বুধবার, ৪ অক্টোবর ২০২৩

সিরিয়ায় ফের ইসরায়েলি হামলা

রোববার (স্থানীয় সময়) রাত পৌনে ১২টার দিকে ইসরায়েলি বাহিনী বিমান হামলা চালায়। ছবি: সংগৃহীত
আপডেটেড
২৯ মে, ২০২৩ ১৮:০৫
দৈনিক বাংলা ডেস্ক
প্রকাশিত
দৈনিক বাংলা ডেস্ক
প্রকাশিত : ২৯ মে, ২০২৩ ১৮:০৫

সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কের বিভিন্ন স্থাপনা লক্ষ্য করে গত রোববার রাতে ‘ইসরায়েলি আগ্রাসন’ চালানো হয়েছে। তবে এতে কেউ হতাহত হননি। দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, স্থানীয় সময় রাত ১১টা ৪৫ মিনিটের দিকে ইসরায়েলি বাহিনী বিমান হামলা চালায়।

দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় আরও জানায়, ‘দামেস্কের আশপাশের নির্দিষ্ট কিছু স্থাপনা’ লক্ষ্য করে এ হামলা চালানো হয়। এ সময় বিমান বিধ্বংসী প্রতিরক্ষাব্যবস্থা কার্যকর করে ইসরায়েলের বেশ কয়েকটি ক্ষেপণাস্ত্র ভূপাতিত করা হয়।

মার্চ মাসের পর দামেস্কে এটি ছিল প্রথম বিমান হামলার ঘটনা। গত ২ মে সিরিয়ায় ইসরায়েলের সর্বশেষ বিমান হামলায় সাতজন নিহত হন।

২০১১ সালে সিরিয়ায় গৃহযুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে ইসরায়েল সিরিয়ার বিভিন্ন স্থাপনার পাশাপাশি দামেস্কের মিত্র এবং ইসরায়েলের চিরশত্রু ইরান ও লেবাননের হিজবুল্লাহ বাহিনীর বিরুদ্ধে শত শতবার বিমান হামলা চালায়।

ইসরায়েল খুব কমই তাদের বিমান হামলার বিষয়ে মন্তব্য করে। তবে দেশটি জানায়, তারা তাদের দোরগোড়ায় ইরানের অবস্থান প্রতিরোধ করতে চায়।


পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল পেলেন তিন বিজ্ঞানী

আপডেটেড ৩ অক্টোবর, ২০২৩ ১৭:৫৫
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

এ বছর পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন তিন দেশের তিন বিজ্ঞানী। এরা হলেন যুক্তরাষ্ট্রের পিয়েরে অ্যাগোস্টিনি, হাঙ্গেরির ফেরেঙ্ক ক্রজ এবং ফ্রান্সের অ্যানে ল’হুইলিয়ার। ইলেকট্রন ডাইনামিকসের ওপর গবেষণায় তাদের এই পুরস্কার দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে রয়্যাল সুইডিশ অ্যাকাডেমি অব সায়েন্সেস আনুষ্ঠানিকভাবে তিন পুরস্কারজয়ীর নাম ঘোষণা করে।

ইলেকট্রন সাধারণত এত দ্রত চলাচল করে যে এটির গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করার বিষয়টি আগে প্রায় অসম্ভব মনে করা হতো। তবে পুরস্কারজয়ী তিন পদার্থবিদ এমন আলোর ফ্ল্যাশ (ঝলকানি) তৈরি করেছেন, যেগুলো ওই অতি দ্রুতবেগের ইলেকট্রনেরও স্ন্যাপশট নিতে পারে। অর্থাৎ তাদের তৈরি ফ্ল্যাশ এতটাই ছোট যে, এগুলো অ্যাটোসেকেন্ডে মাপা যায়। ফলে এসব পালস পরমাণু এবং অণুর ছবির ক্ষেত্রে কাজে লাগানো যাবে।

মানব সভ্যতাকে ইলেকট্রনের রাজ্যে প্রবেশের নতুন উপকরণ দেওয়ায় এই তিন বিজ্ঞানীর প্রশংসা করেছে পুরস্কারদাতা রয়্যাল সুইডিশ অ্যাকাডেমি।


দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় প্রথম বুলেট ট্রেন চালু করল ইন্দোনেশিয়া

ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৩৫০ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করা বুলেট ট্রেন ‘হুশ’। ছবি: এএফপি
আপডেটেড ২ অক্টোবর, ২০২৩ ২২:৩৭
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার প্রথম সর্বোচ্চ গতির বুলেট ট্রেন চালু করেছে ইন্দোনেশিয়া। চীনের অর্থায়নে সোমবার যাত্রা শুরু করে এই ট্রেন। চীনের সহযোগিতায় মাল্টি বিলিয়ন ডলারের এই প্রকল্পকে প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো ‘দেশের আধুনিকীকরণের প্রতীক’ হিসেবে বর্ণনা করে এটিকে স্বাগত জানিয়েছেন। বার্তা সংস্থা এএফপি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৩৫০ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করা বুলেট ট্রেন ‘হুশ’ রাজধানী জাকার্তা ও বান্দুংয়ের মধ্যে চলাচল করবে। এই দুই নগরীর মধ্যে চলাচলে ট্রেনটির সময় লাগবে মাত্র ৪৫ মিনিট। ১৪০ কিলোমিটার দূরত্বের এই পথ পাড়ি দিতে আগে সময় লাগত প্রায় তিন ঘণ্টা।

