মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

ফটকের সামনে বাস কাউন্টার, নিরাপত্তাহীনতায় শিক্ষার্থীরা

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয় ফটকের সামনে অবৈধভাবে দাঁড়িয়ে থাকা বাসের সারি। সম্প্রতি তোলা। ছবি: দৈনিক বাংলা
মেহেরাবুল ইসলাম সৌদিপ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত
মেহেরাবুল ইসলাম সৌদিপ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত : ১২ নভেম্বর, ২০২২ ০৯:১৫

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) তৃতীয় ফটক। কিন্তু ফটকের সামনেই অবৈধ বাসস্ট্যান্ড। তাতে তীব্র যানজট লেগেই থাকে ওই এলাকাজুড়ে। এর ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ সাধারণ জনগণের ভোগান্তির শেষ নেই। সড়ক দুর্ঘটনা, চাঁদাবাজি ও যৌন হয়রানি এখানের নিয়মিত ঘটনা। এ ছাড়া ফটকের দেয়ালঘেঁষে বসা বিভিন্ন ফেরিওয়ালা পথচারীদের দুর্ভোগ আরও বাড়িয়ে দিয়েছে।

অবৈধ এ বাসস্ট্যান্ডের কারণে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন জবি শিক্ষার্থীরা। এখানে দাঁড়িয়ে থাকা পরিবহন শ্রমিকরা প্রায়ই বিশ্ববিদ্যালয়ের নারী শিক্ষার্থীদের শ্লীলতাহানিসহ নানাভাবে হয়রানি করে থাকেন। সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তৃতীয় ফটকটি বন্ধ করে দেয়ার কথা ভাবছে।

চলতি বছরের জানুয়ারিতেই তানজিল পরিবহনের একটি বাসের চালকের সহকারীর সঙ্গে ১৪তম ব্যাচের এক নারী শিক্ষার্থীর বাগ্‌বিতণ্ডা হলে একপর্যায়ে ওই শিক্ষার্থীকে শারীরিক লাঞ্ছনার শিকার হতে হয় বলে অভিযোগ ওঠে।

সর্বশেষ মাস দুয়েক আগেও সংগীত বিভাগের তিন শিক্ষার্থী বিহঙ্গ বাসে গুলিস্তান থেকে ক্যাম্পাসে যাওয়ার সময় চালকের সহকারীর সঙ্গে হাতাহাতি হয়। তাদের একজন শৈলী পাল দৈনিক বাংলাকে জানান, সেদিন রাতে সেই বাসের হেল্পার তার বান্ধবীর গায়ে হাত তোলে। এ ঘটনায় তারা সূত্রাপুর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছিলেন।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর কার্যালয়ে এ ধরনের অভিযোগ জমা পড়ে নিয়মিতই। এসব অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে প্রক্টর অফিস পুলিশ প্রশাসনকে সঙ্গে নিয়ে বাসমালিকদের সঙ্গে বৈঠক করেও ফল আসেনি। উল্টো বাসমালিকদের অভিযোগ, কয়েকজন নারীকে দিয়ে এসব ঘটনা তৈরি করে জবির শিক্ষার্থীরাই চাঁদাবাজি করছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ভবন দিয়ে প্রবেশ ও বের হওয়ার প্রধান ফটক ঘেঁষে দাঁড়িয়ে আছে সারি সারি বাস। সামনের ফুটপাতের ওপর বাস কাউন্টার থেকে টিকিট কাটার জন্য ভিড় জমিয়েছেন যাত্রীরা। এ কারণে ফুটপাত দিয়ে যাতায়াত করতে পারছেন না সাধারণ মানুষ।

এদিকে সপ্তাহের পাঁচ দিনই শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখরিত থাকে জবি ক্যাম্পাস। আবার শুক্র ও শনিবার আনাগোনা থাকে প্রফেশনাল বিভিন্ন প্রোগ্রামের শিক্ষার্থীদের। আশপাশের আরও কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান মিলিয়ে প্রায় ২৫ হাজার শিক্ষার্থীর চলাচল জনসন রোড ও লক্ষ্মীবাজার রোড দিয়ে। কিন্তু বাহাদুর শাহ পার্ক ও জবি সংলগ্ন উভমুখী রাস্তায় পরিবহন কাউন্টারের কারণে বাসগুলো একমুখী চলাচল করে। এতে প্রতিনিয়তই সেখানে যানজট লেগে থাকে।

