রোববার, ৩ ডিসেম্বর ২০২৩
চৌধুরী জাফরউল্লাহ শারাফাত বলছি

ফাইনালে নেল বাইটিং ফিনিশ দেখতে চাই

চৌধুরী জাফরউল্লাহ শারাফাত। ফাইল ছবি
প্রকাশিত
প্রকাশিত : ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২৩ ০৮:২৮

নানা নাটকীয়তায় ভরা এশিয়া কাপের ১৬তম আসরের ফাইনাল থেকে আর মাত্র ১ দিন বাকি। শিরোপা ঘরে তোলা লড়াইয়ে আগামীকাল ফাইনালে ভারতের মুখোমুখি হবে শ্রীলঙ্কা। বলতে গেলে ফাইনাল নিয়ে ক্রিকেটপ্রেমীদের যে উচ্ছ্বাস ছিল তা অনেকটাই কমে গেছে পাকিস্তান ফাইনালে না ওঠায়।

এশিয়া কাপের ৩৯ বছরের ইতিহাসে যা হয়নি তা এবার দেখতে চেয়েছিল পুরো ক্রিকেট বিশ্ব। সেটি হলো ভারত-পাকিস্তান ফাইনাল। এক ম্যাচ হাতে রেখে ভারত ফাইনাল নিশ্চিত করতে পারলেও অঘোষিত সেমিফাইনালে শ্রীলঙ্কার কাছে আবার ফাইনালে ওঠা হয়নি পাকিস্তানের। তবে ফাইনাল যে ফাইনালের মতোই হবে সেটা নিশ্চয়ই দেখতে পারবেন দর্শকরা। কেননা লড়াইটা হবে এশিয়া কাপের সর্বোচ্চ চ্যাম্পিয়ন ভারত ও দ্বিতীয় সর্বোচ্চ চ্যাম্পিয়ন শ্রীলঙ্কার মধ্যে।

এশিয়া কাপে সবসময় ফেভারিট হিসেবে খেলতে নামা ভারত এবারও শিরোপার অন্যতম দাবিদার। তাদের আছে বিশ্বমানের ব্যাটিং লাইন। আইসিসির সর্বশেষ হালনাগাদকৃত র‌্যাঙ্কিংয়ে সেরা দশে আছে ভারতের তিন ব্যাটার। দুই নম্বরে শুভমান গিল, আটে বিরাট কোহলি আর নয় নম্বরে রোহিত শর্মা। তাছাড়া দারুণ ছন্দে আছেন চোট থেকে ফেরা উইকেটরক্ষক ব্যাটার লোকেশ রাহুল। আছেন মারমুখী ব্যাটার ইশান কিশান। তাদের কেউ একজন দাঁড়াতে পারলে প্রতিপক্ষের জন্য তা হবে ভয়ংকর।

মিডল অর্ডারে আছেন অভিজ্ঞ দুই অলরাউন্ডার হার্দিক পান্ডিয়া ও রবীন্দ্র জাদেজা। তারা ব্যাট কিংবা বল হাতে জ্বলে উঠতে পারেন যে কোনো ম্যাচে। তাদের সঙ্গে বোলিং লাইন সামলাবেন জাসপ্রিত বুমরাহ, মোহাম্মদ সিরাজ, কুলদ্বীপ যাদবের মতো বিশ্বমানের বোলার। তাই সবদিক দিয়েই ফাইনালে এগিয়ে থাকবে ভারত।

অন্যদিকে শ্রীলঙ্কাকেও কোনোভাবে পিছিয়ে রাখা যাবে না। কেননা গত আসরের চ্যাম্পিয়ন তারা। এ ফরম্যাটে সর্বশেষ ১৩ ম্যাচের একটিতে হেরেছে তারা। গত আসরের প্রথম ম্যাচ হারলেও বাকি ম্যাচগুলোতে জিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল তারা। এবারের এশিয়া কাপে তাদের একমাত্র হার সুপার ফোরে ভারতের বিপক্ষে। তাই তারা চাইবে ফাইনালে এই হারের প্রতিশোধ নিতে।

লঙ্কানদের ব্যাটিং লাইনকেও খুব একটা মন্দ বলা যায় না। তাদের আছে কুশল মেন্ডিস, পাথুম নিশাঙ্কা, সাদিরা সামারবিক্রমা, চারিথ আশালাঙ্কার মতো টপ অর্ডার। মিডল অর্ডারে অধিনায়ক দাসুন শানাকা, ধনঞ্জয়া ডি সিলভা কিংবা দুনিথ ওয়েলালাগের মতো অলরাউন্ডার। তারাও যে কোনো ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দিতে সক্ষম।

শ্রীলঙ্কার বোলিং লাইন সব সময়ই প্রতিপক্ষের জন্য ভয়ংকর। তবে চোটের কারণে এবার নেই অভিজ্ঞ ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গাসহ আরও দুই পেসার। তাদের অবর্তমানে মহেশ থিকশিনা, মাথিশা পাথিরানা, প্রোমদ মাদুশানরা যেভাবে লঙ্কানদের এগিয়ে নিয়েছে তা সত্যিই প্রশংসনীয়। তাই ভারতের বিপক্ষে তারাও যে কোনো অঘটন ঘটিয়ে দিতে পারে।

পরিসংখ্যানও সে কথাই বলে। এ পর্যন্ত এশিয়া কাপে ২২টি ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে ভারত ও শ্রীলঙ্কা। যেখানে ভারতের ১১ জয়ের বিপরীতে শ্রীলঙ্কাও জিতেছে ১১টি ম্যাচে। অর্থাৎ এবারের আসরের ফাইনাল যারা জিতবে তারাই এগিয়ে যাবে।

তাই বলা যায়, এই ফাইনাল দর্শকদের আনন্দ বাড়িয়ে দেবে। দুই দলই চাইবে তাদের সেরা খেলাটা উপহার দিতে। এখন যারা বেশি ভালো খেলবে তারাই জিতবে।


তাইজুল-ঘূর্ণিতে টাইগারদের কাছে হারল নিউজিল্যান্ড

আপডেটেড ২ ডিসেম্বর, ২০২৩ ১৩:৫৭
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

বাঁ-হাতি স্পিনার তাইজুল ইসলামের ঘূর্ণিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্ট জিতেছে স্বাগতিক বাংলাদেশ।