রাজধানীর প্রধান স্টেশনে এক অনুষ্ঠানে ইউদোদো বলেন, ‘জাকার্তা-বান্দুং হাই-স্পিড ট্রেনটি আমাদের দক্ষ, বন্ধুসুলভ এবং সমন্বিত গণপরিবহন ব্যবস্থার একটি নিদর্শন। এটি গণপরিবহনের ক্ষেত্রে আমাদের দেশের আধুনিকীকরণের প্রতীক, যা অন্যান্য পরিবহনের সঙ্গে নির্বিঘ্নে সংযোগ স্থাপন করছে।’

ইউদোদো বলেন, ৬০০ যাত্রী পরিবহন ক্ষমতার ট্রেনটি দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সর্বোচ্চ গতির একটি পরিবহন।

প্রাথমিকভাবে প্রকল্পটির ব্যয় ধরা হয়েছিল পাঁচ বিলিয়ন ডলার এবং ২০১৯ সালের মধ্যেই এটির নির্মাণকাজ শেষ করার কথা ছিল।

তবে নির্মাণসংক্রান্ত বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ থাকার এবং মহামারি করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার কারণে এটির কাজ শেষ করতে বেশি সময় লাগে এবং ব্যয়ও অনেক বেড়ে যায়।


মিসরে পুলিশ ভবনে ভয়াবহ আগুন

স্থানীয় সময় সোমবার ভোরে লাগা আগুন পুরো ভবনে ছড়িয়ে পড়ে। ছবি: এএফপি
আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

মিসরের ইসমাইলিয়া শহরে পুলিশের সদর দপ্তরে স্থানীয় সময় সোমবার ভোরে এক ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। দুর্ঘটনায় অন্তত ২৫ জন আহত হয়েছেন। বার্তা সংস্থা এএফপি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

নিরাপত্তা বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, তাৎক্ষণিকভাবে সোমবারের ওই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় কোনো হতাহত অথবা ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি। আগুন লাগার কারণ এখনো জানা যায়নি। ভবনটিতে সবসময় সৈন্যরা কর্মরত থাকে। তাই আশপাশের হাসপাতালগুলোকে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে।

স্থানীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, বহুতল ভবনের প্রায় পুরো অংশ থেকে কালো ধোঁয়া বের হচ্ছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচারিত ছবিগুলোতে ভবনের বেশকটি তলায় আগুন জ্বলতে দেখা গেছে। রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম ও কর্তৃপক্ষ এখন পর্যন্ত অগ্নিকাণ্ডের বিষয়ে কোনো আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দেয়নি।

স্থানীয় সূর্যোদয়ের আগে আগুনের সূত্রপাত হয়। রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ঘটনাস্থলে ৩০টি অ্যাম্বুলেন্স ও দুটি সামরিক উড়োজাহাজ মোতায়েন করেছে।

মিসরে ভয়াবহ আগুনের ঘটনা প্রায়ই ঘটে। দেশটিতে অগ্নিনিরাপত্তাবিধি খুব একটা মেনে চলা হয় না এবং দুর্ঘটনা-পরবর্তী সময়ে জরুরি সেবাদাতারাও ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছাতে দেরি করে থাকে।

২০২২-এর আগস্টে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুন লেগে কায়রোর এক গির্জায় ৪১ পুণ্যার্থী নিহত হন। ২০২১-এর মার্চে এক পোশাক কারখানায় ২০ জন ও ২০২০ সালে হাসপাতালে আগুন লেগে ১৪ জন নিহত হন।


করোনার টিকা নিয়ে গবেষণা, চিকিৎসায় নোবেল পেলেন ২ বিজ্ঞানী

সোমবার সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে নোবেল পুরস্কার কমিটি আনুষ্ঠানিকভাবে চিকিৎসাবিদ্যায় নোবেলজয়ী দুজনের নাম ঘোষণা করে।
আপডেটেড ২ অক্টোবর, ২০২৩ ১৭:৩০
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

করোনাভাইরাস প্রতিরোধী এমআরএনএ টিকা নিয়ে গবেষণার জন্য এ বছর চিকিৎসায় নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন দুই বিজ্ঞানী। সোমবার বিবিসি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

নিউক্লিওসাইড বেজ মডিফিকেশন সংক্রান্ত আবিষ্কারের জন্য কাতালিন কারিকো ও ড্রু ওয়েইজম্যান চিকিৎসায় ২০২৩ সালের নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন। নোবেল পুরস্কারের ওয়েবসাইটে এ তথ্য জানানো হয়েছে। তাদের এ আবিষ্কারের ওপর ভর করে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে কার্যকর এমআরএনএ টিকা উদ্ভাবন করা হয়। এ বছর চিকিৎসায় যৌথভাবে নোবেলজয়ী কাতালিন কারিকো ১৯৫৫ সালে হাঙ্গেরির সয়নক এলাকায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯৮২ সালে হাঙ্গেরির সিইজডস ইউনিভার্সিটি থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন।

