বুধবার, ২৯ নভেম্বর ২০২৩

লাখো গাছ কেটে রোপণ ৩০ হাজার

মাসুম বিল্লাহ, গাইবান্ধা
প্রকাশিত
মাসুম বিল্লাহ, গাইবান্ধা
প্রকাশিত : ৫ জুন, ২০২৩ ১২:৪৭

সে দিন ছায়ায় এসো, হানো যদি কঠিন কুঠারে/তবুও তোমায় আমি হাতছানি দেব বারে বারে/ফল দেব, ফুল দেব, দেব আমি পাখিরও কূজন/ একই মাটিতে পুষ্ট তোমাদের আপনার জন।

কবি সুকান্ত ভট্টাচার্যের ‘আগামী’ কবিতায় এভাবেই মানুষের সঙ্গে প্রাণিকুলের ভারসাম্য আর বৃক্ষের নিঃস্বার্থ অবদানের কথা উঠে এসেছে। সে কথা উঠে এসেছে আরও সব কবি-সাহিত্যিকের কলমে। বিশ্বজুড়ে পরিবেশবিদ, পরিবেশ বিজ্ঞানী আর পরিবেশকর্মীরাও গাছের প্রয়োজনের কথা জানাতে জানাতে ক্লান্ত। অথচ বাংলাদেশে গাছ লাগানোর চেয়ে কাটার হারই অনেক বেশি। সেই একই চিত্র উত্তরের জেলা গাইবান্ধাতেও।

বন বিভাগসহ বিভিন্ন সূত্রে পাওয়া তথ্য বলছে, গত পাঁচ বছরের মধ্যে কেবল ২০২১-২২ অর্থবছরে শহরের ঘাঘট নদীর ৩০ কিলোমিটার বাঁধে ৩০ হাজার চারাগাছ রোপণ করেছে গাইবান্ধা বন বিভাগ। অথচ একই সময়ে এক লাখ ছয় হাজার গাছ কাটা পড়েছে।

সামাজিক বনায়ন জোনের গাইবান্ধার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এ এইচ এম শরিফুল ইসলাম মণ্ডল বলেন, এসব গাছ বাঁধের রিপিয়ারিং ও রাস্তা প্রশস্ত করার জন্য কাটা হয়েছে। বাঁধ ও রাস্তার কাজ শেষ হলে ওই সব স্থানে গাছ লাগানো হবে।

বন বিভাগের দাবি, গাছ লাগানোর প্রকল্পে কোনো অর্থ বরাদ্দ না থাকাতেই গাছ লাগাতে পারেনি তারা। শুধু তাই নয়, ২০০৩-৪ অর্থবছর থেকে বিভিন্ন বছরে রোপণ করা আরও ১ লাখ ৫৬ হাজার গাছ কর্তনযোগ্য জানিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে চিঠিও দিয়েছে সংস্থাটি। অনুমোদন পেলে কাটা হবে সেসব গাছও।

এদিকে নির্বিচারে বৃক্ষ নিধনে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে গাইবান্ধার জনজীবন, পরিবেশ ও প্রাণিকুল। শহরে প্রবেশের সড়কগুলোর বিভিন্ন স্থানে গড়ে ওঠা ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র হাটহাজারও পুড়ছে ছায়াহীন রোদে। পরিবেশবিদ ও স্থানীয় সচেতন মহল বলছে, উন্নয়ন কর্মকাণ্ড, বিশেষ করে সড়ক সম্প্রসারণ করতে গিয়ে শতবর্ষী সব গাছ কেটে ফেলার কারণেই জেলা শহরটির এই দৈন্যদশা।

বৃক্ষ কর্তনকে ‘গণ-অপরাধ’ আখ্যা দিয়ে আসন্ন বর্ষা মৌসুমে জেলায় কয়েক হাজার অতি প্রয়োজনীয় বৃক্ষরোপণের দাবি তুলেছে জেলার সচেতন মহলসহ পরিবেশবাদী সংগঠনগুলো।

এদিকে শহরের যানজট নিরসন ও আঞ্চলিক মহাসড়ক প্রশস্ত করতে ২০১৮ সালে ২১ দশমিক ২ কিলোমিটার সড়ক সম্প্রসারণের কাজ হাতে নেয় সড়ক ও জনপথ বিভাগ। এর মধ্যে গাইবান্ধার পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সামনে থেকে পূর্বপাড়া পর্যন্ত আড়াই কিলোমিটার অংশ চার লেনের উন্নীত করার সিদ্ধান্ত হয়। এ কাজে জেলা পরিষদের শতবর্ষী ২৬টি রেইনট্রি কাটা পড়ে। গাইবান্ধা-গোবিন্দগঞ্জ ভায়া নাকাইহাট সড়কের কাজেও জেলা পরিষদের আরও কিছু গাছ কাটা হয়।