দুই টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে আজ বাংলাদেশ ১৫০ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে সফরকারী নিউজিল্যান্ডকে। আফগানিস্তান-জিম্বাবুয়ের পর শক্তি বিবেচনায় বড় দলের বিপক্ষে রানের হিসেবে এটিই সবচেয়ে বড় জয় টাইগারদের। সদ্য শেষ হওয়া ওয়ানডে বিশ্বকাপে ভরাডুবির পর প্রথমবারের মতো খেলতে নেমে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের তৃতীয় চক্রে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই অবিস্মরণীয় জয় তুলে নিল সাকিব আল হাসান-তাসকিন আহমেদ বিহীন বাংলাদেশ।

সিলেটে প্রথম টেস্টে বাংলাদেশের দেয়া ৩৩২ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে হেরে যায় নিউজিল্যান্ড। ম্যাচের চতুর্থ দিন শেষে সাত উইকেট হারিয়ে ১১৩ রান তোলে দলটি। পঞ্চম দিনে এসে ১৮১ রান করে গুটিয়ে যায় কিউইরা।

টাইগারদের হয়ে কিউই শিবিরকে ধসিয়ে দিতে বড় ভূমিকা রাখেন স্পিনার তাইজুল ইসলাম। তার ঘূর্ণিতে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেছেন নিউজিল্যান্ডের ছয় ব্যাটার। ২২ রান করা ডেভন কনওয়ে, ১১ রান করা কেইন উইলিয়ামসন, ছয় রান করা টম ব্লান্ডেল, ৯ রান করা কাইলি জেমিসন, ২২ রান করা ইশ সোধি ও ৩৪ রান করা টিম সাউদিকে ফেরান তাইজুল।

দলের হয়ে বাকি চারটি উইকেট নেন শরিফুল ইসলাম, মেহেদি হাসান মিরাজ ও নাইম হাসান। তাদের মধ্যে শরিফুল ও মিরাজ একটি করে এবং নাইম নেন দুটি উইকেট।

এর আগে প্রথম ইনিংসে ৩১০ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ৩৩৮ রান করে স্বাগতিক বাংলাদেশ। জবাবে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ইনিংসে ৩১৭ রান করতে পারলেও দ্বিতীয়টিতে ছন্নছাড়া হয়ে পড়ে কিউইরা।


কোপা আমেরিকার ড্র অনুষ্ঠানে যাবেন স্কালোনি

আপডেটেড ১ ডিসেম্বর, ২০২৩ ১৭:৩১
ক্রীড়া ডেস্ক

আর্জেন্টিনার ফুটবলে এই মুহূর্তে সবচেয়ে আলোচিত নাম লিওনেল স্কালোনি। গত বছর আর্জেন্টিনাকে বিশ্বকাপ জেতানো কোচ সম্প্রতি দায়িত্ব ছাড়ার ইঙ্গিত দেন। সঙ্গে এটাও জানিয়ে দেন, ২০২৪ কোপা আমেরিকার ড্র অনুষ্ঠানে তিনি যাবেন না। এতে সমর্থকদের মনে জাগা প্রশ্ন শঙ্কায় রূপ নেয়- সত্যিই কি মেসি-মার্তিনেজদের ছেড়ে চলে যাচ্ছেন স্কালোনি?

তবে স্কালোনিকে নিয়ে ক্লারিন ও টিওয়াইসি স্পোর্টসের সর্বশেষ প্রতিবেদন সমর্থকদের মনে স্বস্তি ফেরাতে পারে। আর্জেন্টিনার সংবাদমাধ্যম দুটি নিশ্চিত করেছে, সিদ্ধান্ত পাল্টে কোপা আমেরিকার ড্রয়ে যেতে রাজি হয়েছেন স্কালোনি।

আগামী বছরের জুন-জুলাইয়ে যুক্তরাষ্ট্রে হবে কোপা আমেরিকা। বিশ্বের সবচেয়ে পুরোনো এই আন্তর্জাতিক ফুটবল প্রতিযোগিতা এবার বড় পরিসরে হবে।

দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের (কনমেবল) ১০ দলের সঙ্গে থাকবে উত্তর আমেরিকা, মধ্য আমেরিকা ও ক্যারিবিয়ান অঞ্চলের (কনকাকাফ) ৬ দল। ১৬ দলের এই আসরের ড্র হবে আগামী ৭ ডিসেম্বর মায়ামির জেমস এল নাইট সেন্টারে। সেই অনুষ্ঠানে যেতে রাজি হয়েছেন স্কালোনি।

এর আগে স্কালোনি জানিয়েছিলেন, কোপা আমেরিকার ড্রয়ে তিনি ও তাঁর কোচিং স্টাফের দুই সদস্য পাবলো আইমার ও ওয়াল্তার স্যামুয়েল যাবেন না। কোপা আমেরিকার নিয়ন্ত্রক সংস্থা কনমেবল সাধারণত এই অনুষ্ঠানের জন্য অংশগ্রহণকারী দলগুলোর কোচ আর দেশগুলোর নেতাদের নিমন্ত্রণ করে। স্কালোনির অধীনে ২০২১ সালে সর্বশেষ কোপা আমেরিকা আর্জেন্টিনাই জিতেছে।

শিরোপা ধরে রাখার সেই প্রতিযোগিতার ড্র অনুষ্ঠানে স্কালোনির যেতে না চাওয়ার খবরে প্রশ্ন উঠেছিল, তাহলে মায়ামিতে আর্জেন্টিনা দলের কোচিং স্টাফের প্রতিনিধিত্ব করবেন কে? সে ক্ষেত্রে আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (এএফএ) সভাপতি ক্লদিও তাপিয়ার সঙ্গে ফিটনেস কোচ লুইস মার্তিনের যাওয়ার সম্ভাবনা বেশি ছিল। তবে স্কালোনি সিদ্ধান্ত পাল্টানোর সে সংকট দূর হলো।

ক্লারিন জানতে পেরেছে যে এই মুহূর্তে স্পেনে আছেন স্কালোনি। পরিবার নিয়ে তিনি স্পেন থেকেই যুক্তরাষ্ট্রে যাবেন। তাঁর সিদ্ধান্ত বদলানোকে ভালো কিছুর ইঙ্গিত হিসেবেই দেখা হচ্ছে। মানে, মেসিদের কোচ হিসেবে তিনি থেকে যেতে পারেন।