তিনি ১৯৮৫ সালে সিইজডের হাঙ্গেরিয়ান অ্যাকাডেমি অব সায়েন্সেস থেকে পোস্ট ডক্টরাল গবেষণা করেন। পরে যুক্তরাষ্ট্রের ফিলাডেলফিয়ার টেম্পল ইউনিভার্সিটি এবং বেথেসডার ইউনিভার্সিটি অব হেলথ সায়েন্সে পোস্ট ডক্টরাল গবেষণা করেন কাতালিন কারিকো। কাতালিন কারিকো ১৯৮৯ সালে যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভেনিয়া ইউনিভার্সিটির সহকারী অধ্যাপক হিসেবে যোগ দেন। ২০১৩ সাল পর্যন্ত তিনি সেখানে কর্মরত ছিলেন। এরপর তিনি বায়োএনটেক আরএনএ ফার্মাসিউটিক্যালসের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০২১ সাল থেকে সিইজড ইউনিভার্সিটিতে অধ্যাপনা করছেন কাতালিন। একই সঙ্গে তিনি পেনসিলভেনিয়া ইউনিভার্সিটির পেরেলম্যান স্কুল অব মেডিসিনের অ্যাডজাঙ্কট প্রফেসর হিসেবেও কাজ করছেন এ বিজ্ঞানী।

অন্যদিকে চিকিৎসায় আরেক নোবেলজয়ী ড্রু ওয়েইজম্যানের জন্ম ১৯৫৯ সালে যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটসের লেক্সিংটনে। তিনি ১৯৮৭ সালে বোস্টন ইউনিভার্সিটি থেকে এমডি ও পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন। ড্রু ওয়েইজম্যান হার্ভার্ড মেডিকেল স্কুলের বেথ ইসরায়েল ডিকনেস মেডিকেল সেন্টার থেকে ক্লিনিক্যাল ট্রেনিং এবং ন্যাশনাল ইনস্টিটিউটস অব হেলথ থেকে পোস্ট ডক্টরাল গবেষণা করেন। ১৯৯৭ সালে পেনসিলভ্যানিয়া ইউনিভার্সিটির পেরেলম্যান স্কুল অব মেডিসিনে গবেষণা দল গড়েন ওয়েইজম্যান। পাশাপাশি ভ্যাকসিন রিসার্চ সেন্টারের রবার্টস ফ্যামিলি প্রফেসর এবং পেন ইনস্টিটিউট ফর আরএনএ ইনোভেশনসের পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

১৯০১ সাল থেকে চিকিৎসায় নোবেল পুরস্কার দেয়া হচ্ছে। কাতালিন কারিকোসহ এ পর্যন্ত ১২ জন নারী চিকিৎসায় নোবেল পেয়েছেন। চিকিৎসায় সর্বকনিষ্ঠ নোবেলজয়ী হরেন ফ্রেডরিক জি. ব্যান্টিং। তিনি ইনসুলিন আবিষ্কারের জন্য ১৯২৩ সালে নোবেল পেয়েছিলেন। চিকিৎসায় সবচেয়ে বেশি বয়সী নোবেলজয়ীর নাম পেটন রৌস। ৮৭ বছর বয়সে এ পুরস্কার পান তিনি।

সুইডিশ বিজ্ঞানী আলফ্রেড নোবেলের নামে তারই রেখে যাওয়া অর্থে ১৯০১ সাল থেকে নোবেল পুরস্কার দেয়া শুরু হয়। প্রতি বছর চিকিৎসা, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, সাহিত্য, শান্তি ও অর্থনীতিতে দেয়া হয় বিশ্বের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ এই পুরস্কার। ১৮৯৫ সালে এক উইলে ‘মানবজাতির সর্বোচ্চ সেবায় অবদান রাখা’ ব্যক্তিদের জন্য এই পুরস্কার নিবেদিত করেছেন আলফ্রেড নোবেল। নোবেল পুরস্কারের মধ্যে চিকিৎসাশাস্ত্রের পুরস্কারটি সোমবার সুইডেনের স্টকহোমে ঘোষণা করা হয়। মঙ্গলবার ঘোষণা করা হবে পদার্থবিজ্ঞানের পুরস্কার। বুধবার রসায়ন ও বৃহস্পতিবার ঘোষণা করা হবে সাহিত্যের পুরস্কার। আগামী শুক্রবার অসলো থেকে ঘোষণা করা হবে বহুল কাঙ্ক্ষিত নোবেল শান্তি পুরস্কার। আর অর্থনীতির পুরস্কারটি ঘোষণা করা হবে ৯ অক্টোবর।


শেষ মূহূর্তে শাটডাউন এড়াল যুক্তরাষ্ট্র সরকার

সংগৃহীত ছবি
আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসে গত শনিবার রাতে আপৎকালীন তহবিল বিল পাসের মধ্য দিয়ে শাটডাউন এড়াতে পারল মার্কিন সরকার।