জেলা শহর থেকে তিন কিলোমিটার দূরের ছোট্ট একটি বাজার তিন গাছতলা। বিশালাকার শতবর্ষী তিনটি বটবৃক্ষের কারণেই জায়গাটির নাম ছিল তিন গাছতলা। তবে তিনটি গাছই কেটে ফেলা হয়েছে। গত শনিবার বেলা ১১টার দিকে সেখানে গেলে স্থানীয়রা বলেন, তিন গাছের কল্যাণে সেখানে গ্রীষ্মেও বইত হাওয়া। এখন সেখানে উষ্ণতা নিরসনের আর কোনো উপায় নেই।

সেখানকার টেইলার্স ব্যবসায়ী সবুজ মিয়া (৩২) বলেন, ‘গাছ তিনটি কাটার ফলে দুপুরবেলা দোকানে টেকা দায়। অতি কষ্টে দোকান করছি। এখানে তিনটি গাছ কাটা হলো, কিন্তু আজ পর্যন্ত একটি গাছও গাড়া (রোপণ করা) হয়নি।’

স্থানীয় ব্যবসায়ী সেলিম মিয়া (৫৫) বলেন, ‘সড়ক প্রশস্ত করার নামে অহেতুক গাছ কাটা হয়েছে। এখানকার বটগাছের ছায়ায় অতি গরমেও আমরা কোনো গরম বুঝতাম না। তখন সব সময়ে এখানে মানুষের প্রচণ্ড ভিড় ছিল। দূরের পথচারীরাও এখানে বিশ্রাম নিত। এখন সব স্মৃতি।’

পরিবেশ আন্দোলন গাইবান্ধার সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল হক জনি বলেন, গাইবান্ধা শহরের রাস্তা সম্প্রসারণ করতে প্রয়োজন নেই, এমন গাছও কেটে ফেলেছে জেলা পরিষদ। মানুষের জন্য উন্নয়ন করতে গিয়ে প্রকৃতিই যদি ধ্বংস করা হয়, তা জীববৈচিত্র্যের জন্য কল্যাণকর হবে না।

গাইবান্ধা সরকারি কলেজের উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান (ভারপ্রাপ্ত) মো. মাজেদুল হক বলেন, নির্বিচারে গাছপালা উজাড় করার ফলে জলবায়ু পরিবর্তন হয়ে যাচ্ছে। ঘন ঘন দুর্যোগ দেখা দিচ্ছে। খরা ও অনাবৃষ্টিতে ভুগছি। অনেক প্রাণী বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে। পরিকল্পনা মাফিক প্রচুর গাছ লাগাতে ও বন সংরক্ষণ করতে না পারলে কোনো উন্নতি হবে না।

জেলা প্রশাসক অলিউর রহমান বলেন, বন বিভাগের কাজই হচ্ছে বৃক্ষরোপণ করা। তারা পরিপূর্ণ গাছ কাটবে, কিন্তু যা কাটবে তার থেকেও বেশি পরিমাণ গাছ লাগাতে হবে। অর্থ বরাদ্দ নেই অজুহাতে গাছ রোপণ বন্ধ রাখার সুযোগ নেই।

বিষয়:

নাটোরে মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নিহত ১

আপডেটেড ২৯ নভেম্বর, ২০২৩ ১৭:০৩
নাটোর প্রতিনিধি

নাটোরের বাগাতিপাড়া এলাকায় মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বৈদ্যুতিক পোলের সঙ্গে ধাক্কা লেগে চালক জাহিদ হাসান নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় তার বন্ধু সহযাত্রী ঈমন আলী গুরুতর আহত হয়েছেন।

আজ বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার মুরাদপুর গ্রামে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত জাহিদ হাসান পাশ্ববর্তী লালপুর উপজেলার শোভ গ্রামের কামাল হোসেনের ছেলে। আহত ঈমন আলী একই গ্রামের সুজন আলীর ছেলে। তারা দুজনই বাগাতিপাড়া বিএম কলেজের একাদশ শ্রেণীর প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী।

