়ে জোট বাঁধবেন তা এখনো পরিষ্কার নয়। এদিকে নিপুনের প্যানেলে থাকা কয়েকজন নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। এখন দেখার অপেক্ষায় কাদের নিয়ে নিপুন তার প্যানেল প্রস্তুত করেন। এরই মধ্যে গুঞ্জন উঠেছে, নিপুন নিজেই সভাপতি পদে লড়াই করবেন। তবে এ খবরকে উড়িয়ে দিয়ে গণমাধ্যমকে নিপুন বলেছেন, ‘এটা পুরোপুরিই গুজব। আমি সভাপতি পদে নয়, সাধারণ সম্পাদকের পদেই নির্বাচন করব। আর আমার প্যানেলে সভাপতি কে থাকছেন, সেটা নিয়েও চমক রয়েছে।’ এ নেত্রী আরও বলেন, ‘এখনো বলার সময় আসেনি। আমাদের বেশ কয়েকজন সিনিয়র শিল্পী তা সিদ্ধান্ত নেবেন। তারাই বিষয়টি দেখছেন। আস্তে-ধীরে প্যানেল গোছানোর কাজ চলছে। আগামীকাল ২ মার্চ আমাদের সমিতির পিকনিক। আপাতত পিকনিকের ফান্ড কালেকশন থেকে শুরু করে যাবতীয় বিষয় নিয়ে ঝামেলার মধ্যে আছি। পিকনিক শেষ হলে নির্বাচনের প্যানেলের দিকে মনোযোগ দেব। তবে আশা করছি, মার্চের মাঝামাঝি প্যানেল চূড়ান্ত করতে পারব।’


মঞ্চের বটবৃক্ষ মামুনূর রশীদ

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
বিনোদন প্রতিবেদক

বাংলাদেশের নাট্যাঙ্গনের জীবন্ত কিংবদন্তি অভিনেতা, নাট্যনির্দেশক মামুনর রশীদ। তিনি যে কত বিশাল ব্যক্তিত্বের অধিকারী এবং জ্ঞানের আলো- যারা তার সান্নিধ্য পেয়েছেন, কেবল তারাই বিষয়টা জানেন। বস্তুত তার জ্ঞান স্পৃহা, প্রজ্ঞা এবং অভিজ্ঞতার খুব সমান্যই জনসম্মুখে উন্মচিত । বর্তমানে বাংলাদেশে মামুনুর রশিদ ছাড়া আর কোন বটবৃক্ষ জীবিত নেই; যার ছায়াতলে নাট্যকর্মীর আশ্রয় পেতে পারে। স্বাধীনতা-উত্তর বাংলাদেশের মঞ্চ আন্দোলনের পথিকৃৎ মামুনুর রশীদ। শ্রেণিসংগ্রাম, ক্ষুদ্র জাতিসত্তার অধিকার আদায়ের নানা আন্দোলনসহ বিভিন্ন সামাজিক ইস্যু নিয়ে নাটক লিখে ও নির্দেশনা দিয়ে বাংলাদেশের নাট্যজগতে মামুনুর রশীদ হয়ে উঠেছেন অপরিহার্য।

মামুনুর রশীদ শুধু মঞ্চ ও টিভি নাটকের বাতিঘর কিংবা একজন মুক্তিযোদ্ধাই নন , তিনি তার আয়ত্বের মধ্যে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে দৃঢ় অবস্থান নিয়েছেন এবং প্রতিবাদে সামিল হয়েছেন। শ্রেণিসংগ্রাম তার নাটকের এক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়বস্তু। তিনি টিভির জন্যেও অসংখ্য নাটক লিখেছেন এবং অভিনয় করেছেন। বিভিন্ন সামাজিক ইস্যূ নিয়ে, শ্রেণিসংগ্রাম, ক্ষুদ্র জাতিসত্তা অধিকার আদায়ের নানা আন্দোলন নিয়ে নাটক রচনা ও পরিবেশনা করে বাংলাদেশের নাট্য জগতে আলাদা স্থান করে নিয়েছেন। নাট্যকলায় বিশেষ অবদানের জন্য ২০১২ সালে তিনি একুশে পদকে ভুষিত হন। ১৯৮২ সালে বাংলা একাডেমি পুরস্কার পেলেও স্বৈরশাসনের প্রতিবাদ স্বরূপ তিনি পুরস্কারটি প্রত্যাখ্যান করেন।

