মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২২

মেয়েকে ধর্ষণের দায়ে বাবার যাবজ্জীবন

মেয়েকে ধর্ষণের দায়ে বাবার যাবজ্জীবন
আদালতের রায়। প্রতীকী ছবি
রংপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত

রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলায় ১৩ বছর বয়সী মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে এক বাবাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং এক লাখ টাকা জরিমানা করেছেন আদালত। মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রংপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন টাইব্যুনাল-২-এর বিচারক মো. রোকনুজ্জামান এ রায় ঘোষণা করেন।

আদালতের পরিদর্শক আনিছুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, রায় ঘোষণার সময় আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

সরকারপক্ষের আইনজীবী জাহাঙ্গীর আলম তুহিন বলেন, গঙ্গাচড়া উপজেলার মান্দ্রাইন বাঁধের পাড়ের বাসিন্দা মমিনুর ইসলাম (৪৫) স্ত্রীকে বাজারে নিজের চায়ের দোকানে পাঠিয়ে তার কিশোরী মেয়েকে তিন মাস ধরে একাধিকবার ধর্ষণ করেন। ২০১৭ সালের ১১ মার্চ মেয়েটির মা দোকানে থাকার সুযোগে তাকে আবারও ধর্ষণ করেন তার বাবা। পরদিন মেয়েটি বাড়ি থেকে পালিয়ে ঢাকার উদ্দেশে বেরিয়ে পড়ে। পরে খবর পেয়ে মেয়েকে রংপুর নগরীর বাসস্ট্যান্ড থেকে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসা হয়। এরপর তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে মেয়েটি তার মাকে সব খুলে বলে। এ ঘটনায় ১৩ মার্চ ওই মেয়ের মা বাদী হয়ে স্বামীর বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন। এরপর প্রায় পাঁচ বছর মামলাটি বিচারাধীন থাকার পর গতকাল রায় ঘোষণা করেন আদালত।

আইনজীবী তুহিন আরও বলেন, ‘এই আদেশ কার্যকর হবে আজ (মঙ্গলবার) থেকে। আমরা এ রায়ে খুশি। রায় ঘোষণার আগে আদালত একটি পর্যবেক্ষণ দিয়েছেন। সেখানে বিচারক বলেছেন, জাগতিক আদালতে সাক্ষ্যপ্রমাণে আপনি অপরাধী হয়েছেন। তাই এই আদেশ (শাস্তি) দিলাম। কিন্তু পরকালে মহান আল্লাহতায়ালা আপনাকে এই জঘন্যতম অপরাধের জন্য আরও কঠিন শাস্তি দেবেন।’


গাড়ি চাপায় প্রাণ গেল তরুণীর

গাড়ি চাপায় প্রাণ গেল তরুণীর
লাশ। প্রতীকী ছবি
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত

মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে গাড়ির চাপায় এক নারী নিহত হয়েছেন। আজ মঙ্গলবার বেলা ১১ টার দিকে উপজেলার ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেসওয়ের বেজগাঁও বাস স্ট্যান্ডে এ দুর্ঘটনা ঘটে। 

পুলিশ জানিয়েছে, ওই নারীর বয়স আনুমানিক ২০ বছর। তার নাম ঠিকানা এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত জানা যায়নি।

শ্রীনগর ফায়ার সার্ভিস স্টেশন ওয়্যারহাউজ ইন্সপেক্টর মাহফুজ রিবেজ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

হাঁসাড়া হাইওয়ে থানার সার্জেন্ট বাহারুল সোহাগ জানান, ওই নারীকে অজ্ঞাত একটি গাড়ি চাপা দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান ওই নারী। মরদেহ হাইওয়ে থানা পুলিশ হেফাজতে আছে।


বড় ভাইকে হত্যার দায়ে ছোট ভাইয়ের যাবজ্জীবন

বড় ভাইকে হত্যার দায়ে ছোট ভাইয়ের যাবজ্জীবন
সাজাপ্রাপ্ত আবদুল মান্নান।
লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত

লক্ষ্মীপুরে বড় ভাই আবদুল হান্নানকে কুপিয়ে হত্যার দায়ে ছোট ভাই আবদুল মান্নানকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। পাশাপাশি ১০ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরও এক বছরের কারাদণ্ডের রায় দেওয়া হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক রহিবুল ইসলাম এ রায় দেন। রায় ঘোষণার সময় আদালতে আসামি উপস্থিত ছিলেন।

জেলা জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি অ্যাডভোকেট জসিম উদ্দিন রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলার এজাহার এবং আদালত সূত্র জানায়, লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার পার্বতীনগর ইউনিয়নের চর পার্বতীনগর গ্রামের আনু মুন্সি বাড়ির বাসিন্দা আবুল কালামের দুই ছেলে আবদুল হান্নান ও আবদুল মান্নান। হান্নানকে বিয়ে করানোর পর থেকে দুই ভাইয়ের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হয়।

২০১৯ সালের ১৯ ফ্রেব্রুয়ারি রাত পৌনে ১২ টার দিকে হান্নান তার ছোট ভাইকে বসতঘরের জানালার পাশে দেখতে পেয়ে তার স্ত্রী সঙ্গে ঝগড়া শুরু করেন। এক পর্যায়ে তাকে মারধর করেন। এ সময় জানালার পাশে থাকা ছোট ভাই মান্নান একটি দা নিয়ে হান্নানের ঘরে ঢুকে। কথা-কাটাকাটির এক পর্যায়ে মান্নান তার বড় ভাই হান্নানের ঘাড়ে কোপ দেন। দায়ের কোপে হান্নানের ঘাড়ে বেশিরভাগ অংশ আলাদা হয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়।