এ বিষয়ে বাগাতিপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নান্নু খান জানান, দুই বন্ধু জাহিদ ও ঈমন একটি মোটর সাইকেলে এবং অপর একটি মোটরসাইকেলে তাদের আরও দুই বন্ধু কলেজ শেষে বাড়ি ফিরছিলেন। এমন সময়ে জাহিদ তার বাইকটি অতিরিক্ত গতিতে চালাতে শুরু করলে মুরাদপুর এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশে বৈদ্যুতিক পোলের সঙ্গে ধাক্কা লাগে। এতে ঘটনাস্থলেই জাহিদ হাসান নিহত হন এবং ঈমন আলী গুরুতর আহত হন। স্থানীয়রা সেখান থেকে ঈমনকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করে ও খবর পেয়ে জাহিদের স্বজনরা ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ বাড়ীতে নিয়ে আসেন।

বিষয়:

নওগাঁয় অন্যায্য দামে গরুর মাংস বিক্রি

আপডেটেড ২৯ নভেম্বর, ২০২৩ ১৬:৫২
নওগাঁ প্রতিনিধি

নওগাঁয় অন্যায্য দামে গরুর মাংস বিক্রি করায় চারজন ব্যবসায়ীকে ৪ হাজার টাকা জরিমানা করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। এছাড়া মূল্য তালিকা দেখাতে না পারায় একজন সবজি বিক্রেতাকে আরও ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। আজ বুধবার দুপুরে পৌর শহরে মাংসের বাজারে এক তদারকি অভিযানে এই জরিমানা করা হয়। অভিযানটি নেতৃত্ব দেন ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক রুবেল আহমেদ।

তিনি জানান, সারাদেশে ৫৫০ থেকে ৬০০ টাকা কেজিতে গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে। কিন্তু এ বাজারে ৬৫০ থেকে ৭০০ টাকা কেজিতে বিক্রি করতে দেখেন তারা। ফলে ভোক্তা সংরক্ষণ আইন অনুযায়ী বিসমিল্লাহ গোস্ত ঘরকে ১ হাজার টাকা, মিজানুর গোস্ত ঘরকে ১ হাজার টাকা, নিউ মিট স্টোরকে ১ হাজার টাকা ও ভাই ভাই মিট স্টোরকে ১ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়। এছাড়াও মূল্য তালিকা প্রদর্শন করতে না পারায় কাঁচা বাজারের মতিউর সবজি ঘরকে ৫০০ টাকা জরিমানা করে তারা।

অভিযানে আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা কৃষি বিপণন কর্মকর্তা ও অন্যান্য পুলিশ সদস্যরা।

বিষয়:

মানিকগঞ্জে ৯ ডাকাত গ্রেপ্তার

আপডেটেড ২৯ নভেম্বর, ২০২৩ ১৬:১৭
মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি

মানিকগঞ্জের সিংগাইরে প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতির ঘটনায় ৯ জন ডাকাত সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

আজ বুধবার দুপুরে পুলিশ সুপার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনের করে ডাকাত সদস্যদের গ্রেপ্তার করার বিষয়াটি নিশ্চিত করেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ গোলাম আজাদ খান।

ঘটনার পরের দিন প্রবাসীর স্ত্রী মনি বেগম বাদী হয়ে সিংগাইর থানায় একটি ডাকাতির মামলা করেন। এরপর পুলিশ অভিযান চালিয়ে তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যম ব্যবহার করে দেশের বিভিন্নস্থান থেকে ডাকাত দলের সদস্যদের গ্রেপ্তার করে।

প্রবাসীর স্ত্রীর করা একটি এজহারপত্রে জানা যায়, গত ১৯ নভেম্বর রাতে সিংগাইরের ধল্লা ইউনিয়নের গাজিন্দা এলাকার প্রবাসী জুয়েল রানার বাড়িতে প্রবেশ করে ৯ থেকে ১০জনের একটি ডাকাত দল। তারা দেশীয় অস্ত্র দিয়ে মারধর করে ৩৩.১৪ ভরি স্বর্ণালংকার, ২০ ভরি রুপা, সৌদি রিয়াল, মোবাইল ফোনসহ প্রায় ৩৫ লাখ ১৮ হাজার টাকা মূলের মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ গোলাম আদাজ খান জানান, গ্রেপ্তারকৃত ডাকাত দলের সদস্যদের কাছ থেকে ৩৫ হাজার টাকা দামের একটি টিভি, ১৪ আনা স্বর্ণালংকার ও ২০ ভরি রুপা উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়াও ডাকাতিতে ব্যবহার করা দুটি রাম দা, একটি শাবল, একটি কাটারসহ সাতটি দেশীয় ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। একজন ডাকাত এখনো পলাতক আছেন তাকে গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।