বরেণ্য এই নাট্যজনের আজ জন্মদিন। ২৯ ফেব্রুয়ারি জন্ম নেওয়ার সুবাদে চার বছর পরপর তার জন্মদিন উদযাপনের সুযোগ আসে সবার। বয়স ৭৬ হলেও আজ তার ১৯ তম জন্মদিন পালিত হচ্ছে। এই দিনটির অপেক্ষায় থাকে তার পরিবার, ভক্ত, অনুরাগীসহ সব শিল্পী কলাকুশলী। বহুল প্রতীক্ষিত এই জন্মদিন রাঙাতে তাই আয়োজন করা হয়েছে উৎসবের, আনন্দ মিলনমেলার। মামুনুর রশীদের জন্মদিন উপলক্ষে তিন দিনের বিশেষ উৎসবের আয়োজন করেছে তার হাতে গড়া নাট্যদল ‘আরণ্যক’।

আজ থেকে আগামী ২ মার্চ পর্যন্ত বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ও মহিলা সমিতির নীলিমা ইব্রাহিম মিলনায়তনে ৩ দিনব্যাপী ‘আলোর আলো নাট্যোৎসব’ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। উৎসব আয়োজনে থাকবে মামুনুর রশীদ রচিত ও নির্দেশিত নাটকের মঞ্চায়ন, সংগীত, নৃত্য, সেমিনার, প্রদর্শনী ও থিয়েটার আড্ডা। নানা কর্মসূচিতে সমৃদ্ধ এ আয়োজনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত থাকবেন অভিনেত্রী ফেরদৌসী মজুমদার। এ ছাড়া দেশ-বিদেশের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব তাদের উজ্জ্বল উপস্থিতির মাধ্যমে অনুষ্ঠানকে আলোকিত করবেন বলে জানানো হয়।

আজ বিকেল ৫টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালায় অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন অভিনেত্রী ফেরদৌসী মজুমদার। অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করবেন অনিমা মুক্তি গোমেজ, অনিমা রায়, চঞ্চল চৌধুরী, ফজলুর রহমান বাবু ও রাহুল আনন্দ। বাঁশি বাজাবেন উত্তম চক্রবর্তী। ওয়ার্দা রিহাবের পরিচালনায় নৃত্য পরিবেশন করবে ধৃতি নর্তনালয়।

১ মার্চ সকাল ১০টায় শিল্পকলা একাডেমির সেমিনারকক্ষে আয়োজিত হবে ‘একজন দায়বদ্ধ সৃজনকর্মীর নাট্যপরিভ্রমণ’ শীর্ষক আলোচনা। আলোচনার ধারণাপত্র পাঠ করবেন মলয় ভৌমিক। বিকেল ৪টা ৩০ মিনিট ও সন্ধ্যা ৭টায় বাংলাদেশ মহিলা সমিতির নীলিমা ইব্রাহিম মিলনায়তনে হবে ‘রাঢ়াঙ’ নাটকের পরপর দুটি প্রদর্শনী। নাটকটি রচনা ও নির্দেশনা দিয়েছেন মামুনুর রশীদ।

২ মার্চ বেলা ৩টা ৩০ মিনিটে বাংলাদেশ মহিলা সমিতির নীলিমা ইব্রাহিম মিলনায়তনে থিয়েটার আড্ডা ‘নাট্যকর্মীদের মুখোমুখি মামুনুর রশীদ’। সন্ধ্যা ৭টায় একই হলে প্রদর্শিত হবে নাটক ‘কহে ফেসবুক’। নাটকটি রচনা ও নির্দেশনা দিয়েছেন মামুনুর রশীদ। এ ছাড়া চ্যানেল আইয়ের পক্ষ থেকেও পালিত হচ্ছে তিনদিনের উৎসব।

