আপডেট : ৬ ডিসেম্বর, ২০২২ ১২:২৬
ইউক্রেনে ফের রুশ ক্ষেপণাস্ত্র হামলা, পুরো বন্ধের পথে বিদ্যুৎ ব্যবস্থা
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

ইউক্রেনে ফের রুশ ক্ষেপণাস্ত্র হামলা, পুরো বন্ধের পথে বিদ্যুৎ ব্যবস্থা

হামলার পর ঘটনাস্থলের চিত্র। ছবি: ভিডিও থেকে নেয়া

ইউক্রেনে আবারও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা করেছে রাশিয়া। বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, আট সপ্তাহে অষ্টমবারের মতো সোমবারের এই হামলা চালানো হলো। হামলায় ইউক্রেনের, বিশেষ করে পূর্বাঞ্চলের বিদ্যুৎ ব্যবস্থা ভয়াবহভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। ফলে জরুরি ভিত্তিতে ওই এলাকায় পুরো বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করে দিতে হচ্ছে কিয়েভ প্রশাসনকে।

স্থানীয় কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে দেশটির প্রেসিডেন্ট ভ্‌লোদিমির জেলেনস্কি বলেছেন, কয়েক দিনের মধ্যে কিয়েভের অর্ধেকের বেশি বাসিন্দা বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

হামলায় এ পর্যন্ত অন্তত চারজন নিহত হয়েছেন। তবে এর আগের হামলাগুলোর চেয়ে সোমবারের আক্রমণে তুলনামূলক কম ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

এর আগে রাশিয়ার সংবাদমাধ্যমে বলা হয়, দেশটির দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে সামরিক বাহিনীর দুটি বিমানঘাঁটিতে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এতে বেশ কয়েকজন নিহত হয়েছেন।

এই দুটো জায়গাই ইউক্রেনের সীমান্ত থেকে কয়েকশ’ কিলোমিটার দূরে। এ ঘটনায় ইউক্রেনকে দায়ী করে মস্কো।

ইউক্রেনের দাবি, রাশিয়ার ছোড়া ৭০টি ক্ষেপণাস্ত্রের মধ্যে ৬০টিই ভূপতিত করেছে তারা। মস্কো বলছে, তারা ১৭টি ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়েছে, আর সবকটিই লক্ষ্যবস্তুতে পৌঁছেছে।

সোমবার এক ভিডিও বার্তায় ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভ্‌লোদিমির জেলেনস্কি বলেছেন, হামলায় পার্শ্ববর্তী দেশ মলদোভার বিদ্যুৎ ব্যবস্থাও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

রুশ হামলাকে ‘সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড’ উল্লেখ করে জেলেনস্কি বলেন, আবারও প্রমাণিত হলো রাশিয়ার এই কর্মকাণ্ড শুধু ইউক্রেন নয়, পুরো অঞ্চলের জন্য হুমকি।’

এর আগেও রাশিয়ার হামলায় ইউক্রেনে বিদ্যুৎ ব্যবস্থা ক্ষতিগ্রস্ত হয়। বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়ায় ভয়াবহ শীতে লক্ষ লক্ষ মানুষকে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

ইউক্রেনের অনেক অঞ্চলে এখন তুষারপাত হচ্ছে। ফলে ওই সব এলাকায় শূন্যেরও নিচে তাপমাত্রা বিরাজ করছে। লক্ষ লক্ষ মানুষ বিদ্যুৎ এবং পানি ছাড়াই দিন কাটাচ্ছেন। এ অবস্থায় হাইপোথার্মিয়ায় আক্রান্ত হয়ে বহু লোক মারা যেতে পারে বলে আশঙ্কা রয়েছে।