বিষয়:

নওগাঁয় গাঁজাসহ গ্রেপ্তার ২

ছবি: দৈনিক বাংলা
আপডেটেড ২৯ নভেম্বর, ২০২৩ ১৪:১৭
নওগাঁ প্রতিনিধি

নওগাঁর বদলগাছীতে দুজন গাঁজা কারবারিকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৫। মোটরসাইকেলের ছিটের নিচে লুকিয়ে রাখা এক ১ কেজি ৯০০ গ্রাম গাঁজাসহ ধরা পড়ে তারা।

আজ বুধবার ভোরে উপজেলার চকতাল এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন উপজেলার ঝাড়ঘড়রিয়া এলাকার সোহেল রানা (৩৪) ও শাহপুর এলাকার রিপন (৩৫)।

র‌্যাব-৫ জয়পুরহাট ফাঁড়ি থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সোহেল রানা একজন পরিচিত মাদক ব্যবসায়ী। আর সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে মাদক কিনতেন রিপন। জেলার বিভিন্ন এলাকায় খুচরা ও পাইকারী বিক্রি করে অর্থ যোগাতেন তিনি। এমন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৫ এর গোয়েন্দা দল সোহেল রানার গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করা শুরু করে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আজ ভোরে অভিযান চালিয়ে মোটরসাইকেলের ছিটের নিচে লুকিয়ে রাখা গাঁজা বহনকালে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে বদলগাছী থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বিষয়:

রাস্তার পাশ থেকে তরুণীর মরদেহ উদ্ধার

ছবি: প্রতীকী ছবি
আপডেটেড ২৮ নভেম্বর, ২০২৩ ১৬:৪১
নওগাঁ প্রতিনিধি

নওগাঁয় রাস্তার পাশে পড়ে থাকা মোছা. রিংকু (২০) নামে এক তরুণীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে সদর উপজেলার আক্কেলপুর এলাকার তুলসীগঙ্গা নদীর বেড়িবাঁধ রাস্তার পাশ থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

রিংকু জয়পুরহাট জেলার আক্কেলপুর উপজেলার রাইকাল ইউনিয়নের মৃত আব্দুর রাজ্জাকের মেয়ে।

নওগাঁ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফয়সাল বিন আহসান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, দুপুরের দিকে মরদেহটি রাস্তার পাশে পড়ে থাকতে দেখেন পথচারীরা। তাদের মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মরদেহটি উদ্ধার করে। তারপর ময়নাতদন্তের জন্য নওগাঁ সদর হাসপাতালে মরদেহটি পাঠানো হয়।

এ বিষয়ে (ওসি) আরও জানান, ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর তারা মৃত্যুর সঠিক কারণ জানতে পারবে। এই ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে।

বিষয়:

বিএনপির নির্বাচনে আসা না আসা তাদের ব্যাপার: ইসি আনিসুর

আপডেটেড ২৮ নভেম্বর, ২০২৩ ১৬:০৮
কক্সবাজার প্রতিনিধি

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি আসবে কি আসবে না সেটি তাদের ব্যপার বলে মন্তব্য করেছেন নির্বাচন কমিশনার (ইসি) মো. আনিসুর রহমান।

তিনি বলেছেন, ‘অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনে সবাই আসবে এটি স্বাভাবিক। প্রধান নির্বাচন কমিশনার এখনো সুযোগ থাকার কথা বিএনপিকে বলেছেন। যদি তারা আসে তাহলে পুনরায় তফসিল ঘোষণা করা হবে।’

মঙ্গলবার দুপুরে কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে জেলার শীর্ষ প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে এসব কথা বলেন ইসি আনিসুর।

তিনি বলেন, ‘কোনো আসনকে হালকাভাবে নেয়া হচ্ছে না। প্রত্যেক আসনই গুরুত্বপূর্ণ। পরিস্থিতি খারাপ হতে সময় লাগে না। তাই ব্যাপক প্রস্তুতি রাখা হবে। প্রত্যেকে প্রত্যেকের জায়গা থেকে কাজ করে যাবে। নির্বাচন সুষ্ঠু করতে যা করা প্রয়োজন কমিশন তা করবে। সেই উদ্দেশ্যে আমরা চার কমিশনার সারাদেশে সরেজমিনে যাচ্ছি।’

এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. শাহীন ইমরান, পুলিশ সুপার (এসপি) মো. মাহফুজুল ইসলাম, কক্সবাজার র‍্যাব-১৫ এর অধিনায়ক লে. কর্ণেল এইচ এম সাজ্জাদ হোসেন, কক্সবাজার ৩৪ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্ণেল সাইফুল ইসলাম চৌধুরী, ৩০ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্ণেল সৈয়দ ওয়াহিদুজ্জামান তানজিদ ও টেকনাফস্থ ২ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্ণেল মো. মহিউদ্দিন আহমেদসহ জেলার শীর্ষ কর্মকর্তারা।


লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্সের ধাক্কায় প্রাণ গেল যুবকের

ছবি: দৈনিক বাংলা
আপডেটেড ২৮ নভেম্বর, ২০২৩ ১৬:০৪
কুমিল্লা প্রতিনিধি

কুমিল্লার দেবিদ্বারে অ্যাম্বুলেন্সের ধাক্কায় মো. ময়নাল হোসেন (৩০) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার ভোর ৬টার দিকে পৌরসভার চাপানগর এলাকায় কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কে এ ঘটনাটি ঘটে। এতে অ্যাম্বুলেন্সের চালকসহ আরও তিনজন গুরুতর আহত হয়েছেন।

নিহত ময়নাল দেবিদ্বার পৌর এলাকার সাইলচর গ্রামের বাচ্চু মিয়ার ছেলে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মিরপুর হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) বেনু দাশ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ভোর ৬টার দিকে একটি অ্যাম্বুলেন্স পথচারী ময়নালকে ধাক্কা দেয়। এতে তিনি ছিটকে পড়ে ঘটনাস্থলে মারা যান। পরে অ্যাম্বুলেন্সটি একটি গাছের সাথে ধাক্কা লেগে দুমড়েমুচড়ে যায়।

এসআই বেনু দাশ বলেন, ‘ভোর ৬টার দিকে কসবাগামী একটি লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্সের ওই ধাক্কায় যুবকের তার মৃত্যু হয়। এসময় ঘটনায় আরও কয়েকজন আহত হয়েছেন। আহতদের নাম পরিচয় এখনো জানা যায়নি। মরদেহ উদ্ধার করে কুমিল্লা হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।’

বিষয়:

মানিকগঞ্জে মোটরসাইকেল-ট্রলির মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ১

আপডেটেড ২৮ নভেম্বর, ২০২৩ ১৫:২২
মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি

মানিকগঞ্জের ঘিওরে মোটরসাইকেল ও ট্রলির মুখোমুখি সংঘর্ষে মোটরসাইকেল আরোহী আসিবুল ইসলাম (২২) নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার সকালে বরংগাইল-টাঙ্গাইল আঞ্চলিক মহাসড়কের ঘিওর উপজেলার তেরশ্রী এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

আসিবুল মানিকগঞ্জের দৌলতপুরের চকমিরপুর এলাকার ফজলুর রহমানের ছেলে।

পুলিশ জানায়, সকালে দৌলতপুরগামী ট্রলির সঙ্গে বিপরীত দিক থেকে আসা ঘিওরগামী মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে মোটরসাইকেলচালক আসিবুল ইসলাম গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ঘিওর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।

ঘিওর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুর রহমান জানান, দুর্ঘটনার পর মোটরসাইকেল ও ট্রলি জব্দ করা হয়েছে। এ ঘটনায় ঘিওর থানায় আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন আছে। দুর্ঘটনার পর থেকে ট্রলি চালক পলাতক রয়েছেন।

বিষয়:

পাথরখেকোদের থাবায় মৃত্যুর পথে ডাহুক নদ

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
হোসেন রায়হান, পঞ্চগড়

পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার ডাহুক নদের গতিপথ বন্ধ করে পাথর উত্তোলন করছে প্রভাবশালী পাথর ব্যবসায়ীরা। নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে ডাহুকের দুই পাড়ে বন বিভাগ ও সরকারি জমি খনন করেও পাথর উত্তোলন করা হচ্ছে। ফলে হুমকির মুখে পড়েছে ডাহুক নদ। নদের গতিপথ পরিবর্তনের পাশাপাশি শুকিয়ে যাচ্ছে নদ। নদের দুই পাড়েও দেখা দিয়েছে ভাঙন। নষ্ট হচ্ছে শত শত একর কৃষিজমি।