বিবিসি জানায়, এক দশকের মধ্যে চতুর্থ শাটডাউনের শঙ্কায় পড়েছিল যুক্তরাষ্ট্র। শেষ পর্যন্ত প্রতিনিধি পরিষদ ও সিনেট কেন্দ্রীয় সরকারকে অর্থায়নে সংক্ষিপ্ত সময়ের তহবিল জোগানোর বিলে সম্মত হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে স্পিকার কেভিন ম্যাককার্থি ভোটাভুটির ক্ষেত্রে রিপাবলিকান পার্টির কট্টরপন্থি আইনপ্রণেতাদের মতামতকে অগ্রাহ্য করেন। আগামী ১৭ নভেম্বর নাগাদ কেন্দ্রীয় সরকার পরিচালনার অর্থ জোগাতে নিম্নকক্ষে ৩৩৫-৯১ ভোটে বিল পাস হয়। এতে রিপাবলিকানদের চেয়ে ডেমোক্রেটিক পার্টির আইনপ্রণেতাদের ভোট বেশি ছিল। কংগ্রেসের ডেমোক্র্যাট নিয়ন্ত্রিত উচ্চকক্ষ সিনেটে বিলটি ৮৮-৯ ভোটে পাস হয়। সেই বিলকে আইনে পরিণত করতে নির্ধারিত সময়সীমা গত শনিবার স্থানীয় সময় রাত ১২টা ১ মিনিটের আগেই প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কাছে পাঠানো হয়।

অবশেষে বাইডেনের স্বাক্ষরের পর সব শঙ্কার অবসান হয়। শাটডাউন হলে কেন্দ্রীয় সরকারের অধীনে কাজ করা ৪০ লাখ কর্মীর বেতন-ভাতা বন্ধ হয়ে যেত। শাটডাউনে বন্ধ হয়ে যেতে জাতীয় পার্ক থেকে আর্থিক নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠানের মতো অনেক দপ্তরের সেবা। সম্ভাব্য শাটডাউনের কথা মাথায় রেখে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় বিভিন্ন সংস্থা কোন কোন সেবা বন্ধ হবে এবং কোনগুলো চালু থাকবে, তার তালিকাও করে রেখেছিল।


মালদ্বীপে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে চীনপন্থি মুইজ্জু জয়ী

সংগৃহীত ছবি
আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

মালদ্বীপে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিজয়ী হয়েছেন বিরোধী শিবিরের প্রার্থী মোহাম্মদ মুইজ্জু। তিনি চীনপন্থি নেতা হিসেবে সুপরিচিত। মুইজ্জুর জয়ে ভারত মহাসাগরীয় দ্বীপরাষ্ট্রটি তার ঐতিহ্যবাহী অংশীদার ভারতের বদলে চীনের প্রভাব বলয়ের মধ্যে ঢুকবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বিবিসি জানায়, দ্বিতীয় দফার ভোটাভুটিতে ৫৪ শতাংশ ভোট পেয়ে মুইজ্জু তার জয় নিশ্চিত করেন। বর্তমান প্রেসিডেন্ট মালদ্বীপ ডেমোক্রেটিক পার্টির (এমডিপি) ইব্রাহিম মোহাম্মদ সোলিহ তার পরাজয় স্বীকার করে নিয়েছেন এবং মুইজ্জুকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। আগামী ১৭ নভেম্বর মালদ্বীপের নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেবেন মুইজ্জু। এর আগ পর্যন্ত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রেসিডেন্ট হিসেবে সোলিহ দায়িত্বে থাকবেন।

ভারত মহাসাগরের মধ্যে কৌশলগত একটি গুরুত্বপূর্ণ অবস্থানে রয়েছে মালদ্বীপ। এটি বিশ্বের ব্যস্ততম পূর্ব-পশ্চিম শিপিং লেনগুলোর একটি। মালদ্বীপে প্রভাব বাড়াতে এশিয়ার দুই শক্তিশালী দেশ ভারত ও চীনের প্রবল প্রতিদ্বন্দ্বিতা রয়েছে। এক অর্থে, মালদ্বীপের এবারের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ঘিরে চীন ভারতের শক্তিমত্তার খেলার লড়াই হয়।

বিরোধী জোট প্রোগ্রেসিভ অ্যালায়েন্স কোয়ালিশনের নেতা মুইজ্জু আবার চীনের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নত করার পক্ষপাতী। ৪৫ বছর বয়সী এই নেতা রাজধানী মালের বর্তমান মেয়র। এবারের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তিনি ‘ভারত হটাও’ স্লোগানে প্রচারণা চালিয়েছেন। যুক্তরাজ্যের লিডস বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তিনি সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ডক্টরেট ডিগ্রি অর্জন করেছেন। তিন সন্তানের বাবা মুইজ্জু ২০১২ সালে রাজনীতিতে প্রবেশ করেন।

অন্যদিকে ২০১৮ সালে সোলিহ ক্ষমতায় আসার পর থেকে ভারতের সঙ্গে সাংস্কৃতিক ও অর্থনৈতিক ঘনিষ্ঠতা বাড়িয়ে তুলেছেন। তিনি একে ‘ইন্ডিয়া ফার্স্ট’ পলিসি হিসেবে আখ্যায়িত করেন। সোলিহ এবার বিজয়ী হলে দ্বীপরাষ্ট্রটিতে ভারতের প্রভাবই বজায় থাকত।

