আপডেট : ২৫ জানুয়ারি, ২০২৩ ১৮:৫৬
বিবিসির তথ্যচিত্র নিয়ে জেএনইউতে উত্তেজনা
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

বিবিসির তথ্যচিত্র নিয়ে জেএনইউতে উত্তেজনা

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে নিয়ে বিবিসির বিতর্কিত তথ্যচিত্র প্রদর্শনী নিয়ে দেশটির খ্যাতনামা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নয়াদিল্লির জওহরলাল নেহরু ইউনিভার্সিটিতে (জেএনইউ) উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। ছাত্রছাত্রীদের অভিযোগ, ওই তথ্যচিত্রের ভিডিও দেখানোর সময় গত মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তারা বিদ্যুৎ ও ইন্টারনেটের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন।

বিবিসির ওই তথ্যচিত্রে ২০০২ সালে গুজরাটে সংঘটিত দাঙ্গায় রাজ্যটির তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী মোদির ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে। জেএনইউর কর্মকর্তারা ছাত্রছাত্রীদের ওই অভিযোগ সম্পর্কে কোনো মন্তব্য করেননি।

বিবিসির ওই প্রামাণ্যচিত্রে বস্তুনিষ্ঠতা নেই এবং এটিকে ‘অপপ্রচারমূলক’ আখ্যা দিয়ে ভারতের কর্তৃপক্ষ তাৎক্ষণিক পদক্ষেপ নিয়ে ইউটিউব ও টুইটারে ভিডিওটির প্রচার বন্ধ করে দিয়েছে। জেএনইউর প্রশাসন ছাত্রছাত্রীদের ওই প্রামাণ্যচিত্রের ভিডিও প্রদর্শনী না করার আহ্বান জানিয়ে বলেছিল, এতে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের শান্তি ও সম্প্রতি নষ্ট হতে পারে।

বিদ্যুৎবিভ্রাটের কারণে জেএনইউ ক্যাম্পাসে প্রামাণ্যচিত্রটির প্রদর্শনী বিঘ্নিত হলেও ছাত্রনেতারা কিউআর কোড বিতরণ করে ব্যক্তিগত ল্যাপটপ ও স্মার্টফোনের মাধ্যমে ভিডিওটি দেখার বন্দোবস্ত করেন। ক্যাম্পাসে বিপুলসংখ্যক পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

‘ইন্ডিয়া: দ্য মোদি কোয়েশ্চান’ নামের দুই পর্বের তথ্যচিত্রটির প্রথম পর্ব গত ১৭ জানুয়ারি যুক্তরাজ্যে প্রকাশিত হয়। দ্বিতীয় পর্বটি গত মঙ্গলবার সম্প্রচার করে বিবিসি। ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ওই তথ্যচিত্রের তীব্র সমালোচনা করেছে।

বিবিসি বলছে, তারা ভারতের সংখ্যাগুরু হিন্দু ও সংখ্যালঘু মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে বিদ্যমান উত্তেজনা এবং তারই পরিপ্রেক্ষিতে নরেন্দ্র মোদির রাজনীতি নিয়ে দুই পর্বের অনুসন্ধানী প্রামাণ্যচিত্রটি তৈরি করেছে।