আপডেট : শনিবার, মে ২১, ২০২২, ১২:০০ am

সোনার দামে রেকর্ড, ভরি ৮২ হাজার ৪৬৬ টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক
সোনার দামে রেকর্ড, ভরি ৮২ হাজার ৪৬৬ টাকা
সবচেয়ে ভালো মানের সোনার ভরি এখন ৮২ হাজার ৪৬৬ টাকা। ছবি: সংগৃহীত

অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে দেশের বাজারে সোনার দাম এখন সর্বোচ্চ উচ্চতায়। প্রতি ভরি সবচেয়ে ভালো মানের সোনার দাম ৮২ হাজার ৪৬৬ টাকা। বাংলাদেশের ইতিহাসে এর আগে কখনোই মূল্যবান এই ধাতুটি এত দামে বিক্রি হয়নি। তবে তবে রুপার দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। আগের দামেই বিক্রি হবে এই ধাতু।

আজ রোববার থেকে নতুন দর কার্য‌কর হবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস)।

আন্তর্জাতিক বাজারে দাম এবং ডলারের দাম বাড়ায় দেশের বাজারে সোনার দাম বাড়ানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাজুসের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার আগারওয়ালা।

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের ধাক্কায় বিশ্ববাজারে সোনার দাম বেড়ে যাওয়ায় গত ৮ মার্চ দেশের বাজারে ভালো মানের সোনার দাম ভরিতে ১ হাজার ৫০ টাকা বাড়িয়ে ৭৯ হাজার ৩১৫ টাকা নির্ধারণ করেছিল বাজুস। তার চার দিন আগে ৪ মার্চ বাড়ানো হয়েছিল ভরিতে ৩ হাজার ২৬৫ টাকা।

এরপর বিশ্ববাজারে সোনার দাম কমতে শুরু করায় গত ১৫ মার্চ দেশের বাজারে ভরিতে ১ হাজার ১৬৬ টাকা কমানোর ঘোষণা দেয় বাজুস। ২১ মার্চ কমানো হয় ভরিতে আরও ১ হাজার ৫০ টাকা। কিন্তু বিশ্ববাজারে দাম বাড়ায় গত ১১ এপ্রিল সবচেয়ে ভালো মানের সোনার দাম ভরিতে ১ হাজার ৭৫০ টাকা বাড়িয়ে ৭৮ হাজার ৮৪৯ টাকা নির্ধারণ করেছিল বাজুস। এরপর আন্তর্জাতিক বাজারে দাম কমায় ২৫ এপ্রিল প্রতি ভরি সোনার দাম ১ হাজার ১৬৬ টাকা কমানো হয়। সবশেষ ১০ মে একই পরিমাণ কমানো হয়েছিল। দুই দফায় ভরিতে ২ হাজার ৩৩২ টাকা কমানোর পর ১৭ মে ১ হাজার ৭৫০ টাকা বাড়ানোর ঘোষণা দেয় বাজুস, ১৮ মে যা কার্য‌কর হয়। মাত্র চার দিনের ব্যবধানে সোনার দাম এক ধাক্কায় ভরিতে ৪ হাজার ১৯৯ টাকা বাড়ানো হলো।

বাজুসের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, আন্তর্জাতিক বাজারে মার্কিন ডলার ও অন্যান্য মুদ্রার দাম অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। এ ছাড়া আন্তর্জাতিক বাজার ও স্থানীয় বুলিয়ন মার্কেটেও সোনার মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে। তাই সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে বাজুসের মূল্য নির্ধারণ ও মূল্য পর্যবেক্ষণসংক্রান্ত স্থায়ী কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক বাংলাদেশের বাজারে স্বর্ণের দাম বাড়ানো হয়েছে। রোববার থেকে এই নতুন দর কার্য‌কর হবে।

দাম বাড়ানোর কারণ জানতে চাইলে বাজুসের সাধারণ সম্পাদক ও ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ড লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক দিলীপ কুমার আগারওয়ালা দৈনিক বাংলাকে বলেন, ‘আন্তর্জাতিক বাজারে প্রতি মুহূর্তে গোল্ডের দাম ওঠানামা করছে। এই বাড়ছে তো, ওই কমছে। গত এক সপ্তাহে দাম খানিকটা বেড়েছে। একইসঙ্গে টাকার বিপরীতে ডলারের দাম বেড়েছে বেশ খানিকটা। সে কারণে সবকিছু হিসাব করে আমরাও গোল্ডের দাম বাড়িয়েছি।’

দিলীপ কুমার আগারওয়ালা বলেন, ‘আমরা প্রতি মুহূর্তে বাজার পর্যবেক্ষণ করি। এখন বিশ্ববাজারে দাম বাড়ছে; আমরাও বাড়িয়েছি। দেশে সোনার দাম বাড়া বা কমা নির্ভর করে আসলে বিশ্ববাজারের ওপর। তবে এবার গোল্ডের দাম বাড়ানো হয়েছে মূলত মার্কিন ডলারের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধির কারণে। ডলারের পাশাপাশি অন্যান্য মুদ্রার দামও বেশ বেড়েছে। এ কারণে গোল্ডের আমদানি খরচ অনেক বেড়ে গেছে। সবকিছু বিবেচনায় নিয়ে দাম বাড়ানো হয়েছে।’

বিশ্ববাজারে গত শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় প্রতি আউন্স (৩১ দশমিক ১০৩৪৭৬৮ গ্রাম, ২ দশমিক ৬৫ ভরি) সোনার দাম ছিল ১ হাজার ৮৪৬ ডলার ৫৩ সেন্ট। উল্লেখ্য, ১১ দশমিক ৬৬৪ গ্রামে এক ভরি।

সবশেষ ১৭ মে যখন দাম কমানো হয়, তখন প্রতি আউন্স সোনার দাম ছিল ১ হাজার ৮৩২ ডলার ৪২ সেন্ট। চলতি মে মাসের প্রথম সপ্তাহে এই দর কমতে কমতে ১ হাজার ৮০০ ডলারে নেমে এসেছিল। মার্চের প্রথম সপ্তাহে বিশ্ববাজারে প্রতি আউন্স সোনার দাম বাড়তে বাড়তে ২ হাজার ৬০ ডলারে উঠেছিল।

রোববার থেকে সবচেয়ে ভালো মানের ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি সোনা কিনতে লাগবে ৮৪ হাজার ৪৬৬ টাকা। গতকাল শনিবার পর্যন্ত এই মানের সোনা ৭৮ হাজার ২৬৫ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

২১ ক্যারেটের সোনার দাম ভরিতে ৪ হাজার ২৮ টাকা বাড়িয়ে ৭৮ হাজার ৭৩২ টাকা করা হয়েছে। গত চারদিন ৭৪ হাজার ৭০৮ টাকায় বিক্রি হয়েছে এই মানের সোনা। ১৮ ক্যারেটের সোনার দাম ৩ হাজার ৪৯৯ টাকা বেড়ে হয়েছে ৬৭ হাজার ৫৩৫ টাকা। গতকাল শনিবার পর্যন্ত ৬৪ হাজার ৩৬ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আর সনাতন পদ্ধতির প্রতি ভরির দাম ২ হাজার ৮৫৮ টাকা বাড়িয়ে ৫৬ হাজার ২২০ টাকা নির্ধারণ করে দিয়েছে বাজুস। গত চার দিন ধরে ৫৩ হাজার ৩৬৩ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।