মঙ্গলবার, অক্টোবর ৪, ২০২২

দিনভর নাটকীয়তা শেষে বিমান বলছে, লাগেজ থেকে চুরির ঘটনার সত্যতা মেলেনি

দিনভর নাটকীয়তা শেষে বিমান বলছে, লাগেজ থেকে চুরির ঘটনার সত্যতা মেলেনি
দিনভর অপেক্ষার পর বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের লাগেজ চুরির অভিযোগে বক্তব্য দিয়েছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস কর্তৃপক্ষ। ছবি: আহমেদ দীপ্ত
প্রতিবেদক, দৈনিক বাংলা
প্রকাশিত
  • নারী ফুটবল দলের লাগেজ চুরির অভিযোগ

সাফজয়ী বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের সদস্যদের ডলার ও টাকা চুরির অভিযোগ উঠেছে। দলের অন্যান্য সদস্যের লাগেজও পাওয়া গেছে ভাঙা অবস্থায়। তবে এ অভিযোগ সঠিক নয় দাবি করে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রচার না করার জন্য সবাইকে অনুরোধ করেছে।

সাফজয়ী বাংলাদেশ নারী ফুটবল দল গতকাল বুধবার দুপুর ১টা ৪২ মিনিটে বিমানের বিজি-৩৭২ ফ্লাইটে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছায়। ছাদখোলা বাসে চড়িয়ে তাদের নিয়ে যাওয়া হয় বাফুফে দপ্তরে। হাতে পতাকা ও ব্যানার নিয়ে স্লোগানে স্লোগানে শিরোপাজয়ী মেয়েদের স্বাগত জানায় হাজারও মানুষ। তার পরদিনই উঠে চুরির এই অভিযোগ।

বাফুফের পক্ষ থেকে জানানো হয়, বাংলাদেশ সাফজয়ী নারী দলের সদস্য কৃষ্ণা রানি সরকারের ব্যাগ থেকে ৫০০ ডলার (প্রায় ৫২ হাজার টাকা) এবং নগদ ৫০ হাজার টাকা চুরি হয়ে গেছে। সানজিদা আক্তারের ব্যাগ থেকে ৫০০ ডলার ও সামসুন্নাহার সিনিয়রের ব্যাগ থেকে হারিয়েছে ৪০০ ডলার (প্রায় ৪২ হাজার টাকা)। মেয়েদের ব্যাগ থেকে পোশাক, প্রসাধনীসহ উপহার সামগ্রীও খোয়া যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

সাফজয়ী নারী ফুটবল দলের লাগেজ ‍চুরির বিষয়ে বিমানের বক্তব্য পেতে বিকেল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয় গণমাধ্যমকর্মীদের। এ সময় কুর্মিটোলার ফটকের সামনে বিমানের গাড়ি আটকে দেন গণমাধ্যমকর্মীরা। ছবি: আহমেদ দীপ্ত 

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে লাগেজ হ্যান্ডেলিংয়ের দায়িত্ব বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের ওপর। আবার নেপাল থেকে সাফজয়ী মেয়েরা দেশে এসেছে বিমানেরই একটি ফ্লাইটে। ফলে লাগেজ থেকে ডলার, টাকা ও প্রসাধনী চুরির অভিযোগের দায় এসে পড়ে বিমান কর্তৃপক্ষের ওপর। বিমান কর্তৃপক্ষ শুরুতে এ বিষয়ে কোনো কথা বলতে রাজি হয়নি।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত গণমাধ্যমকর্মীরা রাজধানীর কুর্মিটোলায় বিমানের প্রধান কার্যালয়ের সামনে অপেক্ষা করতে থাকেন। আনুষ্ঠানিক বক্তব্যের জন্য গণমাধ্যমকর্মীরা বারবার অনুরোধ করলেও বিমানের পক্ষ থেকে সাড়া পাওয়া যায়নি। পরে বিমানের প্রধান ফটকের সামনে অবস্থান নেন সাংবাদিকরা। এক পর্যায়ে বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে বিমানের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক বক্তব্য দেওয়া হয়।

আনুষ্ঠানিক বক্তব্য দেন বিমানের উপব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) দুলাল চন্দ্র দাশ। তিনি বিমানের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) তাহেরা খন্দকারের সই করা এক বিবৃতি পাঠ করেন। বিবৃতিতে বিমান জানায়, গতকাল বুধবার বিজি-৩৭২ ফ্লাইটটি শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। ফ্লাইটটির ব্যাগেজ ৮ নম্বর ব্যাগেজ বেল্টের মাধ্যমে দুপুর ২টা ১০ মিনিটে অত্যন্ত গুরুত্বসহকারে সার্বক্ষণিক তদারকির মাধ্যমে ডেলিভারি দেওয়া হয়। এ সময় বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) প্রতিনিধি ও সংশ্লিষ্ট খেলোয়াড়রা লাগেজগুলো সঠিক অবস্থায় বুঝে নেন। লাগেজগুলো বুঝে নেয়ার সময় লাগেজ থেকে কিছু খোয়া যাওয়ার বিষয়ে কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি।