গত ফেব্রুয়ারিতে এএফএর সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করেন স্কালোনি। সেই চুক্তির মেয়াদ ফুরাবে ২০২৬ বিশ্বকাপের পর। কিন্তু হঠাৎ স্কালোনির দায়িত্ব ছাড়তে চাওয়ার সঙ্গে নাকি জড়িয়ে আছে আর্থিক ব্যাপার। আর্জেন্টিনার বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, বিশ্বকাপ জেতায় স্কালোনি ও তাঁর সহকারীদের অর্থ পুরস্কার দেয়ার কথা থাকলেও এএফএ এখনো দেয়নি। এ কারণে ফেডারেশন সভাপতি তাপিয়ার সঙ্গে স্কালোনির দূরত্ব সৃষ্টি হয়েছে।

এ মাসে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের দুটি ম্যাচ শেষে কয় দিন নিজ এলাকা পুহেতায় ছুটি কাটিয়েছেন স্কালোনি। সে সময় তাপিয়ার সঙ্গে স্কালোনির আলোচনা করার কথা থাকলেও সেটা আলোর মুখ দেখেনি। স্কালোনি তাই স্পেনে পরিবারের কাছে গেছেন।

তিনি স্পেনে যেতেই এসেছে আরেক টাটকা খবর। আর্জেন্টিনার ফুটবলবিষয়ক ওয়েবসাইট দবলে আমারিয়া জানায়, মেসিদের দায়িত্ব ছেড়ে রিয়াল মাদ্রিদের কোচ হতে চলেছেন স্কালোনি। তাঁকে পেতে স্পেনের সফলতম ক্লাবটি নাকি প্রাথমিক আলোচনাও শুরু করেছে। তবে স্কালোনি চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাতে কিছুদিন সময় চেয়েছেন।

টিওয়াইসি স্পোর্টস অবশ্য জানিয়েছে, তাপিয়ার সঙ্গে স্কালোনি ও তাঁর সহকারীদের সম্পর্কের উন্নতি হয়েছে। কোপা আমেরিকার ড্র অনুষ্ঠানের আগে মায়ামিতেই তাঁরা বৈঠকে বসতে পারেন।


চমক দেখিয়ে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপে উগান্ডা

আপডেটেড ১ ডিসেম্বর, ২০২৩ ১৭:১২
ক্রীড়া ডেস্ক

২০২৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আফ্রিকা অঞ্চলের বাছাই পর্বে জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে প্রথম চমক দেখিয়েছিল উগান্ডা। বাছাই পর্বের শেষ ম্যাচে রুয়ান্ডাকে ৯ উইকেটে হারিয়ে দ্বিতীয় চমক দেখিয়েছে তারা। হাতে পেয়েছে মূল পর্বে খেলার টিকিট। প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের মঞ্চে খেলতে যাচ্ছে আফ্রিকান এই দেশটি।

আফ্রিকান অঞ্চলের বাছাইয়ে প্রথম দল হিসেবে আসন্ন বিশ্বকাপের টিকিট কেটেছিল নামিবিয়া। এবার তাদের সঙ্গে যোগ দিল উগান্ডা। আর উগান্ডার চমকজাগানিয়া পারফরম্যান্সে বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গেল জিম্বাবুয়ে। সদ্যসমাপ্ত ওয়ানডে বিশ্বকাপেও খেলার যোগ্যতা অর্জন করতে পারেনি সিকান্দার রাজারা।

রুয়ান্ডার বিপক্ষে টসে জিতে আগে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নেয় উগান্ডা। টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে ১৮.৫ ওভারে মাত্র ৬৪ রানে অলআউট হয় রুয়ান্ডা। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ৮.১ ওভারে মাত্র ১ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে নোঙর করে উগান্ডা। তাতেই নিশ্চিত হয় মূল পর্বে খেলার টিকিট।

২০২৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ যৌথভাবে আয়োজন করবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও যুক্তরাষ্ট্র। আসন্ন টুর্নামেন্টটিতে অংশ নেবে ২০ দল। স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ২০২২ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পারফরম্যান্স বিবেচনায় আসন্ন আসরের মূল পর্বে জায়গা করে নিয়েছে ১২টি দল। গত বিশ্বকাপের শীর্ষ আট দল- অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, ভারত, নেদারল্যান্ডস, নিউজিল্যান্ড, পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলঙ্কা এবং র‌্যাঙ্কিং বিবেচনায় রয়েছে আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ।

এ ছাড়া মহাদেশভিত্তিক কোয়ালিফায়ার খেলে বিশ্বকাপ নিশ্চিত করেছে আয়ারল্যান্ডস, স্কটল্যান্ড, পাপুয়া নিউগিনি, কানাডা, নেপাল, ওমান, নামিবিয়া এবং উগান্ডা।

বিষয়:

যে কারণে ভারতের কোচ হওয়ার প্রস্তাব ফেরালেন আশিস নেহরা

আপডেটেড ১ ডিসেম্বর, ২০২৩ ১৬:২৮
ক্রীড়া ডেস্ক

বিশ্বকাপের পর মেয়াদ শেষ হয়েছিল ভারতের প্রধান কোচ রাহুল দ্রাবিড়ের। এরপর নতুন কোচ কে হবেন, তা নিয়ে হয়েছে বিস্তর আলোচনা। তবে শেষ পর্যন্ত দ্রাবিড়ের সঙ্গেই আরও দুই বছরের চুক্তি করতে চায় ভারত। গতকাল সেটি নিশ্চিত করেছে ভারতীয় ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থা (বিসিসিআই)। দ্রাবিড়কে কোচ হওয়ার প্রস্তাব করলেও এর মধ্যেই ভারতের সাবেক পেসার আশিস নেহরাকে কোচ হওয়ার প্রস্তাব করেছিল বিসিসিআই। সে প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে দেন। কারণটা তেমন জটিল নয়। বর্তমানে দেশটির ফ্র্যাঞ্চাইজি গুজরাট টাইটানসের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ আছেন নেহরা। কোচ হিসেবে ২০২৫ সাল পর্যন্ত দলটির সঙ্গে থাকার কথা রয়েছে তার। যে কারণে বিসিসিআইয়ের প্রস্তাব পেয়েও সেটি প্রত্যাখ্যান করেছেন এই সাবেক ভারতীয় পেসার।