এ বাসস্ট্যান্ডকে ঘিরে এখন প্রকাশ্যেই চলে চাঁদাবাজি। রাত ১০টার পর থেকে এর মাত্রা আরও বাড়তে থাকে। রিকশা, ভ্যান ও বাসসহ সব ধরনের যানবাহন থেকেই সিটি করপোরেশনের নামে তোলা হয় চাঁদা। তবে সিটি করপোরেশনের সঙ্গে এর কোনো সংযোগ নেই।

সিটি করপোরেশনের নামে চাঁদা তোলার বিষয়ে জানতে চাইলে ৩৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. আব্দুর রহমান মিয়াজী কোনো বক্তব্য দিতে রাজি হননি। তিনি এ বিষয়ে সিটি করপোরেশনের সঙ্গে কথা বলার জন্য পরামর্শ দেন। যোগাযোগ করলে সিটি করপোরেশন জানিয়েছে, রিকশা-ভ্যানের মতো যানবাহন থেকে চাঁদা নেয়ার কোনো বিধান তাদের নেই।

অন্যদিকে গভীর রাতে প্রতিটি বাস থেকে পুলিশ ১০০ টাকা হারে চাঁদা নেয় বলে অভিযোগ পরিবহন শ্রমিকদের। তবে তাদের কেউ নাম প্রকাশ করতে রাজি হননি। ফটকের পাশে থাকা পুলিশ বক্সের ইনচার্জ ও কোতোয়ালি থানার উপপরিদর্শক মো. নাহিদুল ইসলামও এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। এসব নিয়ে কথা বলতে রাজি হননি পরিবহন মালিকরাও।

এদিকে অবৈধ এই বাসস্ট্যান্ড উচ্ছেদ করতে বিভিন্ন সময় শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করলেও কোনো ব্যবস্থা নেয়নি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। বিভিন্ন সময় শিক্ষার্থীরা দুর্ঘটনার শিকার হলেও তা নিয়ে কোনো ভ্রুক্ষেপ নেই প্রশাসনের। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, প্রশাসন তাদের কথা না ভেবে সদরঘাটের যাত্রীদের কথা ভাবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মোস্তফা কামাল বলেন, কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে বাস এভাবে এলোমেলোভাবে জটলা পাকিয়ে থাকে না। সংশ্লিষ্ট পুলিশ প্রশাসনকে এ বিষয়ে বলা হয়েছে। এ ছাড়া রায়সাহেব বাজারে গাড়ি ঘোরানোর জায়গা নেই। এখন বাসস্ট্যান্ড যদি মুরগিটোলা হয়, তাহলে সদরঘাটের যাত্রীদের আবার গাড়ি ভাড়া দিয়ে যাওয়া-আসা করতে হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমদ বলেন, ‘এখানে বাসস্ট্যান্ডের কোনো অনুমতি নেই। সাবেক উপাচার্য তার সময়ে প্রশাসনের সহায়তায় এটি ধোলাইখালে স্থানান্তর করেন। কিন্তু কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তি ও অসাধু পুলিশ চাঁদাবাজি করার জন্যই এখানে বাসস্ট্যান্ড রেখেছে। আমিও মাঝেমধ্যে প্রকাশ্যেই চাঁদাবাজি করতে দেখেছি। ট্রাফিক বিভাগের সঙ্গে কথা বলে উপযুক্ত ব্যবস্থা নিতে প্রক্টরকে নির্দেশ দিয়েছি।’

জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে বিষয়গুলো জানানো হয়েছে। ডিএমপির ট্রাফিক বিভাগ থেকে শুরু করে লালবাগ জোনের লোকেরা এ ব্যাপারে যথাযথ ব্যবস্থা নেবে বলে আমাদের আশ্বস্ত করেছে।

ফটকের সামনে বিশৃঙ্খল অবস্থা ও বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা কর্মী সংকটে এরই মধ্যে তৃতীয় গেট বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। উপাচার্য ইমদাদুল হক বলেন, এই গেট একেবারেই বন্ধ করে দেয়া হবে। গেট যত কম থাকে ততই ভালো, এতে সবকিছু নিয়ন্ত্রণে থাকে। এ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তারক্ষীও কম।


চার মাসের মধ্যে প্রাথমিকে ১০ হাজার শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে

আপডেটেড ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ০০:০৯
বাসস

আগামী চার মাসের মধ্যে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ১০ হাজার শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে বলে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব ফরিদ আহমদ।

তিনি বলেন, 'প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে সারা দেশে নিয়োগ এই প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।'

গতকাল রোববার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চলমান উন্নয়ন কর্মকান্ডের অগ্রগতি পর্যালোচনা ও শিক্ষার গুণগত মানোন্নয়নের লক্ষ্যে আয়োজিত এক বিভাগীয় কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