বিবৃতিতে তাহেরা খন্দকার বলেন, বাফুফের প্রতিনিধিরা লাগেজগুলো দুইটি কাভার্ড ভ্যানে উত্তোলন করে বিমানবন্দর এলাকা ত্যাগ করেন। বিমানবন্দর এলাকার সিসিটিভি ফুটেজ পরীক্ষা করে ওই  অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়নি।

এদিকে, বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের লাগেজ চুরির অভিযোগের বিষয়ে শাহজালাল বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষও জানিয়েছে, বিমানবন্দরে লাগেজ থেকে চুরির ঘটনা সত্য নয়। বাফুফে প্রতিনিধিরা গতকাল সম্পূর্ণ অক্ষত ও তালাবদ্ধ অবস্থায় বিমানের কাছ থেকে সাফজয়ী মেয়েদের লাগেজ বুঝে নিয়ে বিমানবন্দর ত্যাগ করেন।

শাহজালাল বিমানবন্দরের নির্বাহী পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন মোহাম্মদ কামরুল ইসলাম বিবৃতিতে বলেন, ফুটবল দলের দুই নারী সদস্যের ব্যাগ থেকে ডলার ও টাকা চুরির অভিযোগ পাওয়া যায়। এ অভিযোগের ভিত্তিতে শাহজালাল বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে। এ ঘটনার সত্যতা প্রতীয়মান হয়নি বলে নিশ্চিত হয়েছে। দুপুর ২টা ৮ মিনিটে শেষ ব্যাগেজ ড্রপ হয়। এরপর বাফুফে প্রটোকল প্রতিনিধি ও দলের দুজন অফিসিয়াল প্রতিনিধি লাগেজ ট্যাগ চেক করে সম্পূর্ণ অক্ষত ও তালাবদ্ধ অবস্থায় বিমান কর্তৃপপক্ষের কাছ থেকে লাগেজ বুঝে নিয়ে বিমানবন্দর ত্যাগ করেন।

এদিকে, বিমানবন্দরের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জিয়াউল হক দৈনিক বাংলাকে বলেন, ‘আমরা সংবাদপ্রাপ্তির পর স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে বিষয়টি তদন্ত করছি। তদন্ত শেষে বলা যাবে প্রকৃতপক্ষে কী ঘটেছে।’


৪৫৮ রানের ম্যাচ যত সব রেকর্ড

৪৫৮ রানের ম্যাচ যত সব রেকর্ড
সূর্যকুমার যাদব রেকর্ড করেই যাচ্ছেন। ছবি: বিসিসিআই
ক্রীড়া ডেস্ক
প্রকাশিত

প্রোটিয়া বোলারদের তুলোধুনো করে গতকাল গৌহাটিতে ভারত ৩ উইকেট করল ২৩৭ রান। এই রানের নিচে দক্ষিণ আফ্রিকা চাপা না পড়লেও জিততে পারেনি। ৩ উইকেট হারিয়ে তারা তুলেছে ২২১ রান। দুই দল মিলিয়ে রান উঠেছে ৪৫৮। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে এটিই সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড নয় (সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড ৪৮৯, ভারত-উইন্ডিজ), তবে ভারত দক্ষিণ আফ্রিকার লড়াইয়ে এটিই দুই দলের সর্বোচ্চ রান। ভারতের ১৬ রানের জয়ের এই ম্যাচে রেকর্ড হয়েছে আরও কয়েকটি।

হাজারে দ্রুততম সূর্যকুমার

এই সময়ে ক্রিকেটে যাদের ব্যাটিং মন্ত্রমুগ্ধের মতো টানে, তাদের অন্যতম সূর্যকুমার যাদব। তার ব্যাটে আগুণের হলকা উঠলে নিস্তার নেই প্রতিপক্ষ বোলারদের। সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে কাল রান আউট হওয়ার আগে খেলেছেন মাত্র ২২ বল। তাতেই ৬১ রান। ৫টি চার ও সমান সংখ্যক ছয়ের ইনিংসটির স্ট্রাইকরেট-২৭৭.২৭। এই ইনিংস খেলার পথে রিবাট কোহলি ও রাহুল লোকেশের পর তৃতীয় দ্রুততম ভারতীয় হিসেবে ৩১ ইনিংসে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টির হাজার রানের মাইলফলক ছুঁয়েছেন। কিন্তু খেলা বলের হিসেবে সূর্যকুমারই দ্রুততম। মাত্র ৫৭৪ বলেই রানের চার অঙ্ক ছুঁয়েছেন তিনি। তার আগে এই রেকর্ডটি ছিল ৬০৪ বলের, অস্ট্রেলিয়ার গ্লেন ম্যাকওয়েলের।