দেশের প্রধান কোচ হওয়ার প্রস্তাব ফেরানোর পেছনে আরেকটি কারণ হলো- নেহরা তার ছোট পরিবার ছেড়ে দূরে কোথাও যেতে চাচ্ছেন না। ফলে দেশের ফ্র্যাঞ্চাইজির কোচ হিসেবে থাকতেই বেশি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করছেন তিনি।

এদিকে রাহুল দ্রাবিড়ের সঙ্গে কত দিনের চুক্তি করতে যাচ্ছে বিসিসিআই, সেটি এখনো নিশ্চিত নয়। তবে গত দুই বছরে দারুণ সফলতা এনে দেয়া এই কোচ ২০২৪ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত দলের সঙ্গে থাকবেন বলে জানা গেছে। এরপর তার সঙ্গে চুক্তি নবায়নের বিষয়ে ফের আলোচনায় বসবে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড।


শয়তানির জন্য কেউ যদি দেশের ক্ষতি করে সেটা সহজভাবে নেয়া উচিত না: আকরাম

আপডেটেড ১ ডিসেম্বর, ২০২৩ ১৬:২৮
ক্রীড়া ডেস্ক

ভারত বিশ্বকাপে বাংলাদেশকে নিয়ে প্রত্যাশা ছিল অনেক বেশি। তবে পুরো টুর্নামেন্টে ছন্নছাড়া ছিল টাইগারদের পারফরম্যান্স। ৯ ম্যাচে মাত্র দুই জয় নিকট অতীতে বাংলাদেশের সবচেয়ে বাজে অভিজ্ঞতা। আর এমন ব্যর্থতার দায়ে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি তৈরি করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

কমিটিতে থাকার মধ্যে একজন দেশের ক্রিকেটের অন্যতম কিংবদন্তি ও সাবেক অধিনায়ক আকরাম খান। দায়িত্ব পেয়ে গণমাধ্যমকে জানালেন, দেশের ক্ষতি সহজভাবে নেবেন না তিনি। এমনকি সম্প্রতি বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের কড়া সিদ্ধান্ত গ্রহণের মনোভাবকেও ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন আকরাম।

নিজের দায়িত্ব প্রসঙ্গে আকরাম খান বলেন, ‘আমাদের ভাবতে হবে আমরা নিজের জন্য খেলি না বাংলাদেশের জন্য খেলি। বাংলাদেশ কিন্তু সবার। এখানে ব্যক্তিগত কোনো লাভের জন্য, হিংসার জন্য বা শয়তানির জন্য কেউ যদি দেশের ক্ষতি করে, সেটা সহজভাবে নেয়া উচিত না এবং আমি নেবও না। যে সত্য জিনিসটা বের হবে আমরা তা বোর্ডকে দেব এবং আশা করি বোর্ড সেটা সিদ্ধান্ত নেবে।’

২০০৩ বিশ্বকাপেও বাংলাদেশের ভরাডুবি হয়েছিল। সেবার মূল স্কোয়াডেই ছিলেন আকরাম খান। সেই আসরের পর তদন্ত কমিটি হলেও সেখান থেকে আসেনি সিদ্ধান্ত। এ কথাও স্মরণে রেখেছেন আকরাম, ‘যেহেতু আমার মনে আছে ২০০৩ সালে আমি বিশ্বকাপে মাঝপথে গিয়েছিলাম দক্ষিণ আফ্রিকা। তখনও বাংলাদেশ দল অত ভালো করেনি। শুরুতে কানাডার কাছে হেরেছিল। তখন তদন্ত ঠিকই হয়েছে তবে সিদ্ধান্তে যায়নি। এবার যেহেতু আমি আছি এবং আমাদের বোর্ড সভাপতি কিন্তু বলেছেন, উনি কিছু কঠিন সিদ্ধান্ত নেবে। আমার মনে হয়, এটাই সঠিক সময়।’

কবে নাগাদ কাজ শুরু করবেন আকরামরা, এমন প্রশ্নে কিছুটা ভরসাই জুগিয়েছেন, ‘আমরা চেষ্টা করব যত তাড়াতাড়ি সম্ভব (কাজ শুরু করতে)। যার যা প্রয়োজন মনে করি সবাইকে দেশের স্বার্থে আসতে হবে এবং আসা উচিত, যে যত ব্যস্তই থাকুক। আমরাও অনেক ব্যস্ত থাকি। যদি না আসে রিপোর্ট দেয়া কঠিন। আমরা যদি দেশের জন্য কাজ করি সবাইকে সহযোগিতা করতে হবে দেশের জন্য।’

তদন্তের ফলাফল কার্যকরে বদ্ধপরিকর আকরাম, ‘সিদ্ধান্ত তো বোর্ডে আসবে। অবশ্যই এই রিপোর্ট যেন কার্যকর হয় তা আমি নিশ্চিত করব, না হলে এখানে আমার থাকার তো দরকার নেই। এখানে যা হয় অবশ্যই বোর্ড সভাপতি আপনাদের বলবেন, এটা আপনারাও জানতে পারবেন। সবকিছু যাচাই করব সত্য-মিথ্যা যা আছে। যতটুকু পারি ১০০% যাচাই করব।’

বিষয়:

ভারত খুব দ্রুত একটা বিশ্বকাপ জিততে চলেছে: রবি শাস্ত্রী

আপডেটেড ২৯ নভেম্বর, ২০২৩ ১৩:৩৪
ক্রীড়া ডেস্ক

ঘরের মাঠে বিশ্বকাপ হওয়ায় এবার ভারতের শিরোপা জয়ের সম্ভাবনা দেখেছিল অনেকেই। তবে ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হেরে স্বপ্ন অধরাই থেকে যায় টিম ইন্ডিয়ার। এ বছর না পারলেও আগামী বছরের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শিরোপা জিতবে ভারত। এমন মন্তব্য করেছেন দেশটির সাবেক কোচ ও অধিনায়ক রবি শাস্ত্রী। এর পাশাপাশি বিশ্বকাপের ফাইনাল হারের পেছনে দলের পারফরম্যান্স নয় বরং ভাগ্যকেই দোষ দিয়েছেন সাবেক এই ক্রিকেটার।