শিক্ষকদের উদারচিত্তে শিক্ষাদানের আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, '২০৪১ সালের মধ্যে স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে স্মার্ট সিটিজেন অন্যতম উপাদান। আর এই স্মার্ট সিটিজেন তৈরির আঁতুড় ঘর প্রাথমিক বিদ্যালয়। সেলক্ষ্যে গুণগত মান নিশ্চিত করতে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের আওতায় আনা হবে।'

সচিব বলেন, '২০৩০ সালের মধ্যে শিক্ষক-শিক্ষার্থীর অনুপাত ১:৩০ হওয়ার লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে। বর্তমানে শিক্ষক-শিক্ষার্থীর অনুপাত ১:৩১ তে দাঁড়িয়েছে।'

তিনি আরও বলেন, ৩৯টি মন্ত্রণালয়ের মধ্যে এডিপি বাস্তবায়নে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রথম সারিতে। প্রায় সকল ডেভলপমেন্ট পার্টনার প্রাথমিক শিক্ষার সাথে কাজ করছে। দেশে প্রাথমিক শিক্ষায় যথেষ্ট অবকাঠামোর কাজ হয়েছে। আগামী ১৬ মাসের মধ্যে শিক্ষার চলমান উন্নয়ন কাজে ১৩ হাজার কোটি টাকা খরচ করার টার্গেট রয়েছে। এছাড়াও আরো ৭ হাজার কোটি টাকার চাহিদা দেওয়া হয়েছে। ময়মনসিংহ বিভাগে প্রাথমিক শিক্ষার অবকাঠামোগত উন্নয়নে যথাসময়ে কাজ শেষ করার জন্য নজরদারির প্রয়োজন।

মতবিনিময় কর্মশালায় ময়মনসিংহ বিভাগের ৪টি জেলার সকল জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার (ডিপিইও), সহকারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার (এডিপিইও), উপানুষ্ঠানিক শিক্ষার সহকারী পরিচালক, প্রাইমারি ট্রেনিং ইনস্টিটিউট (পিটিআই) সুপার, স্থানীয় সরকার ও প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) নির্বাহী প্রকৌশলী, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর (ডিপিএইচই) নির্বাহী প্রকৌশলীসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ ও নেপের কর্মকর্তাবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।


শহিদ দিবস উপলক্ষে কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটিতে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

আজ রোববার আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ২০২৪ উপলক্ষে কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশর অডিটরিয়ামে বিশেষ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

আলোচনা সভার সভাপতি কোষাধ্যক্ষ ও ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক এ এস এম সিরাজুল হক তার বক্তব্যে মাতৃভাষা আর রাষ্ট্রভাষা মধ্যে পার্থক্য বিশ্লেষন করেন। অধ্যাপক হক আরও বলেন, বীর শহিদদের স্বরণ ও ভাষাকে শ্রদ্ধা জানানোর জন্যেই ২১ শে ফেব্রুয়ারিতে আমরা ছুটি পাই। ভাষাকে শ্রদ্ধা জানাতে প্রমিত বাংলা ভাষা সর্বত্র ব্যবহারে গুরুত্ব দেয়ার জন্যে সকলকে আহবান করেন।

আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার এ এস এম জি ফারুক। তিনি তার বক্তব্যে ২১শে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে জাতিসংঘ কর্তৃক স্বীকৃতি পাওয়ার পটভূমি নিয়ে আলোচনা করেন। যাদের অবদানে এই স্বীকৃতি আসে, কানাডিয়ান প্রবাসী রফিকুল ইসলাম ও আব্দুস সালামের প্রতি শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু গবেষক এবং ব্র্যান্ডিং, পিআর ও এডমিশন ডিরেক্টর আফিজুর রহমান। তিনি ভাষার সঠিক ব্যাবহারের গুরুত্ব নিয়ে আলোচনা করেন। তিনি বলেন, ভাষা দিবসের সৃষ্টির কারন হলো, মাতৃভাষাগুলি যাতে হারিয়ে না যায় এবং প্রতিটি মাতৃভাষাই যেন সংরক্ষিত থাকে।

সিএসসি বিভাগের ডিন ও অধ্যাপক মিফতাহুর রহমান ‘সকল দেশের রানি সে যে আমার জন্মভূমি’ গান গেয়ে শোনান। অধ্যাপক ড. জহরুল আলম মিফতাহুর রহমানের গানের প্রশংসা করে বলেন, দেশের গান আমাদের উজ্জীবিত করে এবং সকলকে মাতৃভাষার প্রতি সম্মান জানানোর জন্যে আহবান করেন।

আলোচনা অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন এমসিজে বিভাগের লেকচারার আরউইন আহমেদ মিতু।