ভারতে উৎপত্তি হয়ে বাংলাদেশে ১৪ কিলোমিটার প্রবাহিত হয়ে আবার ভারতে প্রবেশ করেছে ডাহুক নদ। ডাহুকের পশ্চিমে শালবাহান ইউনিয়ন এবং পূর্ব দিকে বুড়াবুড়ি ইউনিয়নের হাজার হাজার একর কৃষিজমি রয়েছে। রয়েছে চা-বাগান, আমসহ নানা ফলের বাগান। স্থানীয়রা বলছেন, ডাহুক নদের পানি দিয়েই এসব জমি চাষাবাদ করা হয়। প্রতিবছর বর্ষাকালে পলিমিশ্রিত পানি ছড়িয়ে দেয় এই নদ। শুষ্ক মৌসুমে ডাহুকের পানি সেচ দিয়ে চলে শস্যের আবাদ। নানা প্রজাতির মাছের আবাসও এই ডাহুক নদে। দুই ইউনিয়নের শতাধিক জেলে সারা বছর এখান থেকে অন্তত ১৪ টন মাছ আহরণ করেন। এলাকার হাজার হাজার মানুষের আমিষের চাহিদা মেটায় এই মাছ।

কিন্তু বর্তমানে পাথর উত্তোলনের ফলে নদের গতিপথ বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। আসছে শুষ্ক মৌসুমে এই নদ মরে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। যত্রতত্র পাথর উত্তোলনের ফলে ডাহুকের সীমানাও হারিয়ে যাচ্ছে। স্থানীয় অন্তত ১০০ জন পাথর ব্যবসায়ী নদটির যেখানে-সেখানে খনন করে ডুবুরিদের মাধ্যমে পাথর উত্তোলন করছেন। ফলে নদের কোথাও কোথাও বালির ঢিবি হয়ে যাচ্ছে আবার কোথাও কোথাও সৃষ্টি হচ্ছে বিশাল গর্ত। এতে নদের স্বাভাবিক গতিপ্রবাহ বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। নদের জল বিকল্প দিকে প্রবাহিত হওয়ার ফলে দুই দিকের পাড় ভাঙছে। কমে যাচ্ছে কৃষিজমি।

জানা গেছে, পাথর উত্তোলনে স্থানীয় একজন চেয়ারম্যান নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তার নেতৃত্বেই একটি সিন্ডিকেট আইন অমান্য করে অবৈধভাবে পাথর উত্তোলন করছেন। তিনি নিজেও বালাবাড়ি ফরেস্ট এলাকায় ডাহুক নদের গতিপথ বন্ধ করে পাথর উত্তোলন করছেন।

নাম গোপন রাখার শর্তে একাধিক শ্রমিক ও কয়েকজন ব্যবসায়ী জানান, লোহাকাচি গ্রামের জয়নাল আবেদীনের ছেলে আব্দুল জলিল সিন্ডিকেট ও প্রশাসনকে ম্যানেজ করার নামে প্রত্যেক পাথর উত্তোলন সাইট থেকে সপ্তাহে ৫ হাজার টাকা নিচ্ছেন। এই টাকা সিন্ডিকেটের বিভিন্ন সদস্যের হাতে পৌঁছে দিচ্ছেন তিনি। তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে আব্দুল জানান, ‘আমি কোনো চাঁদা নেই না। মালিকানা জমিতে পাথর উত্তোলন করছি।’

নাওয়াপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ফারুখ হোসেন বলেন, ‘ডাহুক শেষ। কেউ কিছু বুঝতে চাচ্ছে না। নিজেদের স্বার্থে নদটিকে হত্যা করে পাথর উত্তোলন করছে। আমার ব্যক্তিগত কৃষিজমি নষ্ট হচ্ছে। স্থানীয় কয়েক’শ জেলে আজ বেকার হয়ে গেছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘পুলিশ এলে পাথর উত্তোলন বন্ধ হয়। চলে গেলে আবার উত্তোলন শুরু হয়। প্রশাসনের কঠোর পদক্ষেপ ছাড়া এই নদ বাঁচানো সম্ভব না।’

প্রাণ প্রকৃতি পরিবেশবিষয়ক বেসরকারি সংগঠন কারিগরের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক আহমেদ বলেন, পাথরখেকোরা নদী হত্যার উৎসব শুরু করেছে। দ্রুত এই অপরিকল্পিত পাথর উত্তোলন বন্ধ করা না গেলে ডাহুক চিরতরে হারিয়ে যাবে।