২০১১ সালের পর আর কোনো বিশ্বকাপ শিরোপার স্বাদ পায়নি ভারত। যদিও, এবার সবাই ধরেই নিয়েছিল টিম ইন্ডিয়ার হাতেই উঠবে মেগা ইভেন্টের শিরোপা। কিন্তু উড়তে থাকা দলটি এক বুক হতাশা নিয়েই আসর শেষ করেছে। রবি শাস্ত্রী মনে করেন শুধু পারফরম্যান্সই নয়, ফাইনালে প্রয়োজন ছিল ভাগ্যেরও। ভারতের সাবেক ক্রিকেটার ও কোচ রবি শাস্ত্রী বলেন, ‘সত্যি বলতে শক্তিশালী দল হয়েও বিশ্বকাপ জিততে না পারা কষ্টের। কিন্তু সহজে কিছু আসে না। শচীন টেন্ডুলকারকেও ছয়টি বিশ্বকাপ অপেক্ষা করতে হয়েছে। এত সহজে বিশ্বকাপ জেতা যায় না।’

তীরে এসে তরি ডোবা। এই শব্দটা পুরোপুরি মিলে যায় ভারতের সঙ্গে। বিশ্বকাপের পুরো আসর জুড়ে যে দলটি ডমিনেট করেছে অন্য দলগুলোকে, ঘরের মাঠে সে দলটিই মুখ থুবড়ে পড়েছে ফাইনালে। অস্ট্রেলিয়ার কাছে ভারতের এমন একপেশে হারের ব্যাখ্যা অনেকেই দিচ্ছেন অনেকভাবে। তবে, সাবেক কোচ ও অধিনায়ক রবি শাস্ত্রী বলছেন ভিন্ন কথা। ওয়ানডে বিশ্বকাপ শেষ। তবে শেষ হয়নি বিশ্বকাপ উন্মাদনা। আগামী জুনে উত্তর আমেরিকায় হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। আর সেখানেই দল নিজেদের সামর্থ্য ভালোভাবে জাহির করবে বলে মনে করেন সাবেক এই কোচ।

রবি শাস্ত্রী বলেন, ‘হার কষ্টদায়ক। তবে আমাদের ছেলেরা অনেক কিছু শিখতে পেরেছে। আমি দেখছি ভারত খুব দ্রুত একটা বিশ্বকাপ জিততে চলেছে। হয়তো সেটা ৫০ ওভারের নয়। দলটিও নতুন করে সাজাতে হবে। তবে, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারত দল সবাইকে চ্যালেঞ্জ জানাবে। আর আমার মতে ভারতীয় দলের এখন থেকেই শর্টার ফরম্যাটের প্রস্তুতি নেয়া উচিত।’


টস জিতে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ

আপডেটেড ২৮ নভেম্বর, ২০২৩ ১৪:০৮
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে টস জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ।

মঙ্গলবার সিলেটের লাক্কাতুরায় অবস্থিত আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নতুন অধিনায়কের অধীনে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশের নতুন চ্যালেঞ্জ।

নতুন টেস্ট অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত হোসেনের নেতৃত্বে এই ম্যাচে নতুন এক ক্রিকেটারের অভিষেকও দেখছে বাংলাদেশ। সিনিয়র ক্রিকেটারদের অনুপস্থিতিতে এই টেস্টে জায়গা পাচ্ছেন শাহাদাৎ হোসেন দিপু। দলে ওপেনার হিসেবে আছেন মাহমুদুল হাসান জয় এবং জাকির হোসেন। আর লিটন দাসের স্থলে উইকেটরক্ষকের দায়িত্ব পালন করবেন নুরুল হাসান সোহান।

বাংলাদেশ একাদশে আরও রয়েছেন— মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, শরীফুল ইসলাম ও নাঈম হাসান।

এদিকে নিউজিল্যান্ড একাদশে রয়েছেন— টিম সাউদি (অধিনায়ক), ডেভন কনওয়ে, টম ল্যাথাম, কেইন উইলিয়ামসন, হেনরি নিকোলস, ড্যারিল মিচেল, টম ব্লান্ডেল (উইকেটকিপার), গ্লেন ফিলিপস, কাইল জেমিসন, ইশ সোধি ও এজাজ প্যাটেল।


রাজধানীর শ্যামলীতে বাসে আগুন

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীর শ্যামলীতে সড়ক ও জনপথ এলাকায় বৈশাখী পরিবহনের একটি বাসে অগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। সোমবার বিকেল পৌনে ৪টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পরে স্থানীয় জনতা গিয়ে আগুন নির্বাপণ করে।

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের গণমাধ্যম কর্মকর্তা শাহজাহান শিকদার বলেন, ‘বিকেল পৌনে ৪টার দিকে শ্যামলী সড়ক ও জনপথ এলাকায় দুর্বৃত্তরা একটি বাসে আগুন দিয়েছে বলে ফায়ার সার্ভিসে সংবাদ দেয়া হয়। খবর পেয়ে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কল্যাণপুর স্টেশনের দুটি ইউনিট পুলিশ প্রটেকশনে ঘটনাস্থলে ৩টা ৫১ মিনিটের সময় পৌঁছে। তবে এর আগেই স্থানীয় জনতা আগুন নিভিয়ে ফেলে।’

এদিকে নির্বাচনের তফসিল বাতিল, সরকারের পদত্যাগ, নির্দলীয় সরকার গঠন এবং কারাবন্দি নেতাদের মুক্তির দাবিতে আরও দুই দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি। কর্মসূচি অনুযায়ী, আগামী বুধবার সকাল ৬টা থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা পর্যন্ত অবরোধ কর্মসূচি পালিত হবে। এছাড়া, বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত হরতাল পালিত হবে।


মিয়ানমার ফুটবল দলকে ভিসা দেয়নি অস্ট্রেলিয়া

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

মিয়ানমার ও অস্ট্রেলিয়ার দুই দলের মধ্যকার এএফসি কাপের একটি ম্যাচ নিরপেক্ষ ভেন্যু থাইল্যান্ডে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। মিয়ানমারের ফুটবল দলকে ক্যানরেরার ভিসা না দেওয়ায় ম্যাচটির পুর্ব নির্ধারিত ভেন্যু সরিয়ে নেয়া হয়েছে বলে সোমবার জানিয়েছে ফুটবল অস্ট্রেলিয়া। খবর এএফপির।

অস্ট্রেলিয়ান ক্লাব ম্যাকার্থারের সঙ্গে দ্বিতীয় সারির আঞ্চলিক টুর্নামেন্টে বৃহস্পতিবার শান ইউনাইটেডের প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার কথা সিডনিতে।