১৮তম শিক্ষক নিবন্ধনের প্রবেশপত্র ডাউনলোড শুরু

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
নিজস্ব প্রতিবেদক

১৮তম শিক্ষক নিবন্ধনের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা আগামী ১৫ মার্চ দুই ধাপে হবে। প্রিলিমিনারি পরীক্ষার প্রবেশপত্র ডাউনলোড প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

শুক্রবার রাত ১২টার পর থেকে চাকরিপ্রার্থীরা বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ) ওয়েবসাইট থেকে প্রবেশপত্র ডাউনলোড করতে পারছেন।

প্রার্থীদের বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ) ওয়েবসাইটে নিজ ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে লগইন করতে হবে। এরপর নিচে প্রবেশপত্র ডাউনলোডের অপশন দেখা যাবে। প্রবেশপত্রের প্রিন্ট কপি পরীক্ষা হলে অবশ্যই সঙ্গে রাখতে হবে।

এনটিআরসিএর বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, আগামী ১৫ মার্চ সকাল সাড়ে ৯টা থেকে সাড়ে ১০টা পর্যন্ত স্কুল ও স্কুল পর্যায়-২ পর্যায় এবং বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে সাড়ে ৪টা পর্যন্ত কলেজ পর্যায়ের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা হবে।

প্রিলিমিনারি পরীক্ষার কেন্দ্র প্রবেশপত্রে উল্লেখ থাকবে। পরীক্ষা হলে কালো বলপয়েন্ট কলম সঙ্গে আনতে হবে। কোনো প্রকার মোবাইল ফোন, সায়েন্টিফিক ক্যালকুলেটর বা ইলেকট্রিক ডিভাইস নিয়ে কেন্দ্রে প্রবেশ করা যাবে না।

১৮তম শিক্ষক নিবন্ধনে প্রায় ১৮ লাখ ৬৫ হাজার চাকরিপ্রার্থী আবেদন করেছেন। এনটিআরসিএ বলছে, এ আবেদন অতীতের সব রেকর্ডকে ছাড়িয়ে গেছে। ১৮তম শিক্ষক নিবন্ধনে গত বছরের ৯ নভেম্বর সকাল ৯টা থেকে প্রার্থীরা আবেদন করা শুরু করেন। আবেদন শেষ হয় ৩০ নভেম্বর। আবেদনকারী যোগ্য প্রার্থীদের প্রিলিমিনারি, লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা নেওয়া হবে।

প্রার্থীদের ১০০ নম্বরের এমসিকিউ ধরনের প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। পরীক্ষার সময় এক ঘণ্টা। এ পরীক্ষায় মোট ১০০টি প্রশ্ন থাকবে।

প্রার্থী প্রতিটি শুদ্ধ উত্তরের জন্য এক নম্বর পাবেন, তবে ভুল উত্তর দিলে প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য প্রাপ্ত মোট নম্বর থেকে শূন্য দশমিক ২৫ নম্বর কাটা হবে। প্রিলিমিনারি পরীক্ষার পাস নম্বর ৪০। তিনটি পর্যায়ে, অর্থাৎ স্কুল পর্যায়, স্কুল পর্যায়-২ ও কলেজ পর্যায়ে পৃথক প্রশ্নপত্রে পরীক্ষার্থীদের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা নেওয়া হবে।


ঢাবির ব্যবসায় শিক্ষা ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা আজ, আসনপ্রতি লড়বে ৩৬ জন

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

আজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষের ব্যবসায় শিক্ষা ইউনিটের (সাবেক ‘গ’ ইউনিট) ভর্তি পরীক্ষা।

শনিবার বেলা ১১টা থেকে ঢাকাসহ দেশের আটটি বিভাগীয় শহরে একযোগে শুরু হবে এ পরীক্ষা। চলবে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত। এই

আসন, আবেদনকারী ও কেন্দ্র

ইউনিটটিতে মোট আসন সংখ্যা রয়েছে ১ হাজার ৫০টি। এর মধ্যে বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য ৯৫টি, মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য ২৫টি এবং বাণিজ্য বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য ৯৩০টি আসন বরাদ্দ রয়েছে।

এই ইউনিটের মোট আসনের বিপরীতে ৩৭ হাজার ৬৮১ জন শিক্ষার্থীর আবেদন জমা পড়েছে। সেই হিসেবে প্রতিটি আসনের বিপরীতে লড়তে হবে ৩৬ জন শিক্ষার্থীকে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এবারের ভর্তি পরীক্ষায় চারটি ইউনিটে মোট আসনসংখ্যা ৫ হাজার ৯৬৫টি। এসব আসনের বিপরীতে মোট ২ লাখ ৭৮ হাজার ৯৯৬ জন শিক্ষার্থী আবেদন করেছেন।

