আপডেট : রবিবার, মে ২৯, ২০২২, ১২:০০ am

ফাইভজি চালু হলেও ফোরজিই ঠিকমতো পাওয়া যাচ্ছে না: ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
ফাইভজি চালু হলেও ফোরজিই ঠিকমতো পাওয়া যাচ্ছে না: ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী
ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। ছবি: সংগৃহীত

ফাইভজি চালু হলেও দেশের মানুষ এখনো ফোরজি সেবাই ঠিকমতো পাচ্ছে না বলে মন্তব্য করেছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে মন্ত্রী গতকাল বলেন, ‘আমরা ফাইভজি পর্যন্ত গিয়েছি। পলিসিগত দিক থেকে আমরা হয়তো এটা করেছি, কিন্তু এখনো ফোরজি ঠিকমতো হয়নি। আমাদেরকে ফোরজি কার্যকর করতে হবে। আমাদের জন্য সুখবর, পৃথিবীতে এখন এ প্রযুক্তি আছে। ফোরজি অবকাঠামোতে কিছু ছোটখাটো যন্ত্রপাতি যোগ করলেও তাতে ফাইভজি সুবিধা পাওয়া যাবে। অপারেটরদের বলব আপনারা ফোরজি অবকাঠামো বিস্তার করেন। পরে প্রয়োজন বুঝে সেখানে যন্ত্রপাতি সংযোজন করে ফাইভজি সেবা দিতে পারবেন।’

বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস ১৭ মে পালন করার কথা থাকলেও তা পালিত হলো গতকাল ২৯ মে। এ উপলক্ষে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব মো. খলিলুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান শ্যামসুন্দর সিকদার।

দেশের বিভিন্ন খাত ডিজিটাল রূপান্তরে বেশ এগোলেও স্বাস্থ্য ও শিক্ষা খাত বেশ পিছিয়ে রয়েছে বলে মনে করেন মোস্তাফা জব্বার। এ বিষয়ে অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ‘ডিজিটাল বাংলাদেশের পথে আমরা অনেকখানি এগিয়ে গেছি। স্বাস্থ্য খাতে এখন ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহার হচ্ছে, অবশ্য এটা একেবারেই কম। সমাজসেবাও ডিজিটালাইজেশনে পিছিয়ে রয়েছে। তবে সবচেয়ে বেশি পিছিয়ে রয়েছে শিক্ষা খাত।’

স্বাস্থ্যসেবার যে প্রযুক্তিগুলো রয়েছে, সেখানে ফোরজি-ফাইভজি সেবা কার্যকরী অবদান রাখতে পারে বলে উল্লেখ করেন মন্ত্রী। বিশেষ করে তৃণমূল পর্যায়ে যেসব জায়গায় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছানো সম্ভব হয়নি সেখানে এমন প্রযুক্তির মানুষের কাজে লাগানো যেতে পারে বলে মনে করেন তিনি।

এ বছর বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবসের প্রতিপাদ্য ‘বয়োজ্যেষ্ঠ ব্যক্তি এবং স্বাস্থ্যসম্মত বার্ধক্যের জন্য ডিজিটাল প্রযুক্তি’। দিবসটি উপলক্ষে গতকাল সকাল ৯টায় রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন থেকে একটি শোভাযাত্রা বের হয়ে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।