তবে ফুটবল অস্ট্রেলিয়া বলেছে, কর্মকর্তারা সফরকারী মিয়ানমার দলকে ভিসা দিতে অস্বীকার করায় ‘অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ম্যাচটি আয়োজনের কোন কার্যকর উপায় নেই।’ তারা জানায়, ম্যাচটি থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককের বিজি স্টেডিয়ামে স্থানান্তর করা হয়েছে।

তবে ভিসা না দেয়ার কারণ ব্যাখ্যা করেনি ফুটবল অস্ট্রেলিয়া। এ বিষয়ে অস্ট্রেলিয়ার হোম অ্যাফেয়ার্সের মন্তব্য চাওয়া হলেও এতে সাড়া দেয়নি। এর আগে মানবাধিকার সংগঠনগুলো শান ইউনাইটেড এবং মিয়ানমারের সামরিক জান্তার মধ্যে কথিত সম্পর্ক নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিল।

এদিকে গত অক্টোবরে সরকারি পরামর্শ উপেক্ষা করে মিয়ানমারে খেলতে যাওয়ায় ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছিল ম্যাকার্থার।


ওয়ানডেতে ওভার কমানোর পক্ষে থ্রি সিক্সটি ডিগ্রি এবি ডি

আপডেটেড ২৭ নভেম্বর, ২০২৩ ১৬:৪৯
ক্রীড়া ডেস্ক

তিন ফরম্যাটের ক্রিকেটে টি-টোয়েন্টিই এখন বেশি জনপ্রিয়। এর সঙ্গে যোগ হয়েছে ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্ট। যে কারণে ওয়ানডে ফরম্যাটে ভবিষ্যৎ নিয়ে আলোচনা চলছিও ওয়ানডে বিশ্বকাপ চলাকালে। ফরম্যাটটিকে বাঁচিয়ে রাখতে এবার নতুন তত্ত্ব নিয়ে এসেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার কিংবদন্তি তারকা এবি ডি ভিলিয়ার্স। তিনি দুটি টি-টোয়েন্টি মিলিয়ে, অর্থাৎ ৪০ ওভারে ওয়ানডে ম্যাচ নামিয়ে আনার পরামর্শ দিয়েছেন।

নিজের ইউটিউব চ্যানেলে এ প্রসঙ্গে মিস্টার থ্রি-সিক্সটি ডিগ্রি খ্যাত তারকা বলেন, ‘আমি (এবারের) বিশ্বকাপে অনুভব করেছি- খেলাটা আমার কাছে ধীরগতির লেগেছে। ৫০ ওভারের খেলাটাকে ৪০ ওভারের খেলায় রূপান্তর করা যেতে পারে। শুধু খেলাটা একটু ছোট করা আরকি। হয়তো দুটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ হতে পারে, যেখানে প্রথম টি-টোয়েন্টির পর বিরতি থাকবে। প্রথম ম্যাচ শেষে রানগুলো যোগ হবে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে।’

একই সঙ্গে বিরতির পর একাদশ পরিবর্তনের সুযোগ রাখারও পরামর্শ ভিলিয়ার্সের, ‘দ্বিতীয় ম্যাচে দলগুলো সুযোগ পাবে দলে বদল আনার। তো আপনি ১৫ জনের স্কোয়াড বাছাই করবেন। সেখান থেকে দ্বিতীয় ম্যাচে ধরুন, বাড়তি স্পিনার নামালেন। প্রথম ম্যাচ শেষে ৩০ রান পিছিয়ে থাকলে আপনি হয়তো অতিরিক্ত ব্যাটার নামিয়ে আগ্রাসী হলেন। আমার মনে হয়, এটা চমৎকার দৃশ্য হতে পারে।’

মোটকথা ওয়ানডে ফরম্যাটে অবশ্যই পরিবর্তন দরকার বলে মত সাবেক প্রোটিয়া অধিনায়কের, ‘এমনকি দ্বিতীয় ম্যাচের জন্য আরেকটা টসও হতে পারে। অথবা এভাবে হতে পারে যে, যারা প্রথমে ব্যাট করেছে, তাদের দ্বিতীয় ম্যাচে পরে ব্যাট করতেই হবে। আমার মনে হয়, এটার মধ্যে ভালো রোমাঞ্চ আছে। আমি অনুভব করি, আইসিসির কিছু না কিছু বদল আনা দরকার ৫০ ওভারের ক্রিকেটে। আমি মনে করি, ফরম্যাটটা বড় চাপের মধ্যে আছে। ২০ ওভারের খেলা বিনোদনদায়ক। সবাই টি-টোয়েন্টি ভালোবাসে। ৫০ ওভারের বদলে দুইটা টি-টোয়েন্টির জায়গা আছে তাই। ৫০ ওভারের ফরম্যাট থাকবে, ওয়ানডে বিশ্বকাপও থাকবে, কিন্তু এভাবে কিছু বিনোদন আনা গেল। আমি মনে করি, এটা দর্শকদের জন্য খুবই বিনোদনদায়ক হবে। দুই টি-টোয়েন্টির মাধ্যমে সময় কিছুটা কমিয়েও আনা যাবে। সৃজনশীল হোন, ক্রিকেটবিশ্বে এখন সৃজনশীল হওয়ার সময়।’

এর আগে ওয়ানডে ফরম্যাটকে দুভাগে ভাগ করার পরামর্শ দিয়েছিলেন ভারতীয় কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকার, রবি শাস্ত্রী সহ আরও অনেকে।

বিষয়:

অ্যান্ডারসনের বিশ্বকাপ স্কোয়াডে সাইলেন্ট কিলার মাহমুদউল্লাহ

আপডেটেড ২৪ নভেম্বর, ২০২৩ ১৫:৩৫
ক্রীড়া ডেস্ক

শেষ হয়েছে ওয়ানডে বিশ্বকাপের ১৩তম আসর। এবারের আসরে স্বাগতিক ভারতকে হারিয়ে ষষ্ঠবারের মতো শিরোপা ঘরে তুলেছে অস্ট্রেলিয়া। বিশ্বকাপ শেষে প্রতিবারের মতো সেরা ক্রিকেটারদের নিয়ে এমন একাদশ ঘোষণা করেছে আইসিসি। সাবেক ও বর্তমান অনেক ক্রিকেটারই নিজের পছন্দের একাদশ ঘোষণা করেছেন। সেগুলোর মধ্যে কোনো একাদশেই জায়গা হয়নি বাংলাদেশের কোনো ক্রিকেটারের। তবে ইংল্যান্ডের পেসার জেমস অ্যান্ডারসনের পছন্দের একাদশে জায়গা পেয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