ইউনিটের সংখ্যা ও নাম পরিবর্তন

আগে পাঁচ ইউনিটে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হলেও গত বছর থেকে শুধু চারটি ইউনিটে অনুষ্ঠিত হচ্ছে এই ভর্তি পরীক্ষা। বাদ দেওয়া হয়েছে পূর্বের ‘ঘ’ ইউনিট।

গতবছর ইউনিটগুলোর নাম পরিবর্তন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

আগের ‘ক’ ইউনিটের নাম পরিবর্তন করে রাখা হয়েছে বিজ্ঞান ইউনিট, ‘খ’ ইউনিটের নাম পরিবর্তন করে রাখা হয়েছে কলা, আইন ও সামাজিক বিজ্ঞান ইউনিট, ‘গ’ ইউনিটের নাম পরিবর্তন করে রাখা হয়েছে ব্যবসায় শিক্ষা ইউনিট এবং ‘চ’ ইউনিটের নাম পরিবর্তন করে চারুকলা ইউনিট।

নম্বর বণ্টন

প্রতিটি ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার সময় দেড় ঘণ্টা। এর মধ্যে চারুকলা ইউনিট ছাড়া বাকি সব ইউনিটে ৬০ নম্বরের বহুনির্বাচনী ও ৪০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা। শুধুমাত্র চারুকলা ইউনিটের পরীক্ষায় ৪০ নম্বরের বহুনির্বাচনী ও ৬০ নম্বরের অঙ্কন পরীক্ষা ছিল। এই ইউনিটে (চারুকলা) বহুনির্বাচনী পরীক্ষার জন্য ৩০ মিনিট ও অঙ্কন পরীক্ষার জন্য ৬০ মিনিট সময় থাকবে।

আর অন্যান্য ইউনিটের বহুনির্বাচনী পরীক্ষার জন্য ৪৫ মিনিট ও লিখিত পরীক্ষার জন্য ৪৫ মিনিট সময় থাকবে।

ভর্তি পরীক্ষায় মোট ১২০ নম্বরের ভিত্তিতে শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন করা হবে। এর মধ্যে ভর্তি পরীক্ষায় ১০০ এবং এসএসসি বা সমমান ও উচ্চমাধ্যমিক বা সমমান পরীক্ষার ফলাফলের ওপর থাকবে ২০ নম্বর।

এর আগে গত ১৮ ডিসেম্বর থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির আবেদন শুরু হয়। ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পেরেছেন।


ঢাবির কলা, আইন ও সামাজিক বিজ্ঞান ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা আজ

আপডেটেড ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ১০:৫৬
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা, আইন ও সামাজিক বিজ্ঞান ইউনিটের (সাবেক ‘খ’ ইউনিট) ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে আজ।

শুক্রবার বেলা ১১টা থেকে ঢাকাসহ দেশের আটটি বিভাগীয় শহরে একযোগে শুরু হবে এই ইউনিটের পরীক্ষা। চলবে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত।

এই ইউনিটে মোট আসন সংখ্যা রয়েছে ২ হাজার ৯৩৪টি। বিপরীতে ১ লক্ষ ২২ হাজার ২৭৯ জন শিক্ষার্থীর আবেদন জমা পড়েছে। সেই হিসাবে প্রতিটি আসনের বিপরীতে লড়তে হবে ৪২ জন শিক্ষার্থীকে।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল বেলা সোয়া ১১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান ভবন কেন্দ্র পরিদর্শন করবেন।

ঢাকা বিভাগের পরীক্ষা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে, চট্টগ্রাম বিভাগের চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে, রাজশাহী বিভাগের রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে, খুলনা বিভাগের খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে, সিলেট বিভাগের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে, রংপুর বিভাগের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে, বরিশাল বিভাগের বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ও ময়মনসিংহ বিভাগের পরীক্ষা বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হবে।

এ বছর ঢাকার মধ্যে ৬৬ কেন্দ্রের পাশাপাশি বিভাগীয় শহরগুলোসহ মোট ৮০টি কেন্দ্রে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এবারের ভর্তি পরীক্ষায় চারটি ইউনিটে মোট আসনসংখ্যা ৫ হাজার ৯৬৫টি। এসব আসনের বিপরীতে মোট ২ লাখ ৭৮ হাজার ৯৯৬ জন শিক্ষার্থী আবেদন করেছেন।

