আপডেট : শনিবার, মে ২৮, ২০২২, ১২:০০ am

দুই-তৃতীয়াংশ প্রতিষ্ঠান র‍্যানসমওয়্যার হামলার শিকার

দৈনিক বাংলা ডেস্ক
দুই-তৃতীয়াংশ প্রতিষ্ঠান র‍্যানসমওয়্যার হামলার শিকার
র‍্যানসমওয়্যার হামলায় দিন দিন মুক্তিপণ দেয়ার হার বাড়ছে। ছবিটি প্রতীকী। ছবি: আনস্প্ল্যাশ

আন্তর্জাতিক সাইবার নিরাপত্তা পণ্য প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান সোফোস সম্প্রতি তাদের ‘স্টেট অব র‍্যানসমওয়্যার ২০২২’ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, জরিপে অংশ নেয়া ৬৬ শতাংশ প্রতিষ্ঠান ২০২১ সালে র‍্যানসমওয়্যার হামলার শিকার হয়েছিল।

প্রতিবেদন তৈরিতে সোফোস এশিয়া-প্যাসিফিক, মধ্য এশিয়া, মধ্যপ্রাচ্য, ইউরোপ, আমেরিকা এবং আফ্রিকার ৩১টি দেশের প্রায় ৫ হাজার ৬০০টি প্রতিষ্ঠান জরিপ করে। সমীক্ষা চলাকালীন ৯৬৫টি প্রতিষ্ঠান তাদের র‍্যানসমওয়্যার পেমেন্টের বিবরণ শেয়ার করেছে।

র‍্যানসমওয়্যার এক ধরনের ক্ষতিকর সফটওয়্যার বা ম্যালওয়্যার। আক্রান্ত কম্পিউটার বা নেটওয়ার্কে ছড়িয়ে দিয়ে ফাইল কব্জা করে হ্যাকার, এরপর মুক্তিপণের বিনিময়ে সেগুলো ফিরিয়ে দেওয়ার দাবী করে।

সোফোসের প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, র‍্যানসমওয়্যার আক্রমণে ডেটা এনক্রিপ্ট করা প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের ডেটা ফেরত পেতে মোটামুটিভাবে ৮ লাখ ১২ হাজার ৩৬০ ডলার বা প্রায় ৭ কোটি টাকা খেসারত দিয়েছে।

আর ৪৬ শতাংশ ক্ষতিগ্রস্ত প্রতিষ্ঠানের ডেটা এনক্রিপ্টেড ছিল এবং ব্যাকআপসহ অন্য ডেটা পুনরুদ্ধারের পদ্ধতি থাকা সত্ত্বেও তারা মুক্তিপণ পরিশোধ করেছে। দিন দিন মুক্তিপণ দেয়ার হার বাড়ছে, কারণ সময়ের সঙ্গে সঙ্গে ভুক্তভোগীর সংখ্যাও বৃদ্ধি পাচ্ছে।

এ ছাড়া অনেক বৈশ্বিক সংস্থা র‍্যানসমওয়্যার আক্রমণ থেকে তাদের ডেটা পুনরুদ্ধার করতে সহায়তা করার জন্য সাইবার বিমার উপর নির্ভর করে।

ক্রমবর্ধমান সাইবার নিরাপত্তা হুমকির পাশাপাশি র‍্যানসমওয়্যার আক্রমণগুলো সংস্থার উপর ব্যাপক প্রভাব ফেলে, যেহেতু সাধারণত ডেটা পুনরুদ্ধার করতে এবং আক্রমণ পরবর্তী জটিলতাগুলো দূর করতে প্রায় এক মাস সময় লাগে ৷