আইসিসির একাদশের অধিনায়কত্ব ছিল রোহিত শর্মার কাঁধে। সেই একাদশে রোহিতসহ ভারতের ক্রিকেটার ছিলেন ছয়জন। অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটার ছিলেন কেবল দুজন। তবে ইংলিশ পেসার অ্যান্ডারসন স্কোয়াড তৈরি করেছেন ভিন্ন উপায়ে।

বিশ্বকাপে খেলা দশ দলের দশ ক্রিকেটারকে একাদশে রেখেছেন তিনি। কেবল ফাইনালে ওঠা ভারত থেকেই দুজনকে রেখেছেন নিজের একাদশে। আসরের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ও ম্যান অব দ্য টুর্নামেন্ট নির্বাচিত হওয়া বিরাট কোহলির পাশাপাশি সবচেয়ে বেশি উইকেট নেয়া মোহাম্মদ শামিকেও দলে নিয়েছেন তিনি।

এদিকে বাংলাদেশ থেকে মাহমুদউল্লাহকেই বেছে নিয়েছেন এই পেসার। চলতি বিশ্বকাপে ব্যাট হাতে অসাধারণ ফর্মে ছিলেন মাহমুদউল্লাহ। বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দল ব্যর্থ হলেও নিজের পারফরম্যান্সে আলোচনায় ছিলেন এই অভিজ্ঞ ক্রিকেটার। সাত ইনিংসে প্রায় ৫৫ গড়ে তার ব্যাট থেকে আসে ৩২৮ রান। এবারের আসরে বাংলাদেশের হয়ে একমাত্র সেঞ্চুরিটিও করেন তিনি।

এ ছাড়াও আছেন মোহাম্মদ রিজওয়ান, ডেভিড মালানের মতো ক্রিকেটাররাও। অস্ট্রেলিয়া থেকে আছেন শুধু অ্যাডাম জাম্পা।

অ্যান্ডারসনের বিশ্বকাপ সেরা একাদশ: ডেভিড মালান (ইংল্যান্ড), রাচিন রবীন্দ্র (নিউজিল্যান্ড), বিরাট কোহলি (ভারত), মোহাম্মদ রিজওয়ান (পাকিস্তান), হাশমতউল্লাহ শহীদি (আফগানিস্তান), মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (বাংলাদেশ), স্কট এডওয়ার্ডস (নেদারল্যান্ডস), দিলশান মাদুশাঙ্কা (শ্রীলঙ্কা), জেরাল্ড কোয়েটজে (সাউথ আফ্রিকা), অ্যাডাম জাম্পা (অস্ট্রেলিয়া) ও মোহাম্মদ শামি (ভারত)।


টিম সাউদির নেতৃত্বাধীন নিউজিল্যান্ড দল এখন সিলেটে

আপডেটেড ২৩ নভেম্বর, ২০২৩ ১৮:৫৫
ক্রীড়া প্রতিবেদক

স্বাগতিক বাংলাদেশের বিপক্ষে দুই টেস্ট সিরিজ খেলতে গত সোমবার ঢাকা এসে পৌঁছে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দল। ঢাকায় একটি হোটেলে অবস্থান করে গতকাল সিলেটের বিমান ধরে কিউইরা। বর্তমানে প্রথম টেস্টের ভেন্যু সিলেটে অবস্থান করছে নিউজিল্যান্ড দল। আজ বৃহস্পতিবার থেকে অনুশীলন শুরু করবে নিউজিল্যান্ড দল। প্রথম টেস্ট ম্যাচের আগে একটি দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার কথা ছিল কিউইদের। কিন্তু নিউজিল্যান্ড বোর্ডের অনুরোধে সেই প্রস্তুতি ম্যাচটি বাতিল করা হয়। কারণ দীর্ঘ সময় ধরে বিশ্বকাপে অংশ নেয়া খেলোয়াড়দের বিশ্রাম দিতে চায় তারা। আগামী ২৮ নভেম্বর সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রথম টেস্ট এবং ৬ ডিসেম্বর মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শুরু হবে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট ম্যাচ।

বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ দিয়ে ২০২৩-২০২৫ আইসিসি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের নতুন চক্র শুরু হবে। শক্তিশালী দল নিয়ে বাংলাদেশে এসেছে নিউজিল্যান্ড। টিম সাউদির নেতৃত্বাধীন ১৫ সদস্যের দলে স্পিনার এজাজ প্যাটেল, ইশ সোদি, মিচেল স্যান্টনার, রাচিন রবীন্দ্র ও গ্লেন ফিলিপসকে রাখা হয়েছে। মূলত কন্ডশিন বিবেচনায় তাদের দলে নেয়া হয়েছে। বাঁহাতি স্যান্টনার বিশ্বকাপে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখান। ২০২১ সালে শেষ টেস্ট ম্যাচ খেলেছিলেন তিনি। অপরদিকে, রাচিন রবীন্দ্রের জন্য অবিস্মরণীয় বিশ্বকাপ ছিল। ২০২১ সালে ভারতের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক হওয়ার পর আবার দলে ফিরলেন রাচিন। তবে ট্রেন্ট বোল্টকে পায়নি নিউজিল্যান্ড। তাদের পেস ইউনিটের নেতৃত্বে থাকবেন লুক রঞ্চি। বাংলাদেশের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের শেষ টেস্ট সিরিজ ১-১ তে ড্র হয়েছিল।

এদিকে, বিশ্বকাপ চলাকালীন ইনজুরিতে পড়ায় নিয়মিত অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের অনুপস্থিতিতে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেবেন নাজমুল হোসেন শান্ত। এক মাসের জন্য পিতৃত্বকালীন ছুটি পেয়েছেন গত জুনে আফগানিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশের শেষ টেস্টে নেতৃত্ব দেয়া লিটন দাস। সিরিজে খেলছেন না অভিজ্ঞ ওপেনার তামিম ইকবাল। ইনজুরির কারণে সিরিজ থেকে ছিটকে গেছেন দুই পেসার তাসকিন আহমেদ এবং এবাদত হোসেন। অন্যদিকে, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের জন্য পুনরায় বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের টিম ম্যানেজার হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন তামিমের বড় ভাই নাফিস ইকবাল। গত সেপ্টেম্বরে বিশ্বকাপের আগে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশের শেষ ওয়ানডে দ্বিপাক্ষিক সিরিজে টিম ম্যানেজার হিসেবে কাজ করেছিলেন টাইগারদের সাবেক ওপেনার নাফিস। ঐ সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে চলাকালীন হঠাৎ ড্রেসিংরুম ছেড়ে চলে যান নাফিস। পরে জানা যায়, বিশ্বকাপের জন্য বাংলাদেশ দলের অংশ থেকে বাদ দেয়া হয় তাকে।