আগে পাঁচ ইউনিটে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হলেও গত বছর থেকে শুধু চারটি ইউনিটে অনুষ্ঠিত হচ্ছে এই পরীক্ষা। বাদ দেওয়া হয়েছে পূর্বের ‘ঘ’ ইউনিট।

গতবছর ইউনিটগুলোর নামও পরিবর্তন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

আগের ‘ক’ ইউনিটের নাম পরিবর্তন করে রাখা হয়েছে বিজ্ঞান ইউনিট, ‘খ’ ইউনিটের নাম পরিবর্তন করে রাখা হয়েছে কলা, আইন ও সামাজিক বিজ্ঞান ইউনিট, ‘গ’ ইউনিটের নাম পরিবর্তন করে রাখা হয়েছে ব্যবসায় শিক্ষা ইউনিট এবং ‘চ’ ইউনিটের নাম পরিবর্তন করে চারুকলা ইউনিট।

প্রতিটি ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার সময় দেড় ঘণ্টা। এরমধ্যে চারুকলা ইউনিট ছাড়া বাকি সব ইউনিটে ৬০ নম্বরের বহুনির্বাচনী ও ৪০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা হবে। শুধুমাত্র চারুকলা ইউনিটের পরীক্ষায় ৪০ নম্বরের বহুনির্বাচনী ও ৬০ নম্বরের অঙ্কন পরীক্ষা ছিল। এই ইউনিটে (চারুকলা) বহুনির্বাচনী পরীক্ষার জন্য ৩০ মিনিট ও অঙ্কন পরীক্ষার জন্য ৬০ মিনিট সময় থাকবে।

আর অন্যান্য ইউনিটের বহুনির্বাচনী পরীক্ষার জন্য ৪৫ মিনিট ও লিখিত পরীক্ষার জন্য ৪৫ মিনিট সময় থাকবে।

ভর্তি পরীক্ষায় মোট ১২০ নম্বরের ভিত্তিতে শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন করা হবে। এর মধ্যে ভর্তি পরীক্ষায় ১০০ এবং এসএসসি বা সমমান ও উচ্চমাধ্যমিক বা সমমান পরীক্ষার ফলাফলের ওপর থাকবে ২০ নম্বর।

কলা, আইন ও সামাজিক বিজ্ঞান ইউনিটের পর আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি ব্যবসায় শিক্ষা ইউনিট, ১ মার্চ বিজ্ঞান ইউনিট এবং ৯ মার্চ চারুকলা ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

এর আগে গত ১৮ ডিসেম্বর থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির আবেদন শুরু হয়। ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পেরেছেন।


বিএসএমআরএএইউতে শহীদ দিবস পালিত

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অ্যাভিয়েশন অ্যান্ড অ্যারোস্পেস বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমআরএএইউ) লালমনিরহাট এবং ঢাকা ক্যাম্পাসে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে।

একুশের প্রথম প্রহরে ঢাকা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বেদিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে দিবসটির কার্যক্রম শুরু হয়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অ্যাভিয়েশন অ্যান্ড অ্যারোস্পেস বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এয়ার ভাইস মার্শাল এ কে এম মনিরুল বাহার ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এ ছাড়া উপ-উপাচার্য, ট্রেজারার, রেজিস্ট্রার, অন্য কর্মকর্তা এবং কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের লালমনিরহাট ক্যাম্পাসেও লালমনিরহাট জেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বেদিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে দিবসটির কার্যক্রম শুরু হয়। বিজ্ঞপ্তি

বিষয়:

বঙ্গবন্ধু মেরিটাইম ইউনিভার্সিটিতে শহীদ দিবস পালিত

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেরিটাইম ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস- ২০২৪ পালন করা হয়েছে। দিনের শুরুতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ মুসার নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভাষা আন্দোলন ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের আলোকে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রধান অতিথি ছিলেন। সবশেষে, ভাষা শহীদদের রুহের মাগফিরাত কামনা, বাংলা ভাষার সার্বজনীন ব্যবহার এবং দেশ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি কামনা করে মোনাজাত করা হয়। বিজ্ঞপ্তি

বিষয়:

ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটিতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

নানান অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করেছে। গতকাল বুধবার সকালে রাজধানীর আফতাবনগরে ‘প্রভাত ফেরি’ এবং বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে নির্মিত শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি শুরু হয়। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘কালচারাল ক্লাব’-এর আয়োজনে ‘অবিনশ্বর বাহান্নো’ শিরোনামে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির প্রধান উপদেষ্টা এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন, বিশেষ অতিথি ছিলেন ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য এইচ এন আশিকুর রহমান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক শামস রহমান। প্রধান বক্তা হিসেবে আলোচনা করেন একুশে পদক বিজয়ী বিশিষ্ট রবীন্দ্র গবেষক ও শিক্ষাবিদ অধ্যাপক সৈয়দ আকরাম হোসেন। বিজ্ঞপ্তি