বিষয়:

সংসারকেই বেশি প্রাধান্য দিচ্ছি এখন: মৌসুমী

আপডেটেড ২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ০০:০২
বিনোদন প্রতিবেদক

আরিফা পারভিন জামান মৌসুমী- দেশীয় চলচ্চিত্রের উজ্জ্বল এক তারকা। একাধারে তিনি মডেল, অভিনেত্রী, গায়িকা ও পরিচালক এবং সমাজ সেবক। প্রিয়দর্শিনীখ্যাত নন্দিত এই নায়িকা এরইমধ্যে পার করেছেন ক্যারিয়ারের তিন দশক। তবে আগের মতো অভিনয়ে নিয়মিত নন তিনি। স্বামী-সন্তান আর সংসারেই বেশি মনোযোগী জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত এই অভিনেত্রী। বর্তমানে তিনি অবস্থান করছেন আমেরিকায়। সেখানে তিনি মা, বোন ও সন্তানের সঙ্গে সময় কাটাচ্ছেন। অনলাইনে দৈনিক বাংলার সঙ্গে কথা হয় এই তারকার-

যেভাবে কাটছে সময়…

বেশ ভালোই দিন কাটাচ্ছি। প্রায় ৫ মাস ধরে যুক্তরাষ্ট্রে এসেছি। এখানে আমার পরিবারের প্রিয় কয়েকজন মানুষ রয়েছেন। এখানে মা, বোন, দুই সন্তান ফারদিন ফাইজাহকে পেয়ে বেশ উচ্ছ্বাস কাজ করছে মনে। তাদের সঙ্গে দারুণ সময় কাটছে। তবে যুক্তরাষ্ট্র বসেও স্বামী ওমর সানীর কথা বেশ মনে পড়ছে। ফাঁকে ফাঁকে বিভিন্ন ধরনের শোতেও অংশগ্রহণ করার চেষ্টা করছি। আবার ব্যাটে-বলে মিলে গেলে সেখানে কাজও করছি। তবে এত কিছুর মধ্যেও আমার স্বামী ওমর সানীকে খুব মিস করছি। আমার দাতব্য প্রতিষ্ঠানটিরও অভাব অনুভব করছি।

যুক্তরাষ্ট্রেও শুটিং…

হ্যাঁ, এখানে আসার পরই দুটি কাজ করেছি। এরমধ্যে ‘অর্ধাঙ্গিনী’ নামের একটি মিউজিক্যাল ফিল্মেরও শুটিং শেষ করেছি। আপনারা নিশ্চয়ই জানেন, বিষয়টা নিয়ে বাংলাদেশের অনেক গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয়েছে। যখন শুটিং করি তখন এখানে শীতের পরিমাণ অনেক বেশি ছিল। মাইনাস ১০-১২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার প্রচণ্ড ঠাণ্ডায় বরফের মধ্যেও কষ্ট করে শুটিং করতে হয়েছে। এটা অনেক কষ্টসাধ্য ছিল।

দেশে ফেরা…

ঠিক কবে নাগাদ দেশে ফিরতে পারব, তা এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি। এখানে আরও কিছু কাজ বাকি আছে। সেগুলো শেষ হলেই দেশে ফিরব। আমার দেশে ফেরার ওপর নির্ভর করছে আমার নতুন সিনেমা ‘সোনার চর’-এর মুক্তি। ছবিটি বেশি কিছু দিন আগেই সেন্সর ছাড়পত্র পেয়েছে। পরিচালক জাহিদ হোসেন জানিয়েছেন, আমার জন্য অপেক্ষা করছেন তিনি। আমি বাংলাদেশে গেলেই নাকি সময়-সুযোগ বুঝে সিনেমাটির মুক্তির তারিখ ঘোষণা করবেন। ছবির প্রচারণাতেও অংশ নিতে হবে আমাকে।