পরদিন সকালে নিহতের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় তাদের বাবা আবুল কালাম ছোট ছেলে হান্নানকে আসামি করে সদর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরদিন পুলিশ মান্নানকে গ্রেপ্তার করে। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে তিনি ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন।

২০১৯ সালের ১৫ এপ্রিল মামলার তদন্ত কর্মকর্তা তৎকালীন সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রানা দাস আসামি মান্নানকে অভিযুক্ত করে আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেন। দীর্ঘ শুনানি শেষে প্রায় সাড়ে চার বছর পর এই মামলার রায় দেয়া হয়।


বিআইডব্লিউটিএ চেয়ারম্যানসহ ১৩ জনের নামে দুদকের মামলার সিদ্ধান্ত

বিআইডব্লিউটিএ চেয়ারম্যানসহ ১৩ জনের নামে দুদকের মামলার সিদ্ধান্ত
ছবি: সংগৃহীত
প্রতিবেদক, দৈনিক বাংলা
প্রকাশিত

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) চেয়ারম্যান কমোডর গোলাম সাদেকসহ ১৩ জনের নামে মামলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দুদক। আজ মঙ্গলবার অনুসন্ধান প্রতিবেদনের আলোকে মামলাটির অনুমোদন দেয় কমিশন।

সংস্থাটির উপসহকারী পরিচালক আলিয়াজ হোসেন যে কোনো সময় আসামিদের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করবেন।

অনুমোদিত মামলার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আরিচার নগরবাড়ি, কাজিরহাট, নরাদহ নদী বন্দরে ইজারা দেয়ায় কোনো নিয়ম-নীতি মানা হয়নি। এভাবে ২০২০-২১ এবং ২০২১-২২ এ দুই অর্থবছরে দুর্নীতির মাধ্যমে ইজারা দিয়ে ৬ কোটি ৮০ লাখ টাকার বেশি সরকারকে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এতে পরস্পর যোগসাজশে লাভবান হয়েছে আসামিরা। মামলায় গোলাম সাদেক ছাড়াও যাদের আসামি করা হয়েছে তারা হলেন, বিআইডব্লিউটিএ’র সদস্য দেলোয়ার হোসেন, দুই পরিচালক আবু জাফর হাওলাদার, ওয়াকিল নওয়াজ, অতিরিক্ত পরিচালক সাইফুল, যুগ্ম পরিচালক জুলফা খানম, উপপরিচালক মোস্তাফিজুর রহমানসহ সাবেক তিন উপপরিচালক সেলিম রেজা, কবির হোসেন, মাসুদ পারভেজ। এ ছাড়া তিন ইজাদারকেও মামলায় আসামি করা হচ্ছে। এর হলেন, এজাজ আহমেদ সোহাগ, সাইফ আহমেদ ইমন এবং রফিকুল ইসলাম খান।


ঘর ঝাড়ু দেয়া নিয়ে দুই নারীর মারামারি, প্রাণ গেল ১ জনের

ঘর ঝাড়ু দেয়া নিয়ে দুই নারীর মারামারি, প্রাণ গেল ১ জনের
লাশ। প্রতীকী ছবি
কুমিল্লা প্রতিনিধি
প্রকাশিত

কুমিল্লায় ঘর ঝাড়ু দেয়াকে কেন্দ্র করে দুই নারীর মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় এক নারী নিহত হয়েছেন। আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে নগরীর উনাইসার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহতের নাম মাহমুদ আক্তার (৪০)। তার বাড়ি মুরাদনগর উপজেলার মেটংঘর এলাকায়। 

কুমিল্লা ইপিজেড ফাঁড়ির ইনচার্জ মোহাম্মদ মোখলেছুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

মোখলেছুর জানান, এ ঘটনায় অভিযুক্ত রাহিমা বেগমকে আটক করা হয়েছে। রাহিমা বেগমের বাড়ি জেলার বরুড়া উপজেলায়। 

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে পুলিশ কর্মকর্তা জানান, নিহত মাহমুদা ও রাহিমা নগরীর উনাইসার এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় একই কক্ষে থাকতেন। মঙ্গলবার সকালে ঘুম থেকে উঠে কে ঘর ঝাড়ু দিবেন, এই নিয়ে তাদের মধ্যে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে মারামারি হয়।

পরে আহত অবস্থায় মাহমুদা আক্তারকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।


ট্রফি ভাঙা সেই ইউএনওকে বদলি

ট্রফি ভাঙা সেই ইউএনওকে বদলি
ইউএনও মেহরুবা ইসলাম । ছবি : সংগৃহীত
প্রতিবেদক, দৈনিক বাংলা
প্রকাশিত

বান্দরবানের আলীকদমে ফুটবল টুর্নামেন্টের ট্রফি ভেঙে ফেলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মেহরুবা ইসলামকে ঢাকা বিভাগে বদলি করা হয়েছে।

তাকে ইউএনও হিসেবে পদায়নের জন্য ঢাকার বিভাগীয় কমিশনারের অধীনে ন্যস্ত করে সোমবার প্রজ্ঞাপন জা‌রি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে তাকে ‘দ্য কোড অব ক্রিমিন্যাল প্রসিডিউর ১৮৯৮’ এর সেকশন-১৪৪ এর ক্ষমতাও দেয়া হয়েছে।

গত শুক্রবার উপজেলার ২নং চৈক্ষ্যং ইউপির রেপারপড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে ট্রফি ভেঙে আলোচনায় আসেন মেহরুবা।