গত ৯ সেপ্টেম্বর মালদ্বীপে প্রথম দফার প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। দেশটির নিয়মানুযায়ী ভোটে কোনো প্রার্থী একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা (৫০ শতাংশের বেশি ভোট) না পেলে নির্বাচন দ্বিতীয় দফায় গড়ায়। সে ক্ষেত্রে নির্বাচনে প্রথম ও দ্বিতীয় স্থান অর্জনকারী প্রার্থীর মধ্যে গত শনিবার দ্বিতীয়বার প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়। প্রথম দফার নির্বাচনে মোহাম্মদ মুইজ্জু (৪৫) পেয়েছিলেন ৪৬ শতাংশ ভোট। আর সোলিহ ৩৯ শতাংশ।
দ্বিতীয় দফায় মোহাম্মদ মুইজ্জু পেয়েছেন ৫৪ শতাংশ ভোট। সোলিহ (৬১) ৪৬ শতাংশ ভোট পেয়ে পরাজিত হলেন।


বাধ্য হয়েই কানাডার নাগরিকদের ভিসা বন্ধ করেছি: জয়শঙ্কর

সংগৃহীত ছবি
আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর বলেছেন, তারা বাধ্য হয়েই কানাডার নাগরিকদের জন্য ভিসা পরিষেবা বন্ধ করেছেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা জানায়, ব্রিটিশ কলম্বিয়ায় শিখ নেতা হরদীপ সিং নিজ্জর হত্যাকাণ্ড ঘিরে ভারত-কানাডা কূটনৈতিক বিরোধ চলছে। এমন ‍পরিস্থিতিতে কানাডার নাগরিকদের জন্য ভিসা পরিষেবা বন্ধ করে দিয়েছে নয়াদিল্লি। এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটনে ভারতীয় সংবাদিকদের সামনে প্রথমবার নীরবতা ভাঙলেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জয়শঙ্কর। তিনি বলেন, ‘বাধ্য হয়েই এমন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। আমাদের কূটনীতিক, দূতাবাসের ওপরে সহিংসতার প্রচার করা হচ্ছিল। কীভাবে দূতাবাস কর্মীরা দপ্তরে গিয়ে ভিসা দেয়ার কাজ করবেন। এটা আইনশৃঙ্খলার প্রশ্ন। ভিয়েনা চুক্তির প্রশ্ন। ভিয়েনা চুক্তি অনুযায়ী আমাদের কূটনীতিক, দূতাবাসকে নিরাপত্তা দিতে হবে।’ অন্য দেশের কূটনীতিক, দূতাবাস, নাগরিকদের হিংসার আশঙ্কার মুখে পড়তে হলে তাদের কী প্রতিক্রিয়া হতো, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন জয়শঙ্কর।

গত ১৮ সেপ্টেম্বর কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো খালিস্তানপন্থি আন্দোলনকারী শিখ নেতা নিজ্জরের হত্যায় ভারতের হাত রয়েছে বলে অভিযোগ তোলেন। ভারত অবশ্য সে অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে। কানাডার নাগরিকদের জন্য ভিসা পরিষেবা বন্ধ করে দিয়েছে নয়াদিল্লি। খালিস্তানপন্থি আন্দোলনকারীদের কানাডার মদদ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে ভারত।

কানাডা প্রসঙ্গে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেনের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে বলে জয়শঙ্কর নিজেই জানিয়েছেন। ওয়াশিংটনে সাংবাদিকদের জয়শঙ্কর বলেছেন, ‘কানাডা সম্পর্কে ভারত ও যুক্তরাষ্ট্রের দৃষ্টিভঙ্গিতে ফারাক রয়েছে। এ নিয়ে কথা বলা প্রয়োজন। যুক্তরাষ্ট্র কানাডার ঘনিষ্ঠ। ভারতের বন্ধু। বাস্তব পরিস্থিতি হলো, কানাডার সঙ্গে সমস্যা চলছে। সন্ত্রাসবাদ, চরমপন্থার প্রতি কানাডার মনোভাব নিয়ে সমস্যা। কানাডায় লুকিয়ে থাকা জঙ্গিদের ভারতে ফেরানোর অনুরোধ কানাডা বিবেচনা করেনি। কানাডায় বেআইনি কাজকারবার চলছে।’ জয়শঙ্কর বলেছেন, বাকস্বাধীনতার অর্থ সন্ত্রাসবাদে উস্কানি নয়। ভারত গণতান্ত্রিক দেশ। বাকস্বাধীনতা কী, তা ভারতের অন্য কারও থেকে শেখার প্রয়োজন নেই। বাকস্বাধীনতার সুযোগ নিয়ে সন্ত্রাসবাদে উস্কানি দেয়া হলে সেটা স্বাধীনতার অপব্যবহার।

বিষয়:

স্পেনে নাইট ক্লাবে আগুনে ১১ জনের মৃত্যু

সংগৃহীত ছবি
আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

স্পেনের একটি নাইট ক্লাবে আগুনে অন্তত ১১ জন প্রাণ হারিয়েছেন। রোববার দেশটির দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় শহর মুরসিয়ায় এই অগ্নিকাণ্ড হয়।

বিবিসি জানায়, আটালায়াস এলাকায় অবস্থিত জনপ্রিয় টিয়েটার নাইট ক্লাবে রোববার স্থানীয় সময় সকাল ৬টার দিকে আগুন লাগে। খবর পেয়ে উদ্ধারে যান উদ্ধারকারী কর্মীরা। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। আগুনের পর এখনো যারা নিখোঁজ রয়েছেন তাদের সন্ধানের অভিযান চলছে বলে জানিয়েছে জরুরি সেবা কর্তৃপক্ষ।