সোনার চরের গল্প ও চরিত্র…

এটি একটি জীবন ঘনিষ্ঠ সিনেমা। দর্শকদের মনকে ছুঁয়ে যাওয়ার মতো গল্প। সিনেমার কাহিনি ১৯৭৫ সালের পরবর্তী সময়ের। এখানে কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছি আমি। ওমর সানী করেছেন আমার স্বামীর চরিত্রে। জাঁদরেল এক লাঠিয়ালের চরিত্র তার। এ ছবিতে জায়েদ খান মুক্তিযোদ্ধার চরিত্রে কাজ করেছেন। জাহাঙ্গীর সিকদার প্রযোজিত সোনার চর সিনেমার গল্পটি আমার মন ছুঁয়ে গেছে। তাছাড়া পরিচালক জাহিদ হোসেন অনেক গুণী ও মেধাবী পরিচালক। সবমিলিয়ে আমি কাজ করতে রাজি হই। এই ছবির মাধ্যমে দীর্ঘদিন পর সিনেমায় অভিনয় করি। আশা করি, সিনেমাটি মুক্তি পেলে সবাই পছন্দ করবে।

ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা…

আমার কাছে এখন সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ হলো আমার সংসার। সবার আগে আমার স্বামীসন্তান। এ ছাড়া প্রাধান্য দিচ্ছি সামাজিক কাজকে। এটাতে খুব আনন্দ পাই। পাশাপাশি রাজনীতি করার ইচ্ছা আছে। তবে সেটা দ্রুত নয়, আস্তে-ধীরে। আগে রাজনীতি বিষয়টিকে নিজের আয়ত্তে নিতে চাই।


‘হাফ মুন’র ফার্স্ট দর্শনে নজর কাঁড়লেন সাজ্জাদ

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
বিনোদন প্রতিবেদক

ঢাকাই সিনেমার নবাগত নায়ক সাজ্জাদ হোসেন। ‘এমআর নাইন- মাসুদ রানা’ সিনেমার মাধ্যমে চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় তার। এবার ‘হাফ মুন’ নামের নতুন সিনেমায় যুক্ত হলেন তিনি। এর আনুষ্ঠানিক ঘোষণা এলো রহস্যময় এক পোস্টার প্রকাশের মাধ্যমে।

আজ বুধবার দুপুরে যুক্তরাজ্যের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান টিবি আর মাল্টিমিডিয়ারর ফেসবুক পেজে প্রকাশ করা সিনেমাটির একটি পোস্টার। যা দেখা মাত্রই রহস্যের আঁচ পাওয়া যায়। একইসঙ্গে ‘হাফ মুন’ বা অর্ধ চন্দ্র নামের যেন যথার্থ প্রয়োগ খুঁজে পাওয়া গেল এতে।

প্রকাশিত ডার্ক রঙের পোস্টারে দুটি মুখ ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। কিন্তু একজনের অর্থাৎ শুধু নায়কের মুখ স্পষ্ট, নায়িকার মুখ অস্পষ্ট; যেন রহস্যে ঘেরা। এর কারণ এই সিনেমায় নায়িকা কে হচ্ছে তা আপাতত আড়ালেই রাখতে চান সিনেমা সংশ্লিষ্টরা। এখানেই শেষ নয়, পোস্টারে ব্রিজ, ঘড়ি ও নদীর চিত্র ফুটে উঠেছে। যা গল্পের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত।

জানা যায়, যুক্তরাজ্যের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান টিবি আর মাল্টিমিডিয়ার ব্যানারে সিনেমাটি নির্মাণ করবেন তরুণ নির্মাতা ফায়েজ আহমেদ। তিনিও প্রথমবার দেশে সিনেমা নির্মাণ করতে যাচ্ছেন। লন্ডনের নিউহ্যাম সিক্সফোম কলেজ থেকে ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়ার ওপর পড়াশোনা করা এই নির্মাতা এর আগে হলিউডের প্রডাকশনে 'পারছি গারভেজ' নামের সিনেমা নির্মাণ করেছেন। যেটি রয়েছে মুক্তির অপেক্ষায়।