পাথর শ্রমিকরা বলছেন, ডাহুকে হাজার হাজার শ্রমিক পাথর উত্তোলন করে নিজেদের সংসার চালাচ্ছেন। দেশের রাস্তাঘাট, ভবন নির্মাণে কাজে লাগছে এই পাথর। তবে অপরিকল্পিতভাবে পাথর উত্তোলনের ফলে ডাহুকের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে।

তেঁতুলিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু সাঈদ চৌধুরী বলেন, অপরিকল্পিত বালু উত্তোলন বন্ধে পুলিশ তৎপর রয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. ফজলে রাব্বি বলেন, বিষয়টি আমাদের নজরে রয়েছে। অচিরেই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বিষয়:

সিলেট বিভাগে আওয়ামী লীগের ৯ নতুন মুখ

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
সিলেট ও সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেট বিভাগের ১৯ আসনে দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে আওয়ামী লীগ। এর মধ্যে ৯টিতে এসেছে পরিবর্তন।

তাদের মধ্যে সিলেট-২ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শফিকুর রহমান চৌধুরী। ২০০৮ সালে এ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন শফিকুর। তবে গত দুটি নির্বাচনে এ আসনে দলীয় প্রার্থী না দিয়ে জোটসঙ্গী জাতীয় পার্টিকে ছেড়ে দেয় আওয়ামী লীগ।

সিলেট-৫ আসনে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মাসুক উদ্দিন আহমদ মনোনয়ন পেয়েছেন। এ আসনে আওয়ামী লীগ দলীয় বর্তমান সংসদ সদস্য হাফিজ আহমদ মজুমদার বার্ধক্যজনিত কারণে দলীয় মনোনয়ন সংগ্রহ করেননি।

এ ছাড়া মৌলভীবাজার-২ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল। এ আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগ ছেড়ে যাওয়া সুলতান মোহাম্মদ মনসুর। গত নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে বিকল্প ধারার প্রার্থী এম এম শাহীন এখানে নির্বাচন করেন।

মৌলভীবাজার-৩ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন জিল্লুর রহমান, বঞ্চিত হয়েছেন বর্তমান সংসদ সদস্য জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নেছার আহমদ।

সুনামগঞ্জ-১ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক অ্যাডভোকেট রঞ্জিত চন্দ্র সরকার, বাদ পড়েছেন বর্তমান এমপি মোয়াজ্জেম হোসেন রতন।

সুনামগঞ্জ-২ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন পুলিশ প্রধানের ভাই চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ। এমপি পদে নির্বাচন করতে তিনি সম্প্রতি শাল্লা উপজেলা চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন। এ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য প্রয়াত সুরঞ্জিত সেনের স্ত্রী ড. জয়া সেনগুপ্ত।

সুনামগঞ্জ-৪ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন পিএসসির সাবেক চেয়ারম্যান ড. মুহাম্মদ সাদিক। গত দুটি নির্বাচনে এখানে জাতীয় পার্টির প্রার্থী পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ এমপি নির্বাচিত হন। এ দুই নির্বাচনেই এখানে প্রার্থী দেয়নি আওয়ামী লীগ।

এ ছাড়া হবিগঞ্জ-১ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন অ্যাডভোকেট ড. মুশফিক হোসেন। বাদ পড়েছেন বর্তমান দলীয় এমপি গাজী মো. শাহনেওয়াজ এবং হবিগঞ্জ-২ আসনে বর্তমান এমপি আব্দুল মজিদ খানের বদলে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে ময়েজ উদ্দিন শরিফ রুহেলকে।

এই ৯ আসনে প্রার্থিতা রদবদল হলেও বাকি ১০ আসনে প্রার্থী অপরিবর্তিত রেখেছে আওয়ামী লীগ।

পুনরায় যারা নৌকার মনোনয়ন পেয়েছে তারা হলেন, সিলেট-১ আসনে ড. এ কে আব্দুল মোমেন, সিলেট-৩ আসনে হাবিবুর রহমান হাবিব, সিলেট-৪ আসনে ইমরান আহমদ, সিলেট-৬ আসনে নুরুল ইসলাম নাহিদ, মৌলভীবাজার-১ আসনে শাহাব উদ্দিন, মৌলভীবাজার-৪ আসনে উপাধ্যক্ষ আবদুস শহীদ, সুনামগঞ্জ-৩ আসনে এম এ মান্নান, সুনামগঞ্জ-৫ আসনে মুহিবুর রহমান মানিক, হবিগঞ্জ-৩ আসনে আবু জাহির ও হবিগঞ্জ-৪ আসনে মাহবুব আলী।