মুরসিয়ার মেয়র হোসে ব্যালেস্তা অগ্নিকাণ্ডে মৃত্যুর ঘটনায় শহরে তিন দিনের শোক ঘোষণা করেছেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এক্স-এ তিনি বলেন, আমরা বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছি। উদ্ধারকারীরা এখনো বেশ কয়েকজনকে খুঁজছেন। জরুরি সেবা কর্তৃপক্ষ বলছে, দুর্ঘটনার দুই ঘণ্টা পর নাইট ক্লাবটিতে ঢুকে চারজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে উদ্ধার হয় আরও দুই মরদেহ। চারজনকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। আগুনের কারণ তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি। প্রিয়জনদের সন্ধানে হাসপাতালে ভিড় করছেন স্বজনরা।


ভারতে আফগান দূতাবাস বন্ধ

ছবি: আনন্দবাজার
আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

ভারতে বন্ধ হয়ে গেল আফগানিস্তানের দূতাবাস। রোববার থেকে নয়াদিল্লিতে আফগান দূতাবাসের কাজকর্ম সম্পূর্ণ বন্ধ করে দেয়া হয়। দূতাবাস বন্ধের কারণ হিসেবে ভারতের বিরুদ্ধে অসহযোগিতার অভিযোগ এনেছে আফগান সরকার। এই অভিযোগের জেরে দুই দেশের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কে প্রভাব পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

আনন্দবাজার পত্রিকা জানায়, গত শনিবার আফগানিস্তানের তালেবান সরকার এক বিবৃতিতে জানায়, ‘অত্যন্ত দুঃখ, অনুশোচনা ও হতাশার সঙ্গে জানানো হচ্ছে, নয়াদিল্লিতে আফগানিস্তান দূতাবাসের পরিষেবা বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। আফগানিস্তান ও ভারতের দীর্ঘ, ঐতিহাসিক সহযোগিতার পরিপ্রেক্ষিতে সবদিক বিবেচনা করে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।’

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, কূটনৈতিকদের ভিসা রিনিউ করার ক্ষেত্রে সময়ানুযায়ী পর্যাপ্ত সাহায্যের অভাব থেকে শুরু করে অন্যান্য ক্ষেত্রে সাহায্য না মেলায় আফগান দূতাবাসে সঠিকভাবে কাজ করা যাচ্ছিল না। একই সঙ্গে কর্মী ও সম্পদের অভাবও তাদের সুষ্ঠুভাবে কাজ করার পথে বাধা সৃষ্টি করছিল বলে বিবৃতিতে বলা হয়েছে। তবে দিল্লিতে আফগান দূতাবাস বন্ধ হলেও মুম্বাই ও হায়দরাবাদে আফগান কনসুলেটগুলি চালু রয়েছে।

দিল্লির আফগান দূতাবাসে কর্মরত বহু কূটনীতিক তৃতীয় কোনো দেশে চলে যাচ্ছেন। ইতোমধ্যেই আফগানিস্তানের ৫ জন কূটনৈতিক ভারত ছেড়ে ইউরোপ ও আমেরিকায় চলে গেছেন।

এদিকে তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি না দিলেও আফগানিস্তানে মানবিক, বাণিজ্যিক ও চিকিৎসাসংক্রান্ত সাহায্য চালু রাখার জন্য কাবুলে ভারতীয় দূতাবাস বন্ধ করেনি দিল্লি। প্রায় দুদশকেরও বেশি সময় ধরে ভারতের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক রয়েছে আফগানিস্তানের। আফগানের একাধিক প্রকল্পে ভারতের বিনিয়োগ রয়েছে। তবে তালেবান আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলের পর সম্পর্ক সঠিকভাবে বজায় থাকবে কি না, তা নিয়ে সংশয় তৈরি হয়।

বিষয়:

তুরস্কের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ভবনের সামনে বোমা বিস্ফোরণ

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ভবনের সামনে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। রোববার স্থানীয় সময় সাড়ে ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। খবর আল-জাজিরা, রয়টার্সের ।

প্রতিবেদনে বলা হয়, দুই সন্ত্রাসী এ বোমা হামলা চালান। তাদের মধ্যে একজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় দুই পুলিশ কর্মকর্তাও আহত হয়েছেন।

দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আলি ইয়েরলিকায়া এক বিবৃতিতে জানান, বোমা বহনকারী দুই সন্ত্রাসীর একজন বিস্ফোরণে নিহত হন এবং অপরজনকে ‘নিষ্ক্রিয়’ করেছে কতৃপক্ষ।

এর আগে তুরস্কের গণমাধ্যম দেশটির পার্লামেন্ট ও মন্ত্রণালয় ভবনের কাছে বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গেছে বলে জানায়।


বৃষ্টিতে তলিয়েছে নিউইয়র্ক শহর

সংগৃহীত ছবি
আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

শক্তিশালী ঝড়ের প্রভাবে অতিবৃষ্টি এবং সেখান থেকে সৃষ্টি হওয়া আকস্মিক বন্যার কারণে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। শহরের কয়েকটি সাবওয়ে সিস্টেম, রাস্তা ও হাইওয়েতে পানি উঠে গেছে। অতিরিক্ত পানির কারণে গত শুক্রবার লা গার্ডিয়ান বিমানবন্দরের অন্তত একটি টার্মিনাল বন্ধ করে দেয়া হয়।

