আপডেট : ৬ ডিসেম্বর, ২০২২ ১১:৩৬
তাজমহল যেমন আছে থাকতে দিন, ইতিহাস বদলানো যায় না: সুপ্রিম কোর্ট
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

তাজমহল যেমন আছে থাকতে দিন, ইতিহাস বদলানো যায় না: সুপ্রিম কোর্ট

ছবি: সংগৃহীত

তাজমহলের ইতিহাস ‘পুনরায় যাচাই করে’ দেখতে ‘জনস্বার্থে’ করা এক আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন ভারতের সুপ্রিম কোর্ট। বিচারপতি এমআর শাহ এবং বিচারপতি সিটি রবিকুমারের ডিভিশন বেঞ্চ আবেদনটি খারিজ করে দেন।

এ সময় বিচারপতি ৪০০ বছর পর নতুন করে আবার ইতিহাসের পাতা খুলে দেখা যায় না বলেও মন্তব্য করেন। একইসঙ্গে আবেদনকারীকে ভর্ৎসনা করেন আদালত। খবর আনন্দবাজার পত্রিকা ও টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

তাজমহলের ইতিহাস যাচাইয়ে আবেদনটি করেছিলেন সচ্চিদানন্দ পাণ্ডে নামের এক ব্যক্তি। আদালতে তার পক্ষে লড়েছেন আইনজীবী বরুণ কুমার সিন্হা।

সোমবার এই আবেদনের শুনানিতে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি আবেদনকারীর উদ্দেশে বলেন, ‘আপনি আবেদন জানিয়েছেন, ভুল ইতিহাস পরিবর্তন করতে হবে। তার মানে আপনি নিজেই ধরে নিয়েছেন, তাজমহলের ইতিহাস ভুল।’

শুনানিতে আদালত বলেন, ‘তাজমহল ৪০০ বছর ধরে রয়েছে। ওটা যেমন আছে, থাকতে দিন। আপনি এ বিষয়ে সিদ্ধান্তের ভার এএসআইয়ের (প্রত্নতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা) ওপর ছাড়ুন। সব কিছুতে আদালতকে টেনে আনবেন না। ৪০০ বছর পর ইতিহাসের পাতা নতুন করে খোলা যায় না। প্রত্নতত্ত্বের বিষয়ে আদালতের কোনো পারদর্শিতা নেই।’

তাজমহল সম্পর্কে ছোটদের বইতে যে ইতিহাস ছাপা হয়েছে, তা আদৌ ঠিক নয় বলে দাবি করেছিলেন সচ্চিদানন্দ। নতুন করে সেই ইতিহাস খতিয়ে দেখে পাঠ্যবইয়ে ‘বস্তুনিষ্ঠ’ ইতিহাসের অবতারণা করা প্রয়োজন বলে জানিয়েছিলেন তিনি।

উত্তর প্রদেশের যমুনা পাড়ে আগ্রার এই স্থাপত্যের বয়স অনেক পুরোনো। মুঘল আমলের আগে থেকেই এই মহলের অস্তিত্ব রয়েছে। মুঘল সম্রাট শাহজাহান তার প্রয়াত স্ত্রী মমতাজের স্মৃতির উদ্দেশে তাজমহল তৈরি করেছিলেন বলে লেখা আছে ইতিহাসে।

তাজমহলের নির্দিষ্ট কয়েকটি ঘর খুলে দেখার জন্য এর আগেও আবেদন জানিয়ে দেশটির শীর্ষ আদালতে মামলা হয়েছিল। ওই মামলায় বলা হয়েছিল, তাজমহলের জায়গায় আগে একটি শিব মন্দির ছিল, যার নাম তেজো মহালয়। সুপ্রিম কোর্টের একই বেঞ্চ ওই মামলাও খারিজ করে দেন।