আপডেট : ৬ ডিসেম্বর, ২০২২ ২১:৩৩
শিরিনের মৃত্যু নিয়ে আইসিসির কাছে আল-জাজিরা
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

শিরিনের মৃত্যু নিয়ে আইসিসির কাছে আল-জাজিরা

২৫ বছর ধরে আল-জাজিরার হয়ে সাংবাদিকতা করেছেন ফিলিস্তিনি বংশোদ্ভূত শিরিন আবু আকলেহ। গত ১১ মে ইসরায়েলি বাহিনীর গুলিতে তার মৃত্যু হয়। ছবি: আল-জাজিরা

সাংবাদিক শিরিন আবু আকলেহ হত্যার বিষয়টি তদন্তের জন্য আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (আইসিসি) কাছে একটি আনুষ্ঠানিক অনুরোধ জমা দিয়েছে কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আল-জাজিরা।

গত সোমবার প্রতিষ্ঠানটি তাদের কর্মী হত্যার বিচারের দাবিতে আইসিসির কাছে এ অনুরোধ জানায়।

গত ১১ মে ফিলিস্তিনের দখলকৃত পশ্চিম তীরের জেনিন শহরে ইসরায়েলি বাহিনীর একটি অভিযানের সংবাদ সংগ্রহের সময় শিরিন আবু আকলেহ (৫১) গুলিতে নিহত হন।

শিরিন ঘটনার সময় ‘প্রেস’ লেখা জ্যাকেট ও হেলমেট পরা ছিলেন। ফিলিস্তিনের করা তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শিরিন একটি রুগার মিনি-১৪ রাইফেল থেকে ছোড়া ৫ দশমিক ৫৬ মিলিমিটার আর্মার পিয়ার্সিং বুলেটের আঘাতে নিহত হন। অস্ত্র ও এর ধরন, দূরত্ব এবং ইসরায়েলি সেনাদের দৃষ্টিসীমায় কোনো বাধাও ছিল না। শিরিনকে হত্যার ঠিক আগমুহূর্তে ধারণ করা একটি ভিডিওচিত্রে দেখা গেছে, হত্যাকাণ্ডের সময় আশপাশের অবস্থা ছিল তুলনামূলক শান্ত ও নীরব। অথচ ইসরায়েলি বাহিনীর দাবি ছিল, ওই সময় গোলাগুলি চলছিল।

এ দাবি ঘটনার ওপর পাওয়া ভিডিওচিত্রের সম্পূর্ণ বিপরীত। ইসরায়েলি বাহিনীর গুলিতেই শিরিন প্রাণ হারান বলে ঘটনাস্থলে থাকা তার সহকর্মী ও প্রত্যক্ষদর্শীরাও জানিয়েছেন। ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষ (পিএ) এবং আল-জাজিরা এ হত্যাকাণ্ডের জন্য সরাসরি ইসরায়েলকে দায়ী করেছে।

আইসিসির কাছে করা এই অনুরোধটিতে আল-জাজিরার গত ছয় মাসের তদন্তের একটি বিস্তৃত বিবরণ উপস্থাপন করেছে। যেখানে ওই ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীর বর্ণনা, ভিডিও ফুটেজসহ অনেক নতুন তথ্যসহ শিরিনের হত্যাকাণ্ডের সম্পূর্ণ প্রমাণাদি উপস্থাপন করা হয়েছে। আইসিসির কাছে জমা দেয়া অনুরোধটি ‘আল-জাজিরা এবং ফিলিস্তিনের সাংবাদিকদের ওপর ব্যাপক হামলার প্রেক্ষাপটে’ উপস্থাপন করা হয়েছে।

আল-জাজিরার আইনজীবী রডনি ডিক্সন কেসি জানান, ২০২১ সালের ৫ মে গাজায় আল-জাজিরার কার্যালয়ে বোমা হামলা ও ফিলিস্তিনে তাদের সাংবাদিকদের বিভিন্ন সময় হামলার শিকার হওয়ার মতো বিভিন্ন বিষয় উল্লেখ করে আইসিসির কাছে তদন্তের আবেদন জমা দেয়া হয়েছে।

গত ২৫ বছর ধরে শিরীন আল-জাজিরার হয়ে সাংবাদিকতা করেছেন। জেরুজালেমের স্থানীয় এবং মার্কিন নাগরিক শিরিন আবু আকলেহ তার পরিবারের কাছে এবং পেশাগতভাবে একজন সম্মানিত ব্যক্তি ছিলেন বলে জানিয়েছে আল-জাজিরা। তিনি বিভিন্ন সময় ইসরায়েলি দখলদারত্বের খবর সংগ্রহের সময় ফিলিস্তিনিদের হয়ে কণ্ঠ দিয়েছেন।