বিবিসি জানায়, আবহাওয়া বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, গত শুক্রবার নিউইয়র্ক শহরের কিছু কিছু অংশে ৮ ইঞ্চি/২০ সেন্টিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টি পড়েছে। নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের গভর্নর গত শুক্রবার নিউইয়র্ক শহরসহ কয়েকটি এলাকায় জরুরি অবস্থা জারি করেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এক্স’-এ নিউইয়র্কের গভর্নর বলেন, ‘এই ঝড় ভয়াবহ, জীবনের জন্য হুমকিস্বরূপ। অতিরিক্ত বৃষ্টিপাত হওয়ায় নিউইয়র্ক, লং আইল্যান্ড ও হাডসন ভ্যালিতে জরুরি অবস্থা জারি করছি।’ এ সব এলাকার লোকজনকে ‘পানিতে তলিয়ে যাওয়া রাস্তায় যাতায়াত না করতে তিনি পরামর্শ দিয়েছেন। এখন পর্যন্ত বৃষ্টিপাত ও বন্যায় কোনো মৃত্যু অথবা বড় ধরনের ক্ষয়-ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি। হাডসন নদীর তীরে অবস্থিত নিউজার্সির হোবোকেন শহরেও জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে।

জরুরি অবস্থা জারি করার নিউইয়র্ক শহরের মেয়র এরিক অ্যাডামস শহরের মানুষকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘পানি বেড়ে যাওয়ায় আমাদের কিছু সাবওয়ে বন্ধ হয়ে গেছে। শহরের ভেতর যাতায়াত করা হঠাৎ করে খুবই কঠিন হয়ে গেছে।’ নাগরিকরা যেন ‘অতিরিক্ত সতর্কতা অবলম্বন’ করে চলে সেদিকে তিনি জোর দিয়েছেন। নিউইয়র্ক শহরের যাতায়াত সেবা প্রদানকারী সংস্থা মেট্রোপলিটন ট্রান্সপোর্টেশন এজেন্সি জানিয়েছে, পানি উঠে যাওয়ায় কয়েকটি সাবওয়ে লাইনে চলাচল পুরোপুরি বাতিল করে দেয়া হয়। অনেক স্টেশনও বন্ধ করে দেয়া হয়।

শহরের উত্তরাঞ্চলের যাতায়াত ব্যবস্থা সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ওই অঞ্চলে উদ্ধার কর্মীরা বাতাস দিয়ে ফুলানো নৌকা ব্যবহার করে অনেক মানুষকে উদ্ধার করেছে বলে খবর প্রকাশ করেছে রয়টার্স। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ছবি আর ভিডিওফুটেজে দেখা যায়, তুমুল বর্ষণের মধ্যে হাঁটু পানিতে হাঁটছে মানুষ। অনেক ভিডিওফুটেজে দেখা যায় যে সাবওয়ে স্টেশনের দেয়াল ও ছাদ থেকে পানি চুঁয়ে পড়ছে। নিউইয়র্কের জলবায়ু বিষয়ক শীর্ষ কর্মকর্তা রোহিত আগারওয়াল জানান, যে শহরের পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা ঘণ্টায় ১.৭৫ ইঞ্চির বেশি বৃষ্টি সামাল দিতে পারে না। ব্রুকলিন নেভি ইয়ার্ড থেকে পাওয়া হিসাব অনুযায়ী, গত শুক্রবার এক ঘণ্টায়ই ২.৫ ইঞ্চি বৃষ্টিপাত হয়েছিল। রোহিত বলেন, ‘ব্রুকলিনের কিছু অংশ যে এই বৃষ্টিতে ভুগবে, তা স্বাভাবিক।’ এক ব্যবসায়ী কেলি হেইস বলেন, এই বৃষ্টির কারণে তার ব্যবসা-প্রতিষ্ঠানে অন্তত ২৫ থেকে ৩০ হাজার ডলার সমমূল্যের ক্ষতি হয়েছে।

লা গার্ডিয়ান বিমানবন্দরের টার্মিনাল এ-তে পুরোপুরি পানি উঠে যাওয়ার আগেই সেটি বন্ধ করে দেয় কর্তৃপক্ষ। সব যাত্রীকে পরামর্শ দেয়া হয় যেন তারা ভ্রমণ করার আগে তাদের এয়ারলাইন্সের সঙ্গে যোগাযোগ করে নেয়। নিউইয়র্ক পুলিশ ডিপার্টমেন্ট জানিয়েছে যে উদ্ধারকাজে সহায়তা করতে ন্যাশনাল গার্ডকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

এ মাসে নিউইয়র্ক শহরে আনুমানিক ১৪ ইঞ্চি বৃষ্টিপাত হয়েছে। ১৮৮২ সালের পর থেকে এই প্রথমবার সেপ্টেম্বর মাসে এই পরিমাণ বৃষ্টি হলো বলে জানাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের আবহাওয়া অধিদপ্তর, ন্যাশনাল ওয়েদার সার্ভিস।