নির্মাতা ফায়েজ জানালেন, তার নতুন সিনেমা ‘হাফ মুন’ নির্মিত হবে সত্য ঘটনা অবলম্বনে। তবে সেটিকে খানিকটা ভিন্ন আঙ্গিকে সিনেমাটিকভাবে প্রেজেন্ট করা হবে পর্দায়। যেখানে কোনও অ্যাকশন না থাকলেও এক ধরনের থ্রিলার, সাসপেন্স, রোমান্টিকতা ও পারিবারিক গল্প খুঁজে পাবে দর্শক। যা সবাই সহজে কানেক্টেড করতে পারবে৷

গল্পের খানিকটা ধারণা দিয়ে তরুণ এ নির্মাতা জানান, কোনও অজানা কারণে একটি মেয়ের স্বাভাবিক জীবন ব্যহত হয়। কিন্তু কী কারণ সেই রহস্য উদঘাটন করবে গল্পের প্রধান চরিত্রে থাকা সাজ্জাদ। আর নায়কের সহযোগিতায় মেয়েটি স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসবে। তবে এই পথ পাড়ি দেওয়া সহজ নয়, বাঁধা-বিপত্তিতে ঠাঁসা। তবে সেই সব বাঁধা অতিক্রম করার গল্পই ফুটে উঠবে সিনেমায়।

এদিকে নবাগত নায়ক সাজ্জাদের ভাষ্য, ‘এমআর নাইন- মাসুদ রানা’র মাধ্যমে আমার সিনেমায় পথচলা শুরু। চরিত্র ছোট হলেও বেশ গুরুত্বপূর্ণ। তাই বরাবরই ভিন্নধর্মী কাজের সঙ্গে নিজেকে সম্পৃক্ত করতে চাই। এতে সংখ্যা কম হলেও মানটা ধরে রাখা যায়। এজন্য অনেক ভেবেচিন্তে সিন্ধান্ত নিতে হয়েছে। চরিত্রের সঙ্গে নিজেকে মানানসই করতে প্রস্তুতি চলছে। আশা করব পর্দায় ভালো কিছু নিয়ে হাজির হতে পারব।

‘হাফ মুন’ সিনেমাটি ইংরেজি ও বাংলা দুই ভার্সনে নির্মিত হবে। এর স্ক্রিপ্ট লিখেছেন ইয়েমেনের হাতেম মানিয়া, যিনি হলিউডের সিনেমায় স্ক্রিপ্ট রাইটার হিসেবে কাজ করেন। এছাড়া এর বাংলা ভার্সনে কাজ করেছেন দেশের জনপ্রিয় চিত্রনাট্যকার নাজিম উদ দৌলা। সবকিছু ঠিক থাকলে জুলাইয়ের দিকে শুরু হবে দৃশ্যধারণ, চলবে বাংলাদেশ, লন্ডন ও দক্ষিণ আফ্রিকায়।


প্রথমবার মেয়ের সঙ্গে অভিনয়ে কিং খান

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
বিনোদন ডেস্ক

বলিউডের নামজাদা অভিনেতা ও প্রযোজক শাহরুখ খান। ভালোবেসে ভক্তরা তাকে কিং খান, বলিউড বাদশাসহ অনেক নামে ডাকেন। মাঝে প্রায় ৫ বছর পর আলোচনা থেকে পুরোপুরি দূরে ছিলেন তিনি। কিন্তু গত বছর ‘পাঠান’ ঝড়ে অতীতের সব ব্যর্থতা উড়িয়ে দিয়ে আবার চেনা ছন্দে ফিরে আসেন বলিউডের এই সুপাস্টার। বাবার পথেই হাঁটতে শুরু করেছেন শাহরুখকন্যা সুহানা খান। এরই মধ্যে একটি শর্ট ফিল্ম ও পূর্ণাঙ্গ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন এই স্টারকিড।