নিউজিল্যান্ড দল: টিম সাউদি (অধিনায়ক), টম ব্লাডেল (উইকেটরক্ষক), ডেভন কনওয়ে, কাইল জেমিসন, টম লাথাম, ড্যারিল মিচেল, হেনরি নিকোলস, আজাজ প্যাটেল, গ্লেন ফিলিপস, রাচিন রবীন্দ্র, মিচেল স্যান্টনার, ইশ সোধি, কেন উইলিয়ামসন, উইল ইয়ং ও নিল ওয়াগনার।


চমক রেখে ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার দল ঘোষণা

আপডেটেড ২২ নভেম্বর, ২০২৩ ১৫:২৯
ক্রীড়া ডেস্ক

বিশ্বকাপের ফাইনালে হারের ক্ষত ভুলতে না ভুলতেই আবারও সেই অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হচ্ছে ভারত। যদিও ওয়ানডে নয়, হবে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। এই সিরিজের জন্য ঘোষিত দুই দলের স্কোয়াডেই রয়েছে চমক। ভারতে নেতৃত্ব দেবেন সুরিয়াকুমার যাদব। আর অস্ট্রেলিয়ার নেতৃত্ব দেবেন ম্যাথু ওয়েড।

বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া (বিসিসিআই) জানিয়েছে, সব ম্যাচেই নেতৃত্বে দেবেন যাদব। তবে প্রথম তিন ম্যাচে ভারতের সহঅধিনায়কত্বের দায়িত্ব পালন করবেন রুতুরাজ গায়কোয়াড়কে। সিরিজের সেই তিনটি ম্যাচে বিশ্রামে থাকলেও শেষ দুই ম্যাচে দলের সঙ্গে যোগ দেবেন শ্রেয়াস আইয়ার। একই সঙ্গে শেষ দুটি ম্যাচে ভারতের সহঅধিনায়কের দায়িত্ব পালন করবেন তিনি।

বিশ্বকাপ দলের তিন ক্রিকেটার আছেন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে এই সিরিজে। সুরিয়াকুমার ছাড়া বাকি দুইজন হলেন ইশান কিশান এবং প্রসিধ কৃষ্ণা। কিশান বিশ্বকাপে ম্যাচ খেললেও এবারের বিশ্বকাপে হার্দিক পান্ডিয়ার ইনজুরিতে স্কোয়াডে জায়গা করে নেয়া কৃষ্ণা একটি ম্যাচও খেলেননি। তাদের সঙ্গে যোগ দিচ্ছেন চোটের কারণে বিশ্বকাপ না খেলা অক্ষর প্যাটেল। বিশ্রামে আছেন রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলিরা। চোটের কারণে নেই হার্দিক পান্ডিয়া।

অন্যদিকে বিশ্বকাপ খেলা নিয়মিত কয়েকজন তারকাকে বিশ্রাম দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। তারা হলেন নিয়মিত অধিনায়ক প্যাট কামিন্স, জশ হ্যাজেলউড, ক্যামেরন গ্রিন ও মিচেল মার্শ। ছুটি নিয়েছেন ডেভিড ওয়ার্নার। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া একটি বিবৃতিতে জানিয়েছে, সদ্য বিশ্বকাপ জেতা ওয়ার্নাররা দেশে ফিরে ছুটি কাটাবেন।

এই সিরিজে অস্ট্রেলিয়াকে নেতৃত্ব দেবেন ম্যাথু ওয়েড। স্কোয়াডে অবশ্য রাখা হয়েছে ফাইনালের নায়ক ট্রাভিস হেডকে। গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, স্টিভেন স্মিথ, মার্কাস স্টইনিস, অ্যাডাম জাম্পারাও আছেন এই সিরিজে। শেষ মুহূর্তে ওয়ার্নার ছুটি চাওয়ায় দলে নেয়া হয়েছে ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার পেস বোলিং অলরাউন্ডার অ্যারন হার্ডিকে।

আগামী ২৩ নভেম্বর বিশাখাপত্তমে প্রথম টি-টোয়েন্টি খেলতে নামবে ভারত-অস্ট্রেলিয়া। ২৬ নভেম্বর থ্রিবান্দামে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি, ২৮ নভেম্বর গৌহাটিতে তৃতীয়, ১ ডিসেম্বর রায়পুরে চতুর্থ এবং ৩ ডিসেম্বর বেঙ্গালুরুতে পঞ্চম ও শেষ টি-টোয়েন্টি খেলবে দল দুটি।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজে ভারতের টি-টোয়েন্টি স্কোয়াড: সুরিয়াকুমার যাদব (অধিনায়ক), রুতুরাজ গায়কোয়াড়, ইশান কিশান, ইয়াশভি জায়সাওয়াল, তিলক ভার্মা, রিংকু সিং, জিতেশ শর্মা, ওয়াশিংটন সুন্দর, অক্ষর প্যাটেল, শিভম দুবে, রবি বিষ্ণয়, আর্শদিপ সিং, প্রসিধ কৃষ্ণা, আভেশ খান, মুকেশ কুমার ও শ্রেয়াস আইয়ার (শেষ দুই ম্যাচ)।

ভারতের বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়ার টি-টোয়েন্টি স্কোয়াড: ম্যাথু ওয়েড (অধিনায়ক), অ্যারন হার্ডি, জেসন বেহরেনডর্ফ, শন অ্যাবট, টিম ডেভিড, ন্যাথান এলিস, ট্রেভিস হেড, জস ইংলিস, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, তানবীর সাঙ্ঘা, ম্যাট শর্ট, স্টিভেন স্মিথ, মার্কাস স্টইনিস, কেইন রিচার্ডসন, অ্যাডাম জাম্পা।

বিষয়:

banner close