শাটডাউনের মুখে যুক্তরাষ্ট্র

সংগৃহীত ছবি
আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে রিপাবলিকানদের বিরোধিতার মুখে কেন্দ্রীয় সরকারকে অর্থায়ন করার বিল বাতিল হয়েছে। এ অবস্থায় রোববার থেকে যুক্তরাষ্ট্র শাটডাউনের মুখে পড়তে পারে বলে শঙ্কা তৈরি হয়েছে। এতে করে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল এজেন্সিগুলো আংশিকভাবে বন্ধ হয়ে যাবে। ৪০ লাখ কেন্দ্রীয় কর্মীর বেতন-ভাতা পরিশোধ বন্ধ হয়ে যেতে পারে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, কেন্দ্রীয় সংস্থাগুলোর কার্যক্রম যাতে বন্ধ না হয়, তা নিশ্চিত করতে সরকারকে তহবিল জোগানোর মেয়াদ ৩০ দিন বৃদ্ধির লক্ষ্যে বিল আনা হয়েছিল । কিন্তু শুক্রবার রিপাবলিকান নিয়ন্ত্রিত প্রতিনিধি পরিষদে সেই বিল ২৩২-১৯৮ ভোটে পরাজিত হয়েছে। সেই বিলে রিপাবলিকানদের পছন্দ অনুযায়ী ব্যয় হ্রাসের পাশাপাশি অভিবাসন সীমিত করার প্রস্তাব ছিল। সে কারণে ডেমোক্র্যাট নিয়ন্ত্রিত সিনেটে এটি পাস হওয়ার সম্ভাবনাও ছিল খুবই কম। একদিকে বিল পাস হয়নি অন্যদিকে শাটডাউন এড়ানোর কোনো সুস্পষ্ট কৌশলও পাওয়া যায়নি।

শাটডাউন হলে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় পার্ক বন্ধ হয়ে যাওয়ার পাশাপাশি ৪০ লাখ কেন্দ্রীয় কর্মীর বেতন-ভাতা পরিশোধ বন্ধ হয়ে যেতে পারে। সেই সঙ্গে বন্ধ হয়ে যেতে পারে আর্থিক খাতের নজরদারি থেকে বৈজ্ঞানিক গবেষণার তহবিল।

হোয়াইট হাউস অফিস অব ম্যানেজমেন্ট ও বাজেটের পরিচালক শালান্দা ইয়ং বলেন, ‘রিপাবলিকানরা অভ্যন্তরীণ বিভাজন শেষ করতে পারলে শাটডাউন এড়ানোর এখনো একটি সুযোগ রয়েছে।’ হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি কারিন জ্যঁ-পিয়েরে বলেন, ‘স্পিকার কেভিন ম্যাকার্থিকে তার দলের প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনা করতে হবে এবং এই সমস্যার সমাধান করতে হবে।’

এবার যদি শাটডাউন হয় সেটি হবে ১০ বছরে মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের চতুর্থ শাটডাউন। এর মাত্র চার মাস আগে জাতীয় ঋণসীমা বৃদ্ধি নিয়ে রিপাবলিকান ও ডেমোক্র্যাটরা পরস্পরের মুখোমুখি অবস্থানে চলে গিয়েছিল। ওই সময়ও শাটডাউনের শঙ্কা দেখা দিলেও শেষ মুহূর্তে তা এড়ানো সম্ভব হয়।


চুক্তির রূপরেখা নিয়ে এগোচ্ছে ইসরায়েল ও সৌদি আরব: যুক্তরাষ্ট্র

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রের উদ্যোগে সৌদি আরব ও ইসরায়েল ঐতিহাসিক চুক্তির রূপরেখা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। হোয়াইট হাউস গত শুক্রবার এ কথা জানিয়েছে।

বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, কয়েক দশকের শত্রুতামূলক সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে উভয় দেশের মধ্যে চুক্তি প্রণয়নে জোর চেষ্টা চালাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের মুখপাত্র জন কিরবি সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘সব পক্ষই তৎপর রয়েছে। আমি মনে করি, একটি মৌলিক কাঠামো তৈরিতে আমরা সক্ষম হবো। কিন্তু যে কোনো জটিল ব্যবস্থার মতো, অবশ্যম্ভাবীভাবে যা হবে, এতে প্রত্যেককে কিছু না কিছু করতে হবে। প্রত্যেককে কিছু বিষয়ে আপসও করতে হবে।’

যুক্তরাষ্ট্র সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন ও মরক্কোর পর তার মধ্যপ্রাচ্যের মিত্র ইসরায়েল ও সৌদি আরবকে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার আহ্বান জানিয়েছে। এ পরিপ্রেক্ষিতে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান সম্প্রতি উভয় দেশের আরও কাছাকাছি হওয়ার কথা বলেছেন। একই কথা বলেছেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু।

এদিকে সৌদি আরব ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার বিনিময়ে চুক্তিসহ নিরাপত্তার নিশ্চয়তা চেয়েছে। তবে ফিলিস্তিন সতর্ক করে বলেছে, ‘দুই রাষ্ট্র’নীতির সমাধান ছাড়া মধ্যপ্রাচ্যে কোনো শান্তি আসবে না। উল্লেখ্য, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ইসরায়েলকে সৌদি আরবের স্বীকৃতির মাধ্যমে মধ্যপ্রাচ্যে কূটনৈতিক বিজয় অর্জন করতে চান বলে বিশ্লেষকরা মনে করছেন।

বিষয়:

banner close