তবে চমকপ্রদ খবর হচ্ছে, প্রথমবার একই সিনেমায় মেয়ের সঙ্গে অভিনয় করতে যাচ্ছেন বলিউড বাদশা। যদিও গত বছরই ভারতীয় সংবাদমাধ্যম পিঙ্কভিলা জানিয়েছিল, সুজয় ঘোষের সিনেমায় একসঙ্গে দেখা যাবে শাহরুখ খান ও সুহানাকে। জানা গিয়েছিল অ্যাকশন থ্রিলার ঘরানার সিনেমাটির প্রযোজনার দায়িত্বে থাকবে শাহরুখের রেড চিলিজ এন্টারটেইনমেন্ট। খবরটি আবারও নিশ্চিত করে সিনেমার বিষয়ে আরও কিছু তথ্য প্রকাশ্যে এনেছে পিঙ্কভিলা। সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, ‘কিং’ শিরোনামের সিনেমাটির দৃশ্যধারণ শুরু হবে আগামী মে মাস থেকে।

রেড চিলিজ এন্টারটেইনমেন্টের সঙ্গে প্রযোজনায় আরও থাকবেন ‘পাঠান’ সিনেমার পরিচালক সিদ্ধার্থ আনন্দ। পিঙ্কভিলাকে একটি সূত্র জানিয়েছে, সিনেমাটি নিয়ে সিদ্ধার্থ আনন্দ এবং সুজয় ঘোষ নিয়মিত কথা বলছেন শাহরুখ এবং সুহানার সঙ্গে। ২০২৩-এর অক্টোবর থেকে ২০২৪-এর ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত একাধিক মিটিং হয়েছে তাদের। এখনো চিত্রনাট্য নিয়ে কাজ করছেন সুজয়।

অচিরেই ছবির শুটিংয়ের কাজ শুরু হবে। কিং ছবিটির জন্য প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন সুহানা খান। তিনি একাধিক ধরনের স্টান্ট শিখছেন। নিজ বাসভবন মান্নাতেই প্রশিক্ষণ চলছে সুহানার। বাবা শাহরুখ খানও থাকছেন কিছু কিছু সেশনে। বিশ্বমানের ট্রেনারদের অধীনে তাদের প্রশিক্ষণ চলছে।

এর আগে ভারতের আরেক সংবাদমাধ্যম জুম এক প্রতিবেদনে জানিয়েছিল, এপ্রিল থেকে শাহরুখ এবং সালমান খান তাদের টাইগার ভার্সেস ‘পাঠান’ সিনেমার শুটিং শুরু করবেন। যদি সেটা হয় তাহলে কি এক মাসেই সিনেমাটির কাজ শেষ করে তিনি কিংয়ে হাত দেবেন? সে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। যদিও পিঙ্কভিলা আরেকটি প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ২০২৪-এর ডিসেম্বর থেকে শাহরুখ আগে ‘পাঠান ২’-এর কাজ শুরু করবেন। তারপর এক বছরের বিরতি দিয়ে ২০২৬ সাল থেকে শুরু হবে টাইগার ভার্সেস পাঠান সিনেমার কাজ।

বিষয়:

আজম খান, সত্যিকারের এক রকস্টার

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
বিনোদন প্রতিবেদক

বাংলা পপগানের সম্রাট বলা হয় রকস্টার আজম খানকে। ব্যান্ডপ্রেমীদের কাছে তিনি গুরু বলে পরিচিত। তিনি পপগানকে বাংলাদেশে প্রতিষ্ঠিত করেছেন এবং সাধারণ মানুষের কাছেও পৌঁছে দিয়েছেন নতুন ধারার এই গান। আজম খান কেবল একজন শিল্পী নন, বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক ইতিহাসে, বাংলা গানের সামাজিক-রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে আজম খান একটি গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়, যা কোনোভাবেই উপেক্ষিত হতে পারে না। বীর মুক্তিযোদ্ধা ও পপসম্রাট আজম খানের জন্মদিন আজ। ১৯৫০ সালের এই দিনে (২৮ ফেব্রুয়ারি) ঢাকার আজিমপুর সরকারি কলোনিতে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তার পুরো নাম মাহবুবুল হক খান। বাবা আফতাব উদ্দিন আহমেদ ও মা জোবেদা খাতুন।