বিষয়:

মহেশপুর সীমান্ত থেকে বাংলাদেশী যুবকের লাশ উদ্ধার

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার চাপাতলা সীমান্ত থেকে রকিবুল ইসলাম নামের এক যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

সোমবার সকালে ওই গ্রামের ইছামতি নদীর পাড় থেকে তার লাশ উদ্ধার করে বিজিবি। নিহত রকিবুল ইসলাম উপজেলার যাদবপুর গ্রামের মৃত মনিরুল ইসলামের ছেলে। সে চাপাতলা গ্রামে শ্বশুড়বাড়িতে থাকত।

স্থানীয়রা জানান, সকালে ইছামতি নদীর পাড়ে রকিবুলের লাশ পড়ে থাকতে দেখে বিজিবিকে খবর দেয় গ্রামবাসী। পরে বিজিবি এসে তার লাশ উদ্ধার করে।

পেশায় রাজমিস্ত্রী রকিবুল রোববার সকালে বাড়ি থেকে বের হন। পরে আর বাড়ি ফেরেননি। সকালে তার লাশ পাওয়া যায়। রকিবুলকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে স্থানীয়রা।

মহেশপুর ৫৮ বিজিবির পরিচালক লে. কর্ণেল মাসুদ পারভেজ বলেন, ‘বাংলাদেশের অভ্যন্তরে একটি লাশ পাওয়া গেছে। তাকে কে বা কারা কী কারণে হত্যা করেছে তা জানা যায়নি। মরদেহ ময়নাতদন্তের পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।’

বিষয়:

ফিলিং স্টেশনে ৩ বাসে আগুন

আপডেটেড ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
নাটোর প্রতিনিধি

নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার বনপাড়ায় একটি ফিলিং স্টেশনে রাখা তিন বাসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। সোমবার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়কের মহিষভাঙ্গা এলাকায় পাটোয়ারী ফিলিং স্টেশনে এই ঘটনা ঘটে ।

বড়াইগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিউল আজম জানান, ফিলিং স্টেশনটিতে জিএম এবং আরকে.আর পরিবহনের ২০টি বাস রাখা রাখা ছিল। ভোর সাড়ে ৪টার দিকে হঠাৎ জিএম পরিবহনের তিনটি বাসে আগুন জ্বলতে দেখে পাম্পের কর্মচারিরা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসে খবর দেন। খবর পেয়ে বনপাড়া ফায়ার সার্ভিসের লোকজন ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নেভায়। তার আগেই আগুনে তিনটি বাস পুড়ে যায়।

তিনি বলেন, ‘এ ঘটনায় জড়িতদের শনাক্তে পুলিশ কাজ শুরু করেছে।’

বিষয়:

সাতক্ষীরায় ২ ভারতীয় নাগরিক নিহতের ঘটনায় ট্রাকচালক গ্রেপ্তার

আপডেটেড ২৬ নভেম্বর, ২০২৩ ১৬:৪৮
সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

সাতক্ষীরায় সড়ক দুর্ঘটনায় দুই ভারতীয় নাগরিক নিহতের ঘটনায় অভিযুক্ত ট্রাক ড্রাইভার ও হেলপারকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। শনিবার রাত সাড়ে ৩টার দিকে সাতক্ষীরার কালীগঞ্জ থেকে মো. রেজাউল করিম (৩৮) ও মো. ইয়াকুব হোসেন (২২) নামে ওই দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা কালিগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা।

রোববার এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান র‌্যাব-৬ সাতক্ষীরা ক্যাম্পের কমান্ডার এএসপি নাজমুল হক।

তিনি জানান, সাতক্ষীরা-খুলনা মহাসড়কে বিজিবি ক্যাম্পের সামনে ট্রাক ও প্রাইভেটকারের মুখোমুখি সংঘর্ষে এই দুই ভারতীয় নাগরিক নিহত হন। তারা হলেন, ভারতের পশ্চিমবঙ্গের শিলিগুড়ি এলাকার অসীম কুমার বিশ্বাস ও তার স্ত্রী ছবি বিশ্বাস। এতে গুরুতর আহত হন প্রাইভেটকারের চালক রফিকুল ইসলাম সজীব।

তিনি আরও জানান, দুর্ঘটনার পর থেকেই ট্রাকের চালক পালিয়ে যান। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য চালক ও হেলপারকে সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

বিষয়:

banner close