বিষয়:

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটির পুষ্পস্তবক অর্পণ

আপডেটেড ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ২০:০১
নিজস্ব প্রতিবেদক

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছে কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ। আজ বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন এর কোষাধ্যক্ষ ও ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক এ এস এম সিরাজুল হকসহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক ও কর্মকর্তারা।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক জহরুল আলম, ইইই বিভাগের হেড ড. ইফাত আল বাকী, এমসিজে বিভাগের লেকচারার ও কো-অর্ডিনেটর আরউইন আহমেদ মিতু, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) এ এস এম জি ফারুক, পিআর ব্র্যান্ডিং ও অ্যাডমিশন ডিরেক্টর আফিজুর রহমান এবং এইচ আর হেড কাজী সাব্বির হোসাইন।

শহীদ বেদীতে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে বইমেলায় কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের ৮৯৫নং স্টলটি পরিদর্শন করেন তারা।


জবির প্রক্টরিয়াল বডিতে নতুন দুই মুখ

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
জবি প্রতিনিধি

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) নতুন দুই জন সহকারী প্রক্টর নিয়োগ দেয়া হয়েছে। এ দুজন হলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. আল আমীন ও প্রাণিবিদ্যা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. মাসুদ রানা। একই সাথে দুই সহকারী প্রক্টরকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম দৈনিক বাংলাকে এ তথ্য জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মো. ওহিদুজ্জামান স্বাক্ষরিত দুইটি পৃথক অফিস আদেশও প্রকাশিত হয়েছে।

অফিস আদেশে বলা হয়েছে, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রথম সংবিধির ১৫(১) বিধি মোতাবেক সিন্ডিকেটের অনুমোদন সাপেক্ষে মার্কেটিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. আল আমীনকে পরবর্তী দুই বছরের জন্য সহকারী প্রক্টর হিসেবে নিযুক্ত করা হয়েছে। এ আদেশ ২০ ফেব্রুয়ারি থেকে কার্যকর হবে। বিধি মোতাবেক তিনি দায়িত্ব ভাতা প্রাপ্য হবেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বার্থে এ আদেশ জারি করা হয়েছে।

অন্য একটি অফিস আদেশে বলা হয়েছে, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রথম সংবিধির ১৫(১) বিধি মোতাবেক সিন্ডিকেটের অনুমোদন সাপেক্ষে প্রাণিবিদ্যা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. মাসুদ রানাকে পরবর্তী ০২ (দুই) বছরের জন্য সহকারী প্রক্টর হিসেবে নিযুক্ত করা হয়েছে। এ আদেশ ২০ ফেব্রুয়ারি থেকে কার্যকর হবে। বিধি মোতাবেক তিনি দায়িত্ব ভাতা প্রাপ্য হবেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বার্থে এ আদেশ জারি করা হয়েছে।

এর আগে রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেনকে দুই বছরের জন্য প্রক্টর নিয়োগ দেয়া হয়েছে। এছাড়াও ৫ ফেব্রুয়ারি পাঁচ সহকারী প্রক্টরকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতির পর নতুন করে পাঁচ শিক্ষককে সহকারী প্রক্টরের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।


সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটি বোর্ড অব ট্রাস্টের ১২৯তম সভা

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
দৈনিক বাংলা ডেস্ক

সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটি বোর্ড অব ট্রাস্টিজের ১২৯তম সভা রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্ট কনফারেন্স হলে অনুষ্ঠিত হয়েছে। বোর্ড চেয়ারম্যান রেজাউল করিম এতে সভাপতিত্ব করেন। সভায় একাডেমিক ও প্রশাসনিক বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা, রিপোর্ট পর্যালোচনা ও গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। সভায় উপস্থিত বোর্ড সদস্যরা তাদের মূল্যবান মতামত তুলে ধরেন এবং ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনা করেন। বিজ্ঞপ্তি

বিষয়:

এক কর্মকর্তার কম্পিউটার অন্যজনের ব্যবহারে ইসির নিষেধাজ্ঞা

ফাইল ছবি
আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
নিজস্ব প্রতিবেদক

জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) জালিয়াতি রোধে এক কর্মকর্তার কম্পিউটার অন্য কর্মকর্তা যেন ব্যবহার করতে না পারেন তা নিশ্চিত করতে মাঠপর্যায়ে নির্দেশনা দিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। আজ সোমবার এনআইডি শাখার সিস্টেম এনালিস্ট মোহাম্মদ আরিফুল ইসলাম নির্দেশনাটি সব আঞ্চলিক, জেলা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তাদের পাঠিয়েছেন।

যা বলা হয়েছে নির্দেশনায়

এনআইডি সংশোধনের ক্ষেত্রে আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তারা ‘গ’ ক্যাটাগরি, সিনিয়র জেলা/ জেলা নির্বাচন কর্মকর্তারা ‘খ’ ক্যাটাগরি, উপজেলা/ থানা নির্বাচন কর্মকর্তারা ‘ক’ ক্যাটারির সংশোধনের আবেদন নিষ্পত্তি করে থাকেন, বিধায় ওই কর্মকর্তাদের কার্ড ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (সিএমএস) অ্যাকাউন্ট খুবই সংবেদনশীল।

ওই কর্মকর্তাদের কম্পিউটার বা ল্যাপটপের মাধ্যমে যাতে সিএমএস অ্যাকাউন্ট কমপ্রমাইজ না হয় সেজন্য তাদের কম্পিউটার বা ল্যাপটপে দপ্তরের অন্য কোনো কর্মকর্তা বা কর্মচারী যাতে কাজ না করেন সেই বিষয়টি নিশ্চিতের জন্য আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা, সিনিয়র জেলা/ জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা, উপজেলা/ থানা নির্বাচন কর্মকর্তাদের অনুরোধ করা হলো। কর্মকর্তাদের কম্পিউটারগুলোতে কমপ্লেক্স (জটিল) পাসওয়ার্ড দিয়ে লক রাখতে হবে এবং টেবিল হতে ওঠার আগে অবশ্যই লক করে ওঠতে হবে।

এ ছাড়া বিশেষভাবে আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তার কম্পিউটারে এবং সিনিয়র জেলা/ জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কম্পিউটারে আন অথরাইজড কোনো সফটওয়ার, সার্ভিস চলছে কিনা তা যাচাই করে দেখতে হবে। প্রয়োজনে অপ্রয়োজনীয় সফটওয়্যার ও সার্ভিস বন্ধ করে দিতে হবে। প্রয়োজনে নতুনভাবে অপারেটিং সিস্টেম দিয়ে কম্পিউটার ফ্রেশ করে ওই কম্পিউটারে সিএমএস ব্যবহার করতে হবে।


আগামী বছরের এইচএসসি পরীক্ষাও সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে

ফাইল ছবি
আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
নিজস্ব প্রতিবেদক

আগামী বছরের উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) ও সমমান পরীক্ষাও পুনর্বিন্যাসকৃত (সংক্ষিপ্ত) সিলেবাসে অনুষ্ঠিত হবে। গত বছরের মতো চলতি বছরও পুনর্বিন্যাসকৃত সিলেবাস অনুযায়ী এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়া হবে।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক মো. আবুল বাশার স্বাক্ষরিত অফিস আদেশ থেকে এ তথ্য জানা যায়।

এতে বলা হয়, ২০২৫ সালে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার সিলেবাস ২০২৩ সালের অনুষ্ঠিত এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার জন্য পুনর্বিন্যাসকৃত সিলেবাস অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হবে।

এর আগে গত বছরের ১৮ ডিসেম্বর বাংলাদেশ আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটি জানায়, ২০২৫ সালের এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড, বাংলাদেশ প্রণীত ২০২৫ সালের পাঠ্যসূচি অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হবে। ২০২৫ সালের এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা সব বিষয়ে, পূর্ণ সময়ে ও পূর্ণ নম্বরে অনুষ্ঠিত হবে।

২০২০ সালে করোনা মহামারির কারণে এসএসসি পরীক্ষা হলেও এইচএসসি পরীক্ষা না নিয়ে সাবজেক্ট ম্যাপিং করে শিক্ষার্থীদের সনদ দেওয়া হয়। ২০২১ সালে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা শুধু গ্রুপভিত্তিক তিনটি নৈর্বাচনিক বিষয়ে পরীক্ষার সময় ও পরীক্ষার নম্বর হ্রাস করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে নেওয়া হয়। সে সিলেবাস কিছুটা বাড়িয়ে ২০২২ সালে নেওয়া হয় এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা। সে বছর পরীক্ষার সময় কিছুটা কম ছিল। আর গত বছর এসএসসি ও এইচএসসি সমমানের পরীক্ষা হয়েছে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে। তবে এসএসসির আইসিটি ছাড়া এ দুই পাবলিক পরীক্ষা অন্যান্য বিষয়ে পূর্ণ সময় ও নম্বরে নেওয়া হয়েছিল।


banner close