১৯৫৫ সালে প্রথমে আজিমপুরের ঢাকেশ্বরী স্কুলে ভর্তি হন। ১৯৫৬ সাল থেকে কমলাপুরে থাকতেন, আমৃত্যু সেখানেই ছিলেন তিনি। ১৯৬৯ সালের গণঅভ্যুত্থানের সময় আজম খান পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে অবস্থান নেন। তখন ক্রান্তি শিল্পীগোষ্ঠীর সক্রিয় সদস্য ছিলেন তিনি।

১৯৭০ সালে টিঅ্যান্ডটি কলেজ থেকে বাণিজ্য বিভাগে এইচএসসি উত্তীর্ণ হন। ১৯৭১ সালে সরাসরি মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন। কুমিল্লার সালদায় প্রথম সরাসরি যুদ্ধ করেন। দুই নম্বর সেক্টরের একটি সেকশনের ইনচার্জ ছিলেন। সেকশন কমান্ডার হিসেবে ঢাকা এবং আশপাশে বেশ কয়েকটি গেরিলা আক্রমণে অংশ নেন তিনি। যাত্রাবাড়ী-গুলশান এলাকার গেরিলা অপারেশনগুলো পরিচালনার দায়িত্ব পান। তার নেতৃত্বে সংঘটিত ‘অপারেশান তিতাস’। স্বাধীনতার পর তার ব্যান্ড ‘উচ্চারণ’ আলোড়ন তোলে। ১৯৭২ সালে ‘এত সুন্দর দুনিয়ায় কিছুই রবে না রে’ ও ‘চার কালেমা সাক্ষী দেবে’ গান দুটি বিটিভিতে প্রচারের পর ব্যাপক প্রশংসিত হয়।

পরবর্তীকালে ১৯৭৪ সালে বিটিভিতে ‘রেললাইনের ঐ বস্তিতে’ শিরোনামের গানটি গেয়ে আলোচনায় চলে আসেন তিনি। ১৯৮২ সালে ‘এক যুগ’ নামে তার প্রথম ক্যাসেট বের হয়। তার গাওয়া গানের প্রথম সিডি বের হয় ১৯৯৯ সালের ৩ মে ডিস্কো রেকর্ডিংয়ের প্রযোজনায়।

আজম খানের গাওয়া শ্রোতাপ্রিয় গানের তালিকায় রয়েছে- ‘আমি যারে চাইরে’, ‘ওরে সালেকা ওরে মালেকা’, ‘আলাল ও দুলাল’, ‘অ্যাকসিডেন্ট’, ‘অনামিকা’, ‘অভিমানী’, ‘আসি আসি বলে’, ‘হাইকোর্টের মাজারে’, ‘পাপড়ি’, ‘বাধা দিও না’, ‘যে মেয়ে চোখে দেখে না’ ইত্যাদি। গানের পাশাপাশি ১৯৮৬ সালে ‘কালা বাউল’ নামে হিরামন সিরিজের নাটকে অভিনয় করেন। ২০০৩ সালে শাহীন-সুমন পরিচালিত ‘গডফাদার’ সিনেমায় নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন। ২০০৩ সালে ক্রাউন এনার্জি ড্রিংকসের বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে মডেল হন। সর্বশেষ ২০১০ সালে কোবরা ড্রিংকসের বিজ্ঞাপনে মডেল হয়েছিলেন এই পপসম্রাট। ২০১০ সালে ক্যানসারে আক্রান্ত হন তিনি। ২০১১ সালের ৫ জুন পৃথিবীর মায়া ছেড়ে চলে যান তিনি। মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে সমাহিত করা হয় তাকে।

